Friday, May 31, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

স্বৈরশাসকের সঙ্গে সম্পর্কের প্রসঙ্গ টেনে বার্সাকে মাদ্রিদের প্রশ্ন, মদদপুষ্ট কারা?

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে রিয়াল মাদ্রিদকে ‘ক্ষমতাসীনদের দল’ হিসেবে উল্লেখ করে তাদের বিরুদ্ধে সবসময় রেফারির সহায়তা পেয়ে আসার অভিযোগ তোলেন বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট

আপডেট : ১৮ এপ্রিল ২০২৩, ০৬:১১ পিএম

মাঠে রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনার লড়াইয়ের ইতিহাস শত বছরের পুরোনো। এখন মাঠের বাইরে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর লড়াইয়ে ঝাঁজ এনেছে নেগ্রেরিয়া-কাণ্ড। অর্থের বিনিময়ে রেফারিদের প্রভাবিত করার অভিযোগ ওঠার পর কাতালান ক্লাব এবং লা লিগার মধ্যে আদায় কাঁচকলায় সম্পর্ক চলছে। সম্প্রতি এ লড়াইয়ে যুক্ত হয়ে পড়েছে আরেক লা লিগা পরাশক্তি রিয়াল মাদ্রিদ।

ফেব্রুয়ারিতে বার্সেলোনার বিরুদ্ধে স্পেনের রেফারি কমিটির সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট হোসে মারিয়া এনরিকেস নেগরেইরাকে অর্থ দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। কাতালান ক্লাবটি অবশ্য শুরু থেকেই তাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। সোমবার (১৭ এপ্রিল) এক সাক্ষাৎকারে রিয়াল মাদ্রিদের বিরুদ্ধে সবসময় রেফারির সহায়তা পেয়ে আসার অভিযোগ তোলেন বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট হুয়ান লাপোর্তা। সেই সঙ্গে স্প্যানিশ স্বৈরশাসক ফ্রান্সিকো ফ্রাঙ্কোর প্রসঙ্গ তুলে রিয়ালকে ক্ষমতাসীনদের দল বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

লাপোর্তার মন্তব্যের জবাবে রিয়াল মাদ্রিদের বোর্ড সদস্য, কোচিং প্যানেল বা খেলোয়াড়দের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো বক্তব্য দেওয়া হয়নি। তবে লস ব্লাঙ্কোসদের অফিসিয়াল চ্যানেল রিয়াল মাদ্রিদ টিভির এক ভিডিওচিত্রের মাধ্যমে বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট হুয়ান লাপোর্তার মন্তব্যের জবাব দেওয়া হয়। এক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম এএস।

বার্সেলোনার বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত তিন বছর ধরে তারা তৎকালীন লা লিগার রেফারিদের টেকনিক্যাল কমিটির সহ-সভাপতি হোসে নেগরেইরাকে ১৪ লাখ ইউরো দিয়েছে। ১৯৯৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত স্প্যানিশ রেফারিদের টেকনিক্যাল কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন নেগরেইরা। নেগরেইরার প্রতিষ্ঠানের কর নিরীক্ষণের পর ঘটনার তদন্ত করছে স্পেনের পাবলিক প্রসিকিউটর অফিস। 

প্রসিকিউটর অফিস ইতোমধ্যে বার্সেলোনা ও ক্লাবটির সাবেক দুই প্রেসিডেন্ট সান্দ্রো রোসেল এবং হোসেপ মারিয়া বার্তামেউর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়ার কথা জানিয়েছে। ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা উয়েফাও। পরবর্তীতে কাতালান ক্লাবটির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানায় তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদও।

রিয়াল মাদ্রিদকে “শাসকদের দল” আখ্যা দিয়ে লাপোর্তা বলেন, “রেফারির সিদ্ধান্তের কথা বললে সেদিক থেকে ঐতিহাসিকভাবে রিয়াল সুবিধা পাওয়া দল। ঐতিহাসিকভাবে এবং সাম্প্রতিক সময়েও তারা এমন সুবিধা পেয়েছে। ক্ষমতার কাছাকাছি থাকার কারণে এটা ক্ষমতাসীনদের দল হিসেবে পরিচিত। এবার সেটা রাজনৈতিক ক্ষমতা হোক কিংবা অর্থনৈতিক।”

বার্সেলোনা প্রেসিডেন্টের মন্তব্যের জবাবে রিয়াল মাদ্রিদ টিভিতে প্রকাশিত ভিডিওচিত্রে প্রথমে বার্সেলোনার উদ্দেশ করে প্রশ্ন রাখা হয়- “শাসকের দল কোনটি?” মূলত ১৯৩৯ থেকে ১৯৭৫ সালে মৃত্যুর আগপর্যন্ত স্পেনের ক্ষমতাসীন ডানপন্থী স্বৈরশাসক জেনারেল ফ্রাঙ্কোর সঙ্গে বার্সেলোনার সম্পর্কের দিকে আঙুল তুলেই এ প্রশ্নের অবতারণা করা হয়।

ভিডিওচিত্রে বলা হয়, বার্সেলোনার স্টেডিয়াম ন্যু ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন ফ্রাঙ্কোর সাধারণ মন্ত্রী জোসে সলিস রুইজ। বার্সেলোনার পক্ষ থেকে ১৯৬৫ সালে ফ্রাঙ্কোকে সম্মানসূচক সদস্য পদ দেয় এবং তিনটি অনুষ্ঠানে তাকে পুরস্কার দেয়। এ সময় কাতালান ক্লাবটিকে ফ্রাঙ্কো তিনবার দেউলিয়া হওয়ার হাত থেকে বাঁচিয়েছেন বলেও উল্লেখ করা হয়।

ফ্রাঙ্কোর শাসনামলে আসা রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনার সাফল্যের ব্যবধান দেখিয়ে ভিডিওচিত্রে বলা হয়, ফ্রাঙ্কোর সময়ে বার্সেলোনা ৮টি লা লিগা এবং ৯টি কোপাস দেল জেনারেল (বর্তমান কোপা ডেল রে) জিতেছে। অন্যদিকে, ফ্রাঙ্কোর শাসনামলে স্প্যানিশ লিগ জিততে রিয়াল মাদ্রিদের ১৫ বছর লেগেছে।

About

Popular Links