Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বালোতেল্লির দায়েই এতগুলো ব্যালন ডি অর জিতেছেন মেসি-রোনালদো!

গত ১৫ বছরে মেসি-রোনালদো ব্যতিত ব্যালন ডি অর জিততে পেরেছেন মাত্র তিনজন খেলোয়াড়

আপডেট : ২৫ এপ্রিল ২০২৩, ০৭:০৭ পিএম

দেড় দশকেরও বেশি সময় ধরে ফুটবলে লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর একচ্ছত্র আধিপত্য চলছে। ফুটবলের অন্যতম সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত পুরস্কার ব্যালন ডি অরও সবচেয়ে বেশি গেছে এ দুজনের ঝুলিতেই। ৩৫ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের হাতে যেখানে সাতবার ব্যালন ডি অর উঠেছে, সেখানে সিআর সেভেন এ সম্মাননা জিতেছেন পাঁচবার।

গত ১৫ বছরে মেসি-রোনালদো ব্যতিত ব্যালন ডি অর জিততে পেরেছেন মাত্র তিনজন খেলোয়াড়। তারা হলেন- ব্রাজিলের কাকা (২০০৭), ক্রোয়েশিয়ার লুকা মডরিচ (২০১৮) এবং করিম বেনজেমা (২০২২)। তবে মারিও বালোতেল্লির দাবি, মেসি-রোনালদোর এত ব্যালন ডি অর জয়ের জন্য তিনি নিজেই দায়ী। এক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে গোল ডট কম।

মারিও বালোতেল্লির প্রতিভা এবং সামর্থ্য নিয়ে কখনোই কারও সন্দেহ ছিল না। ২০১০ সালে তার হাতে উঠেছিল বর্ষসেরা তরুণ ফুটবলারের পুরস্কারও। নিজের দিনে এ ইতালিয়ান স্ট্রাইকার প্রতিপক্ষের জন্য বড় হুমকি ছিলেন। কিন্তু ফুটবলীয় নৈপুণ্যের  খামখেয়ালিপনা আর বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের কারণেই বারবার আলোচনায় এসেছেন বালোতেল্লি।

ফলে মাঠে বালোতেল্লির অমিত সম্ভাবনার পুরোপুরি কখনোই দেখা যায়নি। বিষয়টি তিনি নিজেও স্বীকার করেন। এমনকি ম্যানচেস্টার সিটি, ইন্টার মিলান, লিভারপুল, এসি মিলানের মতো ক্লাবের হয়ে খেলা এ ফরোয়ার্ডের দাবি, নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী খেললে মেসি-রোনালদো কখনোই একত্রে ১২টি ব্যালন ডি অর জিততে পারতেন না।

দাবিটা অবশ্য বালোতেল্লির নিজের না, দীর্ঘদিন ধরে এ ফুটবলারের এজেন্ট হিসেবে কাজ করা প্রয়াত মিনো রাইওলার। ২০২২ সালে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়া এই সুপার এজেন্ট বালোতেল্লিকে বলতেন, অপেশাদারিত্বের কারণেই মেসি-রোনালদো এত ব্যালন ডি অর জিততে পেরেছেন।

মুসচিও সালভাজ্জো পডকাস্টে বালোতেল্লি বলেন, রাইওলা সবসময় আমাকে একই কথা বলতেন। যদি মেসি-রোনালদো এত ব্যালন ডি অর জিতে থাকেন, তাহলে সেটা আমারই ব্যর্থতা। তিনি ঠিকই বলতেন। মাঝেমাঝে আমি আমার সামর্থ্যের ২০% দিয়ে খেলতাম।

৩২ বছর বয়সী এ ইতালিয়ান স্ট্রাইকার বর্তমানে সুইস ক্লাব সিওনের হয়ে খেলছেন। আন্তর্জাতিক ফুটবলে জাতীয় দল ইতালির জার্সিতে ৩৬ ম্যাচে মাঠে নেমে ১৪টি গোল করেছেন বালোতেল্লি। তবে ক্যারিয়ারের পড়ন্ত বেলায় এসেও আবারও আজ্জুরিদের জার্সি গায়ে চাপানোর স্বপ্ন দেখেন তিনি। তবে ইতালি কোচ রবার্তো মানচিনি আবার তাকে ডাকবেন নাকি, সেই সন্দেহ থেকেই যায়। ম্যানচেস্টার সিটিতে থাকাকালে দুজনের সম্পর্ক বেশ শীতলই ছিল।

এ প্রসঙ্গে বালোতেল্লি বলেন, আজ্জুরিদের জার্সি গায়ে দিলে আমার অন্যরকম এক অনুভূতি হয়। রবার্তোর সঙ্গে আমার সবসময়ই সুসম্পর্ক ছিল। এটা সত্যি না যে আমাদের মধ্যে কোনো সমস্যা আছে। আমার এখনও মনে হয় আমি জাতীয় দলের হয়ে খেলার উপযুক্ত।

About

Popular Links