Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ওয়ানডে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে দেখা হতে পারে গতবারের ফাইনালিস্টদের

ফাইনালের মতো আইসিসি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচেরও সম্ভাব্য ভেন্যু আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়াম

আপডেট : ১০ মে ২০২৩, ১০:০০ পিএম

চার বছর পর আবার ফিরে আসছে আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপ। ভারতের মাটিতে এ বছর আয়োজিত হবে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপের ১৩তম আসর। আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আর মাত্র মাস পাঁচেক বাকি থাকলেও এখনো টুর্নামেন্ট শুরুর দিনক্ষণ এবং ম্যাচের ভেন্যু নির্ধারণ করা হয়নি। চলমান ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) আসর শেষ হওয়ার পরই বড় অনুষ্ঠান করে বিশ্বকাপ সূচি ঘোষণা করবে ভারতের ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই।

তবে সূত্রের বরাত দিতে ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আগামী ৫ অক্টোবর গত আসরের দুই ফাইনালিস্ট ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের। ফাইনালের মতো আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে হবে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচ।

একই প্রতিবেদনে বলা হয়, স্বাগতিক ভারত নিজেদের প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে। ম্যাচটির সম্ভাব্য ভেন্যু হিসেবে ধরা হচ্ছে চেন্নাইকে। আগামী বিশ্বকাপের উদ্বোধনী এবং ফাইনাল ম্যাচের মতো ১৫ অক্টোবর আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিপক্ষে লড়বে আয়োজকরা।

এশিয়া কাপ খেলতে পাকিস্তানে যেতে ভারত রাজি না হওয়ায় পাকিস্তানও বিশ্বকাপ খেলতে ভারতে না যাওয়ার হুমকি দিয়েছিল। তবে জানা গেছে, শেষ পর্যন্ত ভারতে বিশ্বকাপ খেলার বিষয়ে রাজি হয়েছে ১৯৯২ এর চ্যাম্পিয়নরা।

আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের ম্যাচগুলো আহমেদাবাদ, হায়দরাবাদ, চেন্নাই ও বেঙ্গালুরুতে অনুষ্ঠিত হবে। দক্ষিণাঞ্চলের দর্শক শান্তিপূর্ণ বলে টুর্নামেন্টে পাকিস্তানের ম্যাচের ভেন্যু হিসেবে দক্ষিণ ভারতের স্টেডিয়ামগুলোকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

২০১৬ সালের পর ভারতের মাটিতে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর প্রথম ম্যাচটির সাক্ষী হবে আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে। তবে আহমেদাবাদে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ খেলতে অবশ্য পাকিস্তান খানিকটা অস্বস্তিতে ভুগছে। পিসিবি প্রধান নাজাম শেঠী এ ভেন্যুর কিছু পরিবর্তন চাইবেন বলে শোনা যাচ্ছে। তবে ফাইনালে পৌঁছালে সেখানে খেলতে তাদের আপত্তি নেই।

কিছুদিন আগে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বকাপে বাংলাদেশ তাদের অধিকাংশ ম্যাচ খেলবে কলকাতা ও গুয়াহাটিতে। বাংলাদেশ থেকে দূরত্ব কম হওয়ায় যাতায়াত নির্বিঘ্ন রাখার লক্ষ্যেই মূলত এ সিদ্ধান্ত। দূরত্ব ছাড়াও গ্যালারিতে বাংলাদেশি দর্শকদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের কথাও তারা মাথায় রেখেছে।

গত মার্চে ক্রিকইনফোর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, আগামী ৫ অক্টোবর থেকে ১০টি দলকে নিয়ে মাঠে গড়াবে ৫০ ওভারের ক্রিকেটের শ্রেষ্ঠত্বের আসর। ভারত, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, নিউ জিল্যান্ড, আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ এরই মধ্যে জায়গা চূড়ান্ত করেছে। সবশেষ অষ্টম দল হিসেবে সরাসরি অংশ নেওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। বাকি দুটি জায়গা পূরণ হবে জুন-জুলাইয়ের বাছাইপর্ব থেকে। ৪৬ দিনব্যাপী এ আসরের পর্দা নামবে ১৯ নভেম্বর।

আগামী জুন-জুলাই মাসে জিম্বাবুয়ের মাটিতে হবে বাছাইপর্ব। সেখানে সুপার লিগ থেকে সরাসরি বিশ্বকাপে উঠতে ব্যর্থ হওয়া বাকি পাঁচ দলের (ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা, আয়ারল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে ও নেদারল্যান্ডস) সঙ্গে লড়বে প্রাক-বাছাই পেরিয়ে আসা আরও পাঁচটি দল। তারা হলো নেপাল, ওমান, স্কটল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও যুক্তরাষ্ট্র।

আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজনে ১২ স্টেডিয়ামের সংক্ষিপ্ত তালিকা করেছে ভারতের ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই। এক মাসেরও দীর্ঘ সময় ধরে চলা এ টুর্নামেন্টে নকআউট পর্বের তিনটিসহ ৪৮টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাচগুলোর ভেন্যু হিসেবে সংক্ষিপ্ত তালিকায় আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়াম ছাড়াও বেঙ্গালুরু, চেন্নাই, দিল্লি, ধর্মশালা, গুয়াহাটি, হায়দরাবাদ, কলকাতা, লক্ষ্মৌ, ইন্দোর, রাজকোট ও মুম্বাই রয়েছে। বিশ্বকাপের ভেন্যুর প্রাথমিক তালিকা থেকে বাদ গেছে মোহালি ও নাগপুর। মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়েতে হবে একটি সেমিফাইনাল। প্রতিটি দল ৯টি করে লিগ ম্যাচ খেলবে।

এ শহরগুলো ছাড়াও মূল টুর্নামেন্টের আগে প্রস্তুতি ম্যাচের জন্য আরও কয়েকটি ভেন্যু বেছে নেওয়া হতে পারে। তবে ফাইনাল ছাড়া আর কোনো ম্যাচের ভেন্যু এখনও চূড়ান্ত করেনি বিসিসিআই। মূলত ভারতের একেক প্রদেশে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে বর্ষাকাল শুরু হওয়ায় ভেন্যু চূড়ান্ত করতে সময় লাগছে।

About

Popular Links