Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এমএলএস নিয়ে মেসিকে যে উপদেশ দিলেন বেল

সাউদাম্পটন, টটেনহাম ও রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ইউরোপ অধ্যায় শেষ করে ২০২২ সালে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস এফসিতে যোগ দেন বেল

আপডেট : ২২ জুন ২০২৩, ০৬:৪৭ পিএম

লিওনেল মেসি অনেক আগেই চুক্তির মেয়াদ শেষে পিএসজি ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। আর্জেন্টাইন মহাতারকার সম্ভাব্য গন্তব্য হিসেবে শোনা যাচ্ছিল তিনটি ক্লাবের নাম- স্পেনের বার্সেলোনা, সৌদি আরবে আল হিলাল এবং যুক্তরাষ্ট্রের ইন্টার মিয়ামি। শেষ পর্যন্ত আগামী মৌসুমে মেজর লিগ সকারের (এমএলএস) ইন্টার মিয়ামিতে পাড়ি জমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ৩৫ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড।

লিওনেল মেসি নিজের দীর্ঘ দেড় যুগের ক্যারিয়ারে ক্লাব ফুটবলের পুরোটাই পার করে দিয়েছেন ইউরোপে। স্প্যানিশ পরাশক্তি বার্সেলোনার জার্সিতেই ক্যারিয়ারের সিংহভাগ সময় পার করেছেন আগামী সপ্তাহে ৩৭ এ পা দিতে যাওয়া আর্জেন্টাইন উইঙ্গার। গত দুই বছর অবশ্য মেসির সময় কেটেছে পিএসজির ডেরায়। যুক্তরাষ্ট্রের এমএলএস যে মেসির জন্য একইসঙ্গে নতুন ও ব্যতিক্রম অভিজ্ঞতা হতে যাচ্ছে, সেটি না বলে দিলেও চলছে।

নতুন দেশে, সম্পূর্ণ নতুন এক পরিবেশে ভিন্নধারার ফুটবলের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়াটা নিঃসন্দেহে চ্যালেঞ্জিং বিষয়। মেসির মতো তার আগে ইউরোপের ফুটবলের পাট চুকিয়ে মেজর লিগ সকারে এসেছেন গ্যারেথ বেল। এই ওয়েলশ ফুটবলার অবশ্য এমএলএস নিয়ে মেসিকে অভয়ই দিচ্ছেন। তার ভাষ্যমতে, এমএলএসে খেলাটা তুলনামূলক কম চাপের। শুধু তাই না, এখানে হারলেও পরাজয়কে সবাই সহজভাবেই নেয় বলে মন্তব্য করেছেন বেল।

ইউরোপে সাউদাম্পটন, টটেনহাম ও রিয়াল মাদ্রিদের মতো ক্লাবের হয়ে মাঠ মাতিয়েছেন গ্যারেথ বেল। ইউরোপ অধ্যায় শেষ করে তিনি ২০২২ সালে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস এফসিতে যোগ দেন। ৩৩ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড গেল বছর মার্কিন ক্লাবটির জার্সিতে জিতেছেন তাদের ইতিহাসের প্রথম মেজর লিগ শিরোপা। পরবর্তীতে একই বছরেই জিতেছেন সাপোর্টার্স কাপও।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সকার নিয়ে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গ্যারেথ বেলের কাছে জানতে চেয়েছিল বিটি স্পোর্টস। সেখানে মেজর লিগের বিভিন্ন ইতিবাচক বিষয় নিয়ে প্রশংসা করেন ওয়েলসের এ উইঙ্গার। ইন্টার মিয়ামির জার্সিতে মাঠে নামার আগে সেগুলো হয়তো মেসির জন্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হয়ে থাকবে।

গ্যারেথ বেল বলেন, “এ লিগে খেলা খুবই চাপহীন। রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে যদি আপনি ম্যাচ হারেন, তাহলে ব্যাপারটা এমন হয়ে যায়, যেন আপনি গোটা দুনিয়াটাই হারিয়েছেন। দুনিয়াটাই শেষ হয়ে গেছে। আপনাকে রীতিমতো ছিঁড়ে ফেলা হবে। আপনি ম্যাচ হেরে সেখানে বাড়ি ফিরবেন চাপ নিয়ে। মন খারাপের অনুভূতি নিয়ে।”

এমএলএস নিয়ে তিনি বলেন, “যুক্তরাষ্ট্রে হারটাকে খুবই স্বাভাবিকভাবে দেখা হয়। কোনো অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি কিংবা খারাপ পরিণতি নেই। মেজর লিগে অবনমন বলেই তো কিছু নেই। আপনি একটি ম্যাচে হারলেও আপনি চাপ ছাড়া সহজেই পরবর্তী ম্যাচে মাঠে নামতে পারবেন। তারা সেখানে অনেক ভালোভাবেই হার মেনে নেয়।”

ধারণা করা হচ্ছে, আগামী ২১ জুলাই ক্রুজ আজুলের বিপক্ষে লিগস কাপে ঘরের মাঠ ডিআরভি পিএনকে স্টেডিয়ামে ইন্টার মিয়ামির জার্সিতে মেসির অভিষেক হবে। বার্ষিক এ প্রতিযোগিতার আগেই মেসির সঙ্গে চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা সেরে ফেলবে মার্কিন ক্লাবটি। আগামী ২০ আগস্ট শারলটের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো এমএলএসে মাঠে নামবেন মেসি।

About

Popular Links