Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কাতার বিশ্বকাপের পর অবসর নেবেন নেইমার

মনস্তাত্ত্বিক কারণেই এত জলদি বুটজোড়া তুলে রাখতে চাইছেন ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার

আপডেট : ০৫ জুন ২০২২, ০৩:০১ পিএম

দীর্ঘদিন ধরেই ব্রাজিল জাতীয় ফুটবল দলের স্বপ্নসারথী নেইমার। তাকে ঘিরেই ৬ষ্ঠবারের মত বিশ্ব জয়ের স্বপ্ন দেখছে সেলেসাও ভক্তরা। কিন্তু ২০২২ বিশ্বকাপই হয়ত ভক্তদের জন্যে এমন দৃশ্য দেখার সর্বশেষ সুযোগ। নেইমার নিজেই আভাস দিয়েছেন কাতারে অনুষ্ঠেয় পরবর্তী বিশ্বকাপেই পেশাদার ফুটবলে শেষবারের মতো তার ঝলক দেখা যেতে পারে।

খেলাধূলা বিষয়ক ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম ডাজানের বরাত দিয়ে মাদ্রিদভিত্তিক স্প্যানিশ দৈনিক মার্কারের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানা গেছে।

বয়স মাত্র ২৯। নিজের সুবর্ণ সময় যে পার করে এসেছেন তেমনটাও না। তাহলে কেন এত জলদিই বুটজোড়া তুলে রাখতে চাইছেন? এ ব্যাপারে ব্রাজিল তারকার সহজ স্বীকারোক্তি, কারণটা মনস্তাত্ত্বিক।

ডাজানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নেইমার বলেন, “আমি অনে করি ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপই আমার জন্য সর্বশেষ বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে। কারণ আমি জানি না এরপর ফুটবল চালিয়ে যাওয়ার মতো মানসিক শক্তি আমার থাকবে কি না।”

কাতার বিশ্বকাপটাকে সাফল্যের রঙে রাঙাতে তাই নেইমার বদ্ধপরিকর। এই প্রসঙ্গে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড বলেন, “কাতারে বিশ্বকাপ জেতার জন্যে আমি সম্ভাব্য সবকিছুই করব। শৈশব থেকেই আমার স্বপ্ন ছিল দেশের হয়ে বিশ্বকাপ জেতা। আশা করি কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছে আমি আমার স্বপ্নপূরণ করতে পারবো।”

অমিত প্রতিভাধর হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করলেও অনেকের মতেই নিজের প্রতিভার পূর্ণ সদ্ব্যবহার করতে পারেননি নেইমার। পুরো ক্যারিয়ারজুড়েই চোটের সঙ্গে লড়াই করাকে এর একটি বড় কারণ হিসেবে মনে করা হয়। পিঠের এমনই এক ইনজুরি নিজের দেশের মাটিতে আয়োজিত ২০১৪ বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন তো বটেই, শেষ করে দিতে পারতো নেইমারের ফুটবল ক্যারিয়ারও।

ব্রাজিলীয় তারকাকে নিয়ে তৈরিকৃত “নেইমার জুনিয়র ডাইনেস্টা ডে রেয়েস” ডকুমেন্টারিতে সেই ইনজুরির স্মৃতিচারণ করে নেইমার বলেন, “এটি আমার ক্যারিয়ারের অন্যতম বাজে মুহূর্ত। এই ইনজুরি আমার বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল, ফাইনাল খেলার স্বপ্ন শেষ করে দিয়েছিল। আমি আমার পা নাড়ানোর শক্তি পাচ্ছিলাম না। আমি শিশুদের মতো কান্নায় ভেঙে পড়েছিলাম।”

তিনি আরও বলেন, “আমাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরে ডাক্তার আমাকে জানালো আমার জন্যে একটি করে সুসংবাদ এবং দুঃসংবাদ আছে। আমি কোনটি শুনতে চাই। আমি দুঃসংবাদের কথা জানতে চাইলে তিনি আমাকে বলেন তুমি বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেছো। আর সুসংবাদের কথা জানতে চাইলে তিনি বললেন, আঘাতটা আর ২ সেন্টিমিটারের এদিক-সেদিক হলে তুমি হাঁটাচলার শক্তি হারিয়ে ফেলতে।”

সেযাত্রায় অল্পের জন্যে বড় বিপদ থেকে বেঁচে গিয়েছিলেন নেইমার। বিশ্বমঞ্চে নিজের সর্বশেষ উপস্থিতিতে ব্রাজিলের হয়ে ২০২২ বিশ্বকাপের সোনালী ট্রফি উঁচিয়ে ধরে নেইমার নিজের সেই দুঃস্বপ্নকে মাটি চাপা দিতে পারেন কি না সেটিই এখন দেখার বিষয়।

About

Popular Links