Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দ্বিতীয় প্রীতি ম্যাচেও আফগানদের সঙ্গে বাংলাদেশের ড্র

তিন দিন আগে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করেছিল বাংলাদেশ

আপডেট : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৭:৪০ পিএম

তিন আগে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে সুযোগ হারানোর মহড়ার মাশুল গুণে গোলশূন্য ড্র করেছিল বাংলাদেশ। আফগানদের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে গোলের দেখা পেলেও লাল-সবুজদের জয়ের স্বাদ পাওয়া হয়নি। ফিফা র‍্যাংকিংয়ে ৩২ ধাপ এগিয়ে থাকা আফগানিস্তানের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে বাংলাদেশ। ফলে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুই প্রীতি ম্যাচের সিরিজ শেষ হয়েছে সমতায়।

আগের ম্যাচের অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনায় আফগানিস্তানের মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। ম্যাচের শুরু থেকে আফগানরা কিছুটা চাপিয়ে খেলার চেষ্টা করলেও তারা বাংলাদেশ গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোর বড় পরীক্ষা নিতে ব্যর্থ হয়। তবে মাঠের লড়াইয়ের চেয়ে মেজাজ হারানোর দিকে এগিয়ে থাকতে চাচ্ছিলেন দুই দলের খেলোয়ড়রা।

ম্যাচের ১৬ মিনিটে একটি ফাউলকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের ডাগআউটে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন বাংলাদেশ দলের সহকারী কোচ হাসান আল মামুন ও আফগানদের হেড কোচ আব্দুল্লাহ আর মুতাইরি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে দুজনকেই লাল কার্ডে দেখিয়ে বহিষ্কার করেন রেফারি।

৪-৪-২ ছকে শুরু করা বাংলাদেশ প্রথমে খোলসবন্দি থাকলেও প্রথমার্ধের শেষদিকে জেগে ওঠে। ৪০ মিনিটে সোহেল রানার বাড়ানো পাসে বল পেয়ে রাকিব হোসেন ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন। কিন্তু রাকিবের নেওয়া আড়াআড়ি শট শট ঠেকিয়ে দেন আফগানিস্তানের গোলরক্ষক। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে সোহেল রানার কর্নারে অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া গতিময় শট নিলেও গোলমুখে তা প্রতিহত করেন এক আফগান ডিফেন্ডার।

মধ্যবিরতির পর শুরুতেই বদলি হিসেবে মাঠে নামের সাদ উদ্দিন। তবে ৫২ মিনিটে গোল করে এগিয়ে যায় আফগানিস্তান। ওমিদ পোপালজাইয়ের কর্নারে দুই বাংলাদেশি ডিফেন্ডারের মাঝ দিয়ে জোরালো হেডে আফগানদের এগিয়ে দেন জাবার সারজা। ৫৬ মিনিটে তৌফি সেকান্দারির জোরালো শট লক্ষ্যভ্রষ্ট না হলেও সফরকারীরা ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলতো।

গোল হজম করে পিছিয়ে পড়েও অবশ্য হাল ছাড়েনি বাংলাদেশ। ৬১ মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে জামালের নেওয়া ফ্রিকিক ক্রসবারের ওপর দিয়ে চলে যায়। তবে পরের মিনিটেই সমতায় ফেরে স্বাগতিকরা। রাকিবের অসাধারণ এক থ্রু পাস ধরে ডান প্রান্ত দিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়া বিশ্বনাথ ক্রসের মাধ্যমে খুঁজে নেন মোরসালিনকে। অরক্ষিত অবস্থায় থাকা তরুণ বাংলাদেশি ফরোয়ার্ড জালে বল জড়াতে কোনো ভুল করেননি।

সমতায় ফেরার মিনিট পাঁচেক পর এক আফগান খেলোয়াড়ের হাতে বল লাগলে পেনাল্টির আবেদন জানায় বাংলাদেশ। তবে বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের পেনাল্টি আবেদনে সাড়া দেননি ম্যাচের রেফারি। এরপর ম্যাচের বাকি সময় বাংলাদেশ একের পর এক আক্রমণ চালিয়ে গেছে। বিশেষ করে ম্যাচের শেষ ২০ মিনিট আফগানদের দুর্গে বাংলাদেশ প্রতিনিয়িত হানা দিয়েছে। 

৭৮ মিনিটে মোহাম্মদ সোহেল রানার কাটব্যাক থেকে বলে পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন মোরসালিন। ৮৫ মিনিটে কর্নার থেকে বিশ্বনাথের হেড এক আফগান ডিফেন্ডার বিপদমুক্ত করলে আবার হতাশ হতে হয় স্বাগতিকদের। পরের মিনিটে অবশ্য আবার এগিয়ে যেতে পারতো বাংলাদেশ। কিন্তু অবিশ্বাস্য দক্ষতায়  ঝাঁপিয়ে ঠেকান তপুর হেড আফগান গোলরক্ষক রুখে দিলে ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় বাংলাদেশকে।

About

Popular Links