Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পাকিস্তান দলের শৃঙ্খলার পেছনে অবদান ইসলাম ধর্মের, দাবি হেইডেনের

২০২১ ও ২০২২ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তান দলের সঙ্গে কাজ করেন সাবেক এ অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটার

আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০২৩, ০২:৪১ পিএম

বিতর্কের কারণে প্রায়ই খবরের শিরোনাম হয় পাকিস্তান ক্রিকেট দল। ড্রেসিংরুমে পাকিস্তানি খেলোয়াড়দের মনোমালিন্য আর বাদানুবাদের কথাও প্রায়ই সামনে আসে। তবে সাম্প্রতিক সময় মাঠে এবং মাঠের বাইরে শৃঙ্খলা বজায় রাখার কারণে পাকিস্তান দল বেশ প্রশংসিত হয়েছে।

দীর্ঘ দুই বছর পাকিস্তান ক্রিকেট দলের অংশ ছিলেন ম্যাথু হেইডেন। পাকিস্তান দলের অন্দরমহল সম্পর্কে ভালোই ধারণা আছেন সাবেক এ বাহাঁতি ব্যাটারের। পাকিস্তান দলের সাম্প্রতিক শৃঙ্খলার পেছনে ইসলাম ধর্মের ভূমিকা দেখছেন এ অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি। পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম জিও নিউজের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে।

২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের মূল কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন হেইডেন। গত বছরের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের বিশ্বযজ্ঞে তিনি কাজ করেছেন পাকিস্তান দলের মেন্টর হিসেবে। বাবর আজমদের তাই খুব কাছ থেকেই দেখেছেন ৫১ বছর বয়সী সাবেক এ অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার।

বর্তমানে অবশ্য আর পাকিস্তান দলের অংশ নন হেইডেন। তবে মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) হায়দরাবাদে পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার প্রস্তুতি ম্যাচে ধারাভাষ্য দেওয়ার সময় হেইডেনের মুখে পাকিস্তান দলের প্রশংসাই ঝরেছে। এ সময় তিনি পাকিস্তান ক্রিকেট দলের প্রতি নিজের দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েও কথা বলেন।

পাকিস্তান-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে ধারাভাষ্যের সময় পাকিস্তান দলের সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা জানিয়ে হেইডেন বলেন, “ইসলাম ধর্মের প্রতি পাকিস্তানের খেলোয়াড়রা খুব মনোযোগী, যা এ দলের মূল ভিত্তি। তারা জীবনযাপনেও খুব শৃঙ্খলাপরায়ণ।”

সাবেক এ অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটার আরও বলেন, “আমি এটার (পাকিস্তান দলের শৃঙ্খলাপরায়নতা) প্রশংসা করি। কারণ দিনশেষে ক্রিকেট কিন্তু শৃঙ্খলারই খেলা। আপনাকে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকতে হবে, নিবেদন থাকতে হবে, ধারাবাহিক হতে হবে-দলের সংস্কৃতিতে এসবই ইসলামের প্রতিনিধিত্ব করে।”

মঙ্গলবার হায়েদ্রাবাদে রানবন্যার প্রস্তুতি ম্যাচে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার কাছে ১৪ রানে পরাজিত হয়েছে পাকিস্তান। এর আগে শুক্রবার প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে গত দুই আসরের রানার্সআপ নিউজিল্যান্ডের কাছে ৫ উইকেটে পরাজিত হয় তারা। দুটো ম্যাচে যথাক্রমে ৩৪৫ ও ৩৩৭ রান করায় পাকিস্তানের ব্যাটিং প্রস্তুতিটা ভালোই হয়েছে। তবে দলটির বোলিং বিভাগটা ছিল হতাশাজনক।

আগামী ৬ অক্টোবর হায়েদ্রাবাদেই নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে পাকিস্তানের ওয়ানডে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু হবে। ১৪ অক্টোবর আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে স্বাগতিক ও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের মু্খোমুখি হবে পাকিস্তান।

About

Popular Links