Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শোয়েব মালিকের বন্ধুর স্ত্রী ছিলেন সানা

শোয়েব মালিকের এটি তৃতীয় বিয়ে

আপডেট : ২২ জানুয়ারি ২০২৪, ০১:১০ পিএম

ঢাকার মাঠে শোয়েবের ব্যাট ঝড় ঠিক ততটা তোলেনি। যতটা তিনি মাঠে থাকতেই ঝড় তুলেছেন ফেসবুকে। সানা জাভেদের সঙ্গে তার বিয়ের ছবি রীতিমত বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। খবরের পাতায়, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেকেই শোয়েবের সমালোচনা করছেন। আলোচনায় উঠে আসছে তার প্রথম স্ত্রীর কথা। সানিয়া মির্জার সঙ্গে প্রতারণার কথা। প্রশ্ন উঠছে, তৃতীয় বিয়ের ক্ষেত্রেও কি কোনো কৌশল ধরেছেন শোয়েব? সেই প্রশ্নের মধ্যেই এবার জানা গেল, ঘনিষ্ঠ বন্ধুর প্রাক্তন স্ত্রীকে বিয়ে করেছেন পাকিস্তানের তারকা ক্রিকেটার।

রেডডিটের তার পুরনো এক পোস্টে দেখা গেছে, গত বছরই সানা জাভেদকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন শোয়েব। পোস্টে সানার তৎকালীন স্বামী উমাইর জয়সওয়ালকে ট্যাগ করা হয়েছিল।

২০২৩ সালের ২৩ মার্চ উমাইর জয়সওয়ালকে ট্যাগ করে ইনস্টাগ্রাম স্টোরিজে সানাকে শুভ জন্মদিন স্টিকারসহ একটি ছবি শেয়ার করেছিলেন শোয়েব।

পোস্টটি এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে নেট দুনিয়ায়। এ নিয়ে সমালোচনা করছেন অনেকেই।

একজন যেমন লিখেছেন, “সানিয়া আর উমাইরের জন্য খারাপ লাগছে।’’

আরেকজন রীতিমত সমালোচনা করে লেখেন, “আমি হতবাক হয়েছি। সানা জাভেদ আসলে তালাকপ্রাপ্ত। কারণ উমাইরের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়েছে তার। এবার সে সানিয়ার স্বামীকে বিয়ে করেছে। এই কারণেই কি সানা উমাইর থেকে আলাদা হয়ে গেছে, এটা নিশ্চয়ই...তাদের কোনো সম্পর্ক ছিল...আমার মনে হয়।’’

অন্য আরেকজন লিখেন, “সে আমাকে হতাশ করেছে, আমি পাকিস্তানি নই কিন্তু ইউকে থেকে পাক নাটক দেখি কিন্তু তার কয়েকটি শো দেখার পর একজন অভিনেত্রী হিসেবে আমি তাকে সত্যিই পছন্দ করেছি...কিন্তু এটা খুবই হতাশাজনক। উভয় প্রতারক একে অপরের প্রাপ্য।’’

তবে সানা জাভেদ ও উমাইর জয়সওয়াল কখন বিবাহবিচ্ছেদ করেছিলেন তা অবশ্য স্পষ্ট নয়।

সানা-শোয়েবের বিয়েতে ছিলেন না ঘনিষ্ঠরা

পাকিস্তানের পত্রিকা “দ্য পাকিস্তান ডেইলি’’ সানা জাভেদের সঙ্গে মালিকের বিয়ে নিয়ে প্রকাশ করা এক প্রতিবেদনে জানায়, এ বিয়েতে মালিকের পরিবারের কেউ উপস্থিত ছিলেন না।

তৃতীয় স্ত্রী সানা জাভেদের সঙ্গে শোয়েব মালিক/সংগৃহীত

এমনকি ডিভোর্সি অভিনেত্রী সানা জাভেদের সঙ্গে শোয়েব মালিকের তৃতীয় বিয়েতে তার পরিবারের কেউ উপস্থিত ছিলেন না।

ছাড়াছাড়ি হয়েছে শোয়েব-সানিয়ার!

সানিয়ার পরিবার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, শোয়েব ও সানিয়ার বেশ কয়েক মাস আগেই বিচ্ছেদ হয়ে গেছে।

পিটিআইয়ের বরাত দিয়ে ভারতের সংবাদমাধ্যম বলছে, “এটা ‘খুলা তালাক’ ছিল।” খুলা তালাক হচ্ছে একতরফাভাবে একজন মুসলিম নারীর ডিভোর্স দেওয়ার অধিকার।

সানিয়ার ১৪ বছরের সংসারে ভাঙন

২০১০ সালে হায়দরাবাদে সানিয়া মির্জার সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন শোয়েব মালিক। ২০১৮ সালে এই দম্পতির প্রথম সন্তান জন্ম হয়।

দ্বিতীয় স্ত্রী সানিয়া মির্জার সঙ্গে শোয়েব মালিক/সংগৃহীত

২০২২ সালের নভেম্বরে তাদের বিচ্ছেদের খবর ছড়িয়ে পড়ে। তখন থেকেই তারা আলাদা থাকতে শুরু করেন। সম্প্রতি শোয়েব নিজের ইনস্টাগ্রামের বায়ো থেকে সানিয়ার নাম মুছে ফেললে আবারও বিচ্ছেদ গুঞ্জন মাথাচাড়া দেয়।

দুই দিন আগেই সানিয়া তার ইনস্টাগ্রামে লিখেছিলেন, “বিয়ে কঠিন। বিবাহবিচ্ছেদ কঠিন।’’

নিজের ইনস্টাগ্রাম থেকে ইতিমধ্যে শোয়েবের সঙ্গে ১৪ বছরের সংসারের সব স্মৃতি মুছে ফেলেছেন সানিয়া।

প্রথম বিয়ের মেয়াদ আট বছর!

২০১০ সালের দিকে ভারতের হায়দরাবাদের বাসিন্দা পেশায় শিক্ষিকা আয়েশা সিদ্দিকী দাবি করেন, ২০০২ সাল থেকেই শোয়েব মালিকের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ তিনি।

যদিও আয়েশার দাবি উড়িয়ে দেন পাকিস্তানি তারকা। বিষয়টি গড়ায় থানা-পুলিশ পর্যন্তও। আয়েশা প্রতারণার দায়ে শোয়েবের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন।

প্রথম স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকীর সঙ্গে শোয়েব মালিক/সংগৃহীত

শোয়েবের সঙ্গে বিয়ের ভিডিও দেখিয়েছিলেন তিনি। যাইহোক সেই বিতর্কের মধ্যেই সানিয়াকে বিয়ে করেন তিনি। এর আগেই, ২০১০ সালের এপ্রিলে আয়েশাকে ডিভোর্স দেন, মানে বিবাহবিচ্ছেদ করেন। 

ভারতের সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, এই বিবাহবিচ্ছেদ কার্যকর করতে অন্তত ১০ জন ব্যক্তি মধ্যস্থতা করেছিলেন। আর এই বিচ্ছেদ থেকে ভরণপোষণ বাবদ ১৫ কোটি রুপি পেয়েছিলেন আয়েশা সিদ্দিকী। 

আরেক মডেলের সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন

২০২২ সালে হঠাৎ করেই পাকিস্তানি অভিনেত্রী, মডেল ও ইউটিউবার আয়েশা ওমরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়।

২০২১ সালে আয়েশার সঙ্গে একটি সাহসী ফটোশুটে অংশ নিয়েছিলেন শোয়েব।

আয়েশা ওমর ও শোয়েব মালিকের ফটোশ্যুট/সংগৃহীত

তবে ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানের সাবেক পেসার শোয়েব আখতারের একটি ‘চ্যাট শো’তে উপস্থিত হয়ে আয়েশা সেই গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে বলেছিলেন, “আমি কখনোই বিবাহিত কিংবা কারও সঙ্গে প্রতিশ্রুতি দেওয়া আছে, এমন কারও প্রতি আকর্ষণ বোধ করব না...সবাই আমাকে জানে।’’

শোয়েবও জিও নিউজের এক অনুষ্ঠানে ব্যাপারটি গুঞ্জন বলে উড়িয়ে দেন।

কে এই সানা জাভেদ?

২০১২ সালে পাকিস্তানের জনপ্রিয় ধারাবাহিক “শের-ই-জাত’’ দিয়ে পর্দায় আসার পর বেশ কিছু ধারাবাহিকে অভিনয় করেন ৩০ বছর বয়সী পাকিস্তানি অভিনেত্রী।

২০১৭ সালে প্রচারিত রোমান্টিক ড্রামা “খানি’’তে অভিনয় করে লাক্স স্টাইল অ্যাওয়ার্ডসের জন্য মনোনীত হন সানা জাভেদ।

২০২০ সালে পাকিস্তানের গায়ক ও গীতিকার উমাইর জসওয়ালকে বিয়ে করেছিলেন সানা। তার সঙ্গে ছাড়াছাড়ির পর শোয়েবের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

About

Popular Links