Monday, June 17, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অধিনায়কত্ব নিয়ে একেবারেই আগ্রহ নেই আফ্রিদির!

শাহিন শাহ আফ্রিদি প্রস্তাব ফেরানোয় বর্তমানে পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে কোনো সহ-অধিনায়ক নেই

আপডেট : ২৬ মে ২০২৪, ০৮:৫৪ পিএম

পাকিস্তানের অধিনায়কত্ব নিয়ে আগ্রহ হারিয়েছেন পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদি! গত ২৪ মে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা করে পাকিস্তান। যেখানে অধিনায়ক বাবর আজমের সহ–অধিনায়ক হওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল আফ্রিদিকে। তবে তিনি নাকি সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন।

এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ক্রিকেটবিষয়ক ওয়েবসাইট ইএসপিএন ক্রিকইনফো।

প্রতিবেদনে বলা হয়, শাহিন শাহ আফ্রিদি প্রস্তাব ফেরানোয় বর্তমানে পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে কোনো সহ-অধিনায়ক নেই।

তথ্য বলছে, পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে সহ-অধিনায়ক হওয়ার জন্য আলোচনায় ছিলেন অলরাউন্ডার শাদাব খান ও উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ রিজওয়ান। তবে বোলিংয়ে ভালো না করায় শাদাব দলে থাকবেন কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। আর তরুণ কাউকে দায়িত্ব দিতে চাওয়ায় রিজওয়ানকে ভাবনায় রাখা হয়নি।

২০২৩ সালের নভেম্বরে বাবর আজম তিন সংস্করণের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেন। এরপর আফ্রিদিকে টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব দেওয়া হয়েছিল। ফলে এই বিশ্বকাপে তারই অধিনায়ক হওয়ার কথা।

তবে জানুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ৪-১ ব্যবধানে পরাজয় ও পিএসএলে আফ্রিদির নেতৃত্বাধীন লাহোর কালান্দার্স প্লে-অফে উঠতে ব্যর্থ হয়। একই সময়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের শীর্ষ পদে পরিবর্তন আসে। এসব ঘটনার কারণে তার নেতৃত্ব নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়।

এ কারণে একটি সিরিজ পরই আফ্রিদিকে গত ৩১ মার্চ পাকিস্তান জাতীয় দলের অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। ফেরানো হয় বাবরকে। বিষয়টি নিয়ে নাখোশ ছিলেন আফ্রিদি।

পাকিস্তানের শীর্ষস্থানীয় ২৯ ক্রিকেটার তখন কাকুলের সামরিক একাডেমিতে ক্যাম্প করছিলেন।

১১ দিনের ক্যাম্প চলাকালে পিসিবি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছিল, শাহিন নতুন অধিনায়ক বাবরকে অভিনন্দন জানিয়ে তাকে সহযোগিতা করবেন বলে মন্তব্য করেছেন। 

তবে তখন শাহিনের ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, পিসিবি নিজেদের মনগড়া কথা বিবৃতিতে জুড়ে দিয়েছে। এরপর আফ্রিদি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করা একটি ভিডিওতে বলেছিলেন, ‘‘ধৈর্যের পরীক্ষা নিয়ো না, কতটা নির্মম হতে পারি, ভাবতেও পারবে না।’’

এরপর যদিও আফ্রিদি অন্য সুরে কথা বলেছেন। গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে বলেছিলেন, ‘‘পরিবারে কখনো কখনো ছোটখাটো মতবিরোধ হতেই পারে, এমনকি সেটি ভাইদের মধ্যেও হয়। কিন্তু আমাদের দলে এমন কোনো কিছুই নেই।’’

তবে সহ-অধিনায়কত্বের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেওয়াতে একটা বিষয় স্পষ্ট, আফ্রিদি এভাবে তাকে সরিয়ে দেওয়া ভালোভাবে নেননি।

About

Popular Links