Tuesday, June 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বিশ্বকাপে বাজে অবস্থায় পড়লেও দর্শকদের পাশে চান শান্ত

শান্তর প্রত্যাশা- ‘আল্লাহ না করুক, কোনো বাজে অবস্থায় যদি পড়ি, সে সময় সমর্থকরা যেন দলের পাশে থাকেন’

আপডেট : ২৯ মে ২০২৪, ০৪:১৯ পিএম

ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষেও হতাশাজনক পারফরম্যান্স করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এমন পরিস্থিতিতে ৮ জুন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিশন। বিশ্বকাপে পারফরম্যান্স যেমন হোক না কেন, সমর্থকদের সব সময় পাশে চেয়েছেন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।

বিশ্বকাপের আগে কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে স্বাগতিক যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। কিন্তু শক্তিমত্তায় যোজন যোজন পিছিয়ে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষেও হোঁচট খেয়েছে বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (২৮ মে) যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ বাতিল হয়ে গেছে ঝড়ের কারণে। ১ জুন ভারতের বিপক্ষে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে নিজেদের ঝালাই করে নেওয়ার শেষ সুযোগ পাবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) নিয়মিতভাবে ক্রিকেটারদের স্বপ্ন ও সম্ভাবনার কথা নিয়ে দ্যা গ্রিন রেড স্টোরি নামে ভিডিও প্রকাশ করেছে।

বুধবার প্রকাশিত হয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তর ভিডিও। সেখানেই বিশ্বকাপের আগে ভক্তদের উদ্দেশে শান্ত বলেছেন, “দেশের বাইরে যখন ভক্ত-সমর্থকরা সমর্থন দেন, এটা তো একটা রোমাঞ্চকর ব্যাপার। বাড়তি অনুপ্রেরণা।”

তিনি বলেন, “আমাদের দেশের প্রত্যেক মানুষ যেভাবে ক্রিকেট অনুসরণ করেন, ক্রিকেটের পাশে থাকেন, অবশ্যই দলকে অনুপ্রাণিত করে। বাড়তি চাওয়া বলতে বিশ্বকাপের সময় এতটুকু চাইব যে আল্লাহ না করুক, কোনো বাজে অবস্থায় যদি পড়ি, সে সময় তারা যেন দলের পাশে থাকেন। দলকে সমর্থন দেন।”

কয়েক মাস আগে তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক হিসেবে শান্তকে অধিনায়ক নির্বাচন করে বিসিবি। তাই শান্ত প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ইভেন্টে বাংলাদেশ দলকে নেতৃত্ব দিতে যাচ্ছেন। এই অভিজ্ঞতা রোমাঞ্চকর হলেও নেতৃত্ব উপভোগ করতে চান বাংলাদেশের অধিনায়ক।

শান্ত বলেন, “আমার মনে হয় প্রত্যেকটা ক্রিকেটারেরই এমন স্বপ্ন থাকে যে প্রথমে দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করা। তারপর যদি আবার বিশ্বকাপের মতো একটা আসরে এ ধরনের সুযোগ আসে তাহলে তো ওই ক্রিকেটারের জন্য গর্বের বিষয়। অনেক রোমাঞ্চকর একটা মুহূর্ত আমার কাছে মনে হয়। পাশাপাশি আমার কাছে মনে হয় এই সময়টাকে উপভোগ করতে চাই। খুব বেশি অধিনায়ক হওয়া নিয়ে অনেক বেশি দায়িত্ব বেড়ে গেছে এভাবেও চিন্তা করতে চাই না। প্রত্যেকটা সময় উপভোগ করতে চাই। প্রত্যেকদিন দলকে যেন কিছু একটা দিতে পারি এটাই মূল লক্ষ্য থাকবে আর কি।”

About

Popular Links