Saturday, June 15, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

খেলাকে উৎসব হিসেবে দেখতে বললেন সৌম্য সরকার

সবসময় বড় স্বপ্ন দেখতে পছন্দ করেন বলেও জানান এই ক্রিকেটার

আপডেট : ০৩ জুন ২০২৪, ১২:৩৯ পিএম

শুরু হয়ে গেছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ আয়োজনে গত ২ জুন পর্দা উঠেছে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণের সবচেয়ে বড় আসরের। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ মিশন শুরু হবে ৮ জুন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে।

তবে বিশ্বকাপের যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজ হারে ভক্ত-সমর্থকরা কিছুটা হতাশ। প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতের বিপক্ষেও শান্ত বাহিনীদের পারফরম্যান্স ছিল হতাশার। কিন্তু তারপরও এবারের বিশ্বকাপ নিয়ে বেশ আশাবাদী সৌম্য সরকার। এবারের আসরকে স্মরণীয় করে রাখতে চান তিনি। দলকে উপহার দিতে চান ভালো কিছু। এমনকি স্বপ্ন দেখেন বিশ্বকাপ জয়েরও।

বিশ্বকাপ সামনে রেখে “লাল সবুজের গল্প” শুরু করেছে বিসিবি। জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের এই সিরিজ-গল্পগুলো পোস্ট করা হচ্ছে বিসিবির ফেসবুক পেজে। তারই অংশ হিসেবে সোমবার (৩ জুন) সৌম্য সরকারের “লাল সবুজের গল্প” ভিডিও বার্তা হিসেবে নিজেদের ফেসবুক পেজে পোস্ট করেছে বিসিবি।

ভিডিও বার্তায় সৌম্য বলেন, “২০১৫ সালে প্রথম বিশ্বকাপ (ওয়ানডে) খেলেছিলাম। এবারও একই উদ্দীপনা কাজ করবে। আগের বিশ্বকাপগুলোতে ভালো কিছু করতে পারিনি, ২০২৪টা স্মরণীয় করে রাখতে চাই। চেষ্টা করব ২০২৪ সাল আমার জন্য স্মরণীয় করে রাখতে, পাশাপাশি দলকে যেন ভালো কিছু একটা উপহার দিতে পারি।”

আগের আট বিশ্বকাপের সবকটি আসর খেলা বাংলাদেশ কখনো সেমিফাইনালের মঞ্চে পা রাখতে না পারলেও সৌম্য স্বপ্ন দেখেন চ্যাম্পিয়ন হওয়ার।

তিনি বলেন, “আমি তো সবসময় বড় স্বপ্ন দেখি। এটা আমার ব্যক্তিগত চিন্তা। আমি সব সময় স্বপ্ন বড় দেখতে পছন্দ করি। কেউ যদি বলে সেমিফাইনাল, আমি বলব ‘না’, ফাইনাল খেলতেই যাব। ফলাফলের কথা পরে আসবে। আমরা যখন মাঠে ভালো খেলব বা খারাপ খেলব, তার ওপর নির্ভর করবে (ফলাফল)। কিন্তু স্বপ্ন বড় দেখাটাই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমরা আমাদের দিক থেকে চাইব নিজেদের সেরাটা দেওয়ার।”

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতে ২০২৪ সাল রাঙিয়ে দিতে চান সৌম্য। মূলত দলে সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদদের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটার থাকায় আশার আলো দেখছেন তিনি।

সৌম্য বলেন, “খেলোয়াড় হিসেবে যেকোন বিশ্বকাপে খেলাই একটা গর্বের বিষয়, ২০১৫ সালে প্রথম বিশ্বকাপ খেলেছিলাম এবারও সেরকম রোমাঞ্চ কাজ করবে। চেষ্টা করব ২০২৪ সালে আমার জন্য স্মরণীয় করতে পারি এবং পাশাপাশি দলকেও ভালো কিছু উপহার দিতে পারি।”

এদিকে সৌম্যের মতোই ব্যাট হাতে বাজে ফর্ম যাচ্ছে বাংলাদেশ অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তর। এমন অবস্থায় দলকেও নেতৃত্ব দিতে হচ্ছে শান্তকে। দুর্দিনে তার পাশে দাঁড়ালেন সৌম্য।

তিনি বলেন, “শেষ শ্রীলঙ্কা সিরিজে একসাথে ছিলাম। দেখেছি সে(শান্ত) পুরো দলকে একত্র করে ভালো করার চেষ্টা করেছে। আশা করি সবকিছু একত্র করে একটা বিশ্বকাপে সে সবাইকে সামনে নিয়ে আসতে পারবে। আমার পক্ষ থেকে তার জন্য শুভকামনা, আশা করব সে বাংলাদেশকে অধিনায়কত্বের দিক থেকে নতুন কিছু উপহার দিবে।”

সবশেষ তিনি ভক্ত-সমর্থকদের উদ্দেশ করে বলেন, “খেলায় হারজিত থাকে, উত্থান-পতন থাকে, ভালো খারাপ থাকে। সবকিছু মিলিয়ে তারা (ভক্ত-সমর্থকরা) যেন তাদের দিক থেকে এটিকে উৎসব হিসেবে নেয়। আমরা খেলোয়াড়রা আমাদের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব। তারা (ভক্ত-সমর্থকরা) যেন এর ভেতর থেকেই তাদের হ্যাপিনেসটা খুঁজে নেয়।”

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড

নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), তাসকিন আহমেদ (সহ-অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, তানজিদ হাসান, তানজিম হাসান সাকিব, মুস্তাফিজুর রহমান, মেহেদী হাসান, তানভীর ইসলাম, জাকের আলী, রিশাদ হোসেন, শরীফুল ইসলাম ও তাওহীদ হৃদয়।

রিজার্ভ খেলোয়াড়: হাসান মাহমুদ ও আফিফ হোসেন।

 

 

About

Popular Links