Saturday, June 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রোটিয়া-বধের আশায় বাংলাদেশ

টি-টোয়েন্টিতে এ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আট ম্যাচ খেলে কোনো জয় নেই বাংলাদেশের

আপডেট : ১০ জুন ২০২৪, ০৯:৫৬ এএম

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে নিউইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ক্রিকেট খেলার আশা করছে বাংলাদেশ। সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত ৮টা ৩০ মিনিটে শুরু হবে ম্যাচটি।

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে ২ উইকেটে রোমাঞ্চর জয়ের স্বাদ পায় বাংলাদেশ। জয় নিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করতে পারলেও, ব্যাটিং নিয়ে উদ্বেগ আছে টাইগার শিবিরে। তবে প্রথম ম্যাচ থেকে পাওয়া পূর্ণ দুই পয়েন্ট দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছে  বাংলাদেশকে।

টি-টোয়েন্টিতে এ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আট ম্যাচ খেলে কোনো জয় নেই বাংলাদেশের। কিন্তু এবার হারের বৃত্ত ভাঙতে আত্মবিশ্বাসী টাইগাররা।

গ্রুপ পর্বে ইতোমধ্যে শ্রীলংকা ও নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে জয় পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু মন্থর উইকেটের কারণে দুই ম্যাচেই জয় পেতে বেগ পেতে হয়েছে প্রোটিয়াদের। ইতোমধ্যেই নিউইয়র্কের উইকেট নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে। উইকেটের উন্নতিতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছে আইসিসি। তবে উইকেট মন্থর হলে সেখান থেকে বেশি সুবিধা পাবে বাংলাদেশই।

বাংলাদেশ অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত বলেন, “দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আমাদের ম্যাচের আগে নিউইয়র্কে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। তাই উইকেট সম্পর্কে আমরা কিছু ধারণা পাব।”

তিনি আরও বলেন, “উইকেট যেমনই হোক না কেন, আমরা আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারলে আমরা যেকোনো দলকে হারাতে পারি বলেই আমি বিশ্বাস করি।”

বোলারদের দুর্দান্ত পারফরমেন্সের কারণেই আত্মবিশ্বাস পাচ্ছেন শান্ত। ধারাবাহিকভাবে ভাল পারফরমেন্স করছেন দলের বোলাররা। কিন্তু ব্যাটিং ব্যর্থতার কারণে বেশিরভাগ সময় ভেস্তে গেছে বোলারদের অর্জন। শান্ত বলেন, “বেশ কিছু দিন যাবতই আমাদের বোলাররা সেরা ফর্মে আছে। বিশ্বের যেকোনো ব্যাটিং লাইন আপকে ধসিয়ে দিতে পারে তারা। আগামী বছরগুলোতেও তারা সেটা ধরে রাখতে পারবে বলে আমি বিশ্বাস করি।”

তিনি আরও বলেন, “ব্যাটিং উদ্বেগ থাকলেও আমি খুব বেশি চিন্তিত নই। সব ব্যাটার একসঙ্গে জ্বলে উঠবে এমনটা আশা আপনি করতে পারেন না। কিন্তু এটাও সত্য, কাজ করার জায়গা আছে। আমরা আমাদের ব্যাটিং সমস্যা সমাধানের জন্য কঠোর পরিশ্রম করছি।”

শ্রীলংকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত পারফরমেন্সের জন্য বাংলাদেশের বোলারদের কৃতিত্ব দিতে হবে। প্রথমে ব্যাট করা শ্রীলংকাকে ৯ উইকেটে ১২৪ রানের বেশি করতে দেয়নি টাইগার বোলাররা। জবাবে লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে বেগ পেতে হয়েছে বাংলাদেশকে। বাংলাদেশের ২ উইকেটের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছে মিডল অর্ডার ব্যাটার তাওহীদ হৃদয়ের ২০ বলে ঝড়ো ৪০ রান।

৩৬ বলে ৩৪ রানের ইনিংস খেলেন লিটন দাস। স্ট্রাইক রেট কম থাকলেও ম্যাচের পরিস্থিতি অনুযায়ী লিটনের ধীর গতির ব্যাটিং ম্যাচে বড় ভূমিকা রাখে। শেষদিকে মাহমুদুল্লাহর অভিজ্ঞতায় জয়ের হাসি হাসে বাংলাদেশ।

শান্ত বলেন, “আমি মনে করি, শ্রীলংকা সত্যিই ভালো বোলিং করেছে। কিন্তু এরকম উইকেটে আমাদের সহজেই জেতা উচিত ছিল। লিটনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সে লড়াই করেছে ঠিকই, কিন্তু তার দক্ষতা দেখিয়েছে। আমার মনে হয়, সে সত্যিই ভালো ব্যাটিং করেছে। হৃদয় সাহসী ছিল। তার খেলার ধরণ সত্যিই আমাদের দারুণভাবে সাহায্য করেছে।”

দলের সবাই ফিট থাকলে শ্রীলংকার বিপক্ষে জয়ী একাদশ ধরে রাখবে বাংলাদেশ।

About

Popular Links