Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

১৮ লাখের এক টাকাও পাননি আশরাফুল!

এ মৌসুমে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে মোহাম্মদ আশরাফুল খেলেছেন কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের পক্ষে। লিগের সর্বোচ্চ পাঁচটি সেঞ্চুরি তারই। কিন্তু দেড় মাস আগে লিগ শেষ হলেও এখনও এক টাকাও পাননি তিনি!

আপডেট : ১৪ মে ২০১৮, ০৯:৫১ পিএম

শুধু আশরাফুল নন, কলাবাগানের আরও তিন ক্রিকেটার জসিম উদ্দিন, সনজিত সাহা দ্বীপ এবং আবু বকর অনিকও কোনও টাকা পাননি। কয়েকজন  ৫০ শতাংশ পেলেও বাকি টাকা হাতে পাননি এখনও। অথচ পাওনা টাকা ঠিকমতো পরিশোধ করতে বিসিবি এবার একটা ‘অদ্ভুত’ নিয়ম করে প্লেয়ার ড্রাফট সিস্টেম চালু করে। এই নিয়ম অনুযায়ী, লিগ শুরুর আগে ৫০ ভাগ, লিগ চলাকালীন ২৫ ভাগ এবং লিগ শেষ হওয়ার পর বাকি ২৫ শতাংশ টাকা পরিশোধ করার কথা। কিন্তু বিসিবির নিয়ম না মেনে ক্লাবগুলো নিজেদের মতোই চলছে।

রবিবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে কলাবাগানের অধিনায়ক মুক্তার আলী, তাসামুল হক, নাবিল সামাদ, জসিমউদ্দিন সহ কয়েকজন ক্রিকেটার দেখা করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরীর সঙ্গে। পাওনা টাকা বুঝে নিতেই বিসিবির শীর্ষস্থানীয় এই কর্মকর্তার দ্বারস্থ হয়েছেন তারা।

এ বিষয়ে তাসামুল সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা আগেই বোর্ডের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছিলাম। বোর্ড সেটা বিবেচনায় এনে ক্লাবের কাছে চিঠি পাঠায়। ক্লাব প্রত্যুত্তরে বিসিবিকেও একটা চিঠি পাঠায়। আগামীতে ক্লাবের সঙ্গে  বৈঠকে বসে তাদের সিদ্ধান্তের কথা জানাবে বিসিবি। তবে কবে জানাবে, সে বিষয়ে কিছু জানি না।’

কয়েকজন ক্রিকেটার যে টাকা পাননি, সেটা স্পষ্ট করেই বলেছেন তাসামুল, ‘আশরাফুল, জসিম উদ্দিন, সঞ্জিত সাহা দীপ আর আবু বকর অনিক এক টাকাও পায়নি। আমরা চিঠিতে সে কথা উল্লেখও করেছি।’

তাসামুল আরও জানিয়েছেন, প্রিমিয়ার লিগ থেকে অবনমন হওয়ায় ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিকের একটা অংশ কেটে নতুন পারিশ্রমিক নির্ধারণ করেছে কলাবাগান ক্লাব কর্তৃপক্ষ।

এ প্রসঙ্গে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘প্লেয়াররা আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একই সঙ্গে  যে সব ক্লাব বোর্ডের সঙ্গে কাজ করে, তারাও গুরুত্বপূর্ণ। যে অভিযোগ এসেছে, তা সংশ্লিষ্ট ক্লাবের সঙ্গে আলোচনা করে যত দ্রুত সম্ভব নিষ্পত্তির চেষ্টা করবো আমরা। পেমেন্ট সিস্টেম আরও ভালো করারও চেষ্টা করবো।’

About

Popular Links