• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৮ রাত

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগেই নতুন কোচ

  • প্রকাশিত ০৮:২৭ রাত মে ২২, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট ০৮:২৮ রাত মে ২২, ২০১৮
gary-kirsten-1526999085608.jpg
গ্যারি কারস্টেন

গ্যারি কারস্টেনকে ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে চেয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সেই ভূমিকায় তাকে পাওয়া না গেলেও কোচের খোঁজ করতে পরামর্শকের ভূমিকায় বর্তমানে ঢাকায় রয়েছেন সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান এই ক্রিকেটার। মঙ্গলবার কোচের খোঁজ করতে বেশ কয়েকজনের সঙ্গেই ব্যক্তিগত আলাপ সেরেছেন। রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে তিনি জানান, সবার সঙ্গে আলোচনার পরই নিজের পর্যবেক্ষণ জানাবেন বিসিবিকে।

গ্যারি কারস্টেন মঙ্গলবার কাজের বিস্তারিত তুলে ধরে বলেন, আমি সবার সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে আলোচনা করেছি। তাদের মতামত জানার পর সিদ্ধান্ত নিতে সহজ হবে। এরপরই বোর্ড সভাপতির সঙ্গে বসবো।

ভারতের সাবেক কোচ জানালেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগেই নতুন কোচ পেয়ে যাবে সাকিব-মাশরাফিরা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগে হয়তো নতুন কোচের দেখা পাবো। আমার সব কাজের পর বিসিবিকে পর্যবেক্ষণ জানাতে পারবো।

রবিবার রাতে বিসিবির হয়ে কোচ খুঁজতে ঢাকায় পৌঁছেছেন কারস্টেন। তিনি জানালেন নতুন এই দায়িত্বও তার কাছে চ্যালেঞ্জিং। তবে সেই চ্যালেঞ্জ পার করতেই মুখিয়ে আছেন তিনি, যে কোনও কাজই চ্যালেঞ্জিং। আমার এই কাজটিও চ্যালেঞ্জের। তবে আশা করছি এই চ্যালেঞ্জ   ওভারকাম করতে পারবো। 

কোচ নিয়োগে ফরম্যাট সংক্রান্ত কোনও বিষয় আছে কিনা জানতে চাইলে কারস্টেন বলেন, এ নিয়ে কথা বলেছি। তবে কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। বিশ্বকাপ যেহেতু এখনও এক বছর দূরে

তাই আপাতত মূল কথা হলো দলের স্বার্থ। সেই বিষয় লক্ষ্য রেখেই ভালো কোচের খোঁজে রয়েছি। আশা করছি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগেই সেটা করতে পারবো।

অন্যান্য দলের সঙ্গে বাংলাদেশ দলের তুলনা করতে বললে কারস্টেন বৈপরীত্য নিয়েেই কথা বলেন, প্রতিটি দলেরই আলাদা চ্যালেঞ্জ আছে। আমার কাছে মনে হয় এই দলের অনেক সামর্থ্য আছে। বড় দলগুলোর বিপক্ষে ওদের সফলতাও আছে। যাদের সিনিয়র কিছু খেলোয়াড়ের সঙ্গে তরুণ-প্রতিভাবান খেলোয়াড় আছে। তাই আমি মনে করি এদের নিয়ে ভালো কোচিং কাঠামো দাঁড় করিয়ে একটা স্থিতিশীলতা আনা প্রয়োজন। এরা সর্বোচ্চ পর্যায়েও যে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঝাঁজটা দিতে পারবে এ নিয়ে আমার কোনও সংশয় নেই।

বিসিবি কারস্টেনকে চেয়েছিল ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে। কিন্তু বোর্ডের পরামর্শক হিসেবে তাকে স্বল্পমেয়াদের জন্যই পাওয়া যাচ্ছে। আপাতত তার দায়িত্ব বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের জন্য ভালো মানের একজন কোচ খুঁজে বের করা।

তারই ধারাবাহিকতায় কারস্টেনের ঢাকায় আসা। আইপিএলে তার দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু লিগ পর্বে ছিটকে যাওয়ার পরদিনই বাংলাদেশে এসেছেন তিনি। বিরাট কোহলিদের ব্যাটিং কোচ ছিলেন কারস্টেন।

সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার পরই বিসিবি সভাপতির সঙ্গে বেক্সিমকোতে তার কার্যালয়ে আলোচনায় বসেছেন কারস্টেন। আজকেই নিজের পর্যবেক্ষণ সেখানে জানাবেন। এই আলোচনা শেষে আজকে সন্ধ্যার ফ্লাইটে ঢাকা ছেড়ে যাচ্ছেন তিনি।