• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:৪৪ দুপুর

বিশ্বকাপ আয়োজনে প্রশংসিত রাশিয়া

  • প্রকাশিত ০৭:৪৩ রাত জুলাই ১৬, ২০১৮
fifa-world-cup-russia-2018-thumb-1531748469949.jpg
শুধু বিদেশী পর্যটক নয়, খেলোয়াড়রাও রাশিয়ার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। ছবি: রয়টার্স

শিরোপা লড়াইয়ে স্বাগতিক দেশ রাশিয়া বাদে যে ৩১টি দেশ অংশ নিয়েছিল, তাদের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয়ে গেছে রাশিয়ার।

আতিথেয়তার দিক থেকে রাশিয়া বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর মন জিতে নিয়েছে রাশিয়া ও দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। শিরোপা লড়াইয়ে স্বাগতিক দেশ রাশিয়া বাদে যে ৩১টি দেশ অংশ নিয়েছিল, তাদের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয়ে গেছে রাশিয়ার।

২০১৮ বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য সবার কাছ থেকেই প্রশংসা পেয়েছে রাশিয়া। আতিথেয়তা নিশ্চিত করতে আয়োজনের কোথাও কোনো কমতি রাখেনি দেশটি, বিদেশী দর্শকদের নিরাপত্তার স্বার্থেও নেয়া হয়েছিল কড়া নিরাপত্তা। এ প্রসঙ্গে ইংল্যান্ড বংশোদ্ভুত রাশিয়ান সাংবাদিক স্টিভ রোজেনবার্গ বলেছেন, “বিশ বছরের বেশি সময় ধরে মস্কোতে আছি। এত দিনে আমি কখনো রাশিয়ার শহরগুলোকে এমন দেখিনি।”

জমকালো স্টেডিয়াম থেকে শুরু করে স্টেডিয়ামে বিনামূল্যে ট্রেনযাত্রার ব্যবস্থা কোনো কিছুই যেন বাদ পড়েনি তালিকা থেকে। আর তাই হয়তো শুধু বিদেশী পর্যটক নয়, খেলোয়াড়রাও রাশিয়ার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। সাবেক জার্মান মিডফিল্ডার লোথার ম্যাথাউস জানান, “গত ৪০ বছরে আমি যতগুলো বিশ্বকাপ দেখেছি, তার মধ্যে সবচেয়ে সেরা বিশ্বকাপ ছিল এটি। ধন্যবাদ রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট, ধন্যবাদ রাশিয়া।”

বিশ্বকাপের আগে ব্রিটেনের সঙ্গে ভালো ঝামেলা চলছিল রাশিয়ার। এমন সংবাদও ছড়িয়েছিল, রাশিয়ায় বিশ্বকাপ খেলতে যাবে না ইংল্যান্ড। শেষে ইংল্যান্ড গেলেও, ব্রিটেনের কোনো কর্মকর্তাকেই রাশিয়ায় যেতে দেয়নি ব্রিটিশ দেশগুলো। কিন্তু, কর্মকর্তারা না গেলেও, রাশিয়ায় খেলা দেখতে গিয়েছিলেন অসংখ্য ইংলিশ সমর্থক। তেমনই একজন ইংলিশ সমর্থক ড্যারেন বলেছেন, “আতিথেয়তার জন্য রাশিয়াকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানাতে চাই আমি। রাশিয়া সম্পর্কে আমাদেরকে ব্রিটিশ সরকার যে ধারণা দিয়েছে, তা মিথ্যা। পুতিন এ বিষয়ে ভালো মনোযোগী ছিল। বিশ্বকাপ তিনি খুব ভালোভাবে সামলেছেন।” 

বিশ্বকাপের সুবাদে সৌদি আরব থেকে শুরু করে অন্যান্য দেশের রাষ্ট্রপ্রধানের সঙ্গেও এখন সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে রাশিয়া প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের।