• বুধবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৩০ দুপুর

পারবে তো টাইগাররা?

  • প্রকাশিত ০৩:১৭ বিকেল সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১৮
ছবি : এএফপি
ছবি : এএফপি

ওপেনিংয়ে লিটন দাস ও নাজমুল হোসেন শান্ত দাঁড়াতেই পারছেন না। তাই আজকের ম্যাচেও বাংলাদেশ ভরসা থাকবে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের সঙ্গে আগের দুই ম্যাচের মতো দলের হাল ধরতে হবে মুশফিকুর রহিমকে। সঙ্গে আছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মিডল অর্ডারে দারুণ ছন্দে থাকা মোহাম্মাদ মিঠুন ও ইমরুল কায়েস।

দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। স্বপ্ন ট্রফি জয়ের। তবে গত এক দশক ধরে বাংলাদেশ যেন ছুঁয়েও ছুঁতে পারছে না কোনো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের সিরিজ। তাই এবারও কোটি ভক্তের শঙ্কা-পারবে তো টাইগাররা? 

এবারের এশিয়া কাপে ফাইনালে নাম লেখাতে বেশ কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে বাংলাদেশকে। পাঁচ ম্যাচের মধ্যে তিনটিতে জয় আর দুটিতে হার নিয়ে শেষ দুইয়ে জায়গা করে নিয়েছে তারা। অপর দিকে ভারতের অবস্থান কিন্তু বেশ শক্ত। সবকটি ম্যাচে জয় নিয়ে এরই মধ্যে নিজেদের শক্তির জানান দিয়েছে তারা। 

বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথটা আরও দুর্গম করে দিয়েছে দলের অন্যতম সেরা দুই তারকা তামিম ইকবাল ও সাকিব আল হাসানের ইনজুরি। ইনজুরির কারণে প্রথমেই টাইগাররা হারায় ওপেনার তামিম ইকবালকে। আর পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলার আগে আঙুলে ইনজুরির কারণে বিশ্রামে যান সাকিব আল হাসান। পরে ফাইনালেও তিনি খেলবেন না বলে খবর আসে। 

তবে দুই তারকার ইনজুরিতে টাইগাররা একটুও ঘাবড়ে যাননি তার প্রমাণ মিলেছে পাকিস্তানের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে। ৩৭ রানে চীর-প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানকে হারিয়ে টুর্নামেন্ট আয়োজকদের ভারত-পাকিস্তান ফাইনালের স্বপ্নভঙ্গ করে বাংলাদেশ। 

এদিকে ওপেনিংয়ে লিটন দাস ও নাজমুল হোসেন শান্ত দাঁড়াতেই পারছেন না। তাই আজকের ম্যাচেও বাংলাদেশ ভরসা থাকবে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের সঙ্গে আগের দুই ম্যাচের মতো দলের হাল ধরতে হবে মুশফিকুর রহিমকে। সঙ্গে আছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মিডল অর্ডারে দারুণ ছন্দে থাকা মোহাম্মাদ মিঠুন ও ইমরুল কায়েস।

সাকিবের অনুপস্থিতি ভোগাবে বাংলাদেশের বোলিংকেও। তবে গেল ম্যাচে বেশ ভালো বোলিং উপহার দিয়েছেন ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মোর্তজা। সঙ্গে পেয়েছেন কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমানকে। পাকিস্তানের সঙ্গে নিজের ঝলক দেখিয়েছেন ইয়ংস্টার মেহেদি হাসান মিরাজও। আজকের ম্যাচে বাংলাদেশ একাদশে জায়গা করে নিতে পারেন বাঁ-হাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। এক্ষেত্রে দল থেকে বাদ পড়তে পারেন মমিনুল হক। 

এদিকে ভারত অনেকটাই এগিয়ে। দুবাইতে সবকটি ম্যাচ খেলার কারণে শারীরিকভাবে বেশ চাঙ্গা তারা। মাঠের কন্ডিশনও অন্যদের চেয়ে পরিচিত বেশি। এ ছাড়া আফগানদের বিপক্ষে ম্যাচে না থাকা তাদের দুই ওপেনিং ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান ফিরছেন এই ম্যাচে। আজকে দলটির বোলিংয়ে থাকতে পারেন জশপ্রীত বুমরাহ, ভুবনেশ্বর কুমার ও রবীন্দ্র জাদেজা। 

ফাইনালের আগে পরিসংখ্যানে এগিয়ে ভারত।৩৪ বারের মুখোমুখিতে মাত্র ৫ বার জিতেছে বাংলাদেশ। ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছে দুবার। তারমধ্যে দুবারই হেরেছে টাইগাররা। 

দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় শুরু হবে মহারণ। সরাসরি সম্প্রচার করবে বিটিভি, গাজী টিভি ও মাছরাঙা টেলিভিশন।