• রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৩ রাত

লড়েও শিরোপা হারালো বাংলাদেশ

  • প্রকাশিত ০২:১৫ রাত সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৮
লড়েও শিরোপা হারালো বাংলাদেশ
শ্বাসরুদ্ধকর একটি ম্যাচ উপহার দিয়েছেন টাইগাররা। ছবি: সৌজন্যে

১২ বলে ৯ রান তুলে আবারও এশিয়া কাপের শিরোপা জিতে নিল ভারত।

লড়েও ভারতের কাছে পরাজিত হলো বাংলাদেশ। এশিয়া কাপ শিরোপা জিতে নিল ভারত। তবে শ্বাসরুদ্ধকর একটি ম্যাচ উপহার দিয়েছেন টাইগাররা। 

২২৩ রানের টার্গেটে খেলতে নামা ভারতের উদ্বোধনী জুটি ভেঙে দিয়েছিলেন নাজমুল ইসলাম। বোলিংয়ে এসেই এই স্পিনার তুলে নিয়েছেন শিখর ধাওয়ানের উইকেট। ভারতের স্কোর তখন ৫ ওভারে ১ উইকেটে ৩৫। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং শুরু করা ভারতীয় এই ব্যাটসম্যানকে রুখে দেন নাজমুল। নিজের চতুর্থ বলে সৌম্য সরকারকে ক্যাচ বানিয়ে দিয়ে ১৫ রান করা ধাওয়ানকে সোজা সাজঘরে ফেরত পাঠান এই স্পিনার।

এদিকে ব্যাটিংয়ে ভাগ্য সহায় না হলেও, বোলিংয়ে এসেই সাফল্য পান মাশরাফি বিন মুর্তজা। তৃতীয় বলেই আম্বাতি রাইডুকে সাজঘরে পাঠান বাংলাদেশ অধিনায়ক। ভারতের স্কোর তখন ১৫ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ৭৯ রান। আউট হওয়ার আগে ৭ বলে মাত্র ২ রান ভারতীয় করেন ব্যাটসম্যান।

রোহিত শর্মাকে ৪৮ রানে ক্যাচ আউট করেন নাজমুল অপু, বোরিংয়ে ছিলেন রুবেল। ভারতের স্কোর সে সময় ১৬ ওভারে ৫ বলে ৭৩ রানে ৩ উইকেট।রোহিত শর্মার পর ভারতের হয়ে জুটি গড়ার চেষ্টায় ছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি ও দিনেশ কার্তিক। তিন উইকেট পড়ে যাওয়ায় থিতু হয়ে ইনিংস গুছিয়ে নিচ্ছিল ভারত। কিন্তু দারুণ এক বলে ৩৭ রানে ব্যাট করতে থাকা কার্তিককে এলবিডাব্লিউ করেন মাহমুদউল্লাহ। ভারতের স্কোর তখন ৩০ ওভার ৪ বলে ৪ উইকেটে ১৩৭ রান। এর ফলে ৫৪ রানের ভয়াবহ এই জুটিটি ভাঙে। 

কিন্তু সমস্যা হয়ে দাঁড়ান মাহেন্দ্র সিং ধোনি। শেষে ৩৬ রানে ব্যাট করতে থাকা ধোনির সাজঘরে ফেরার বন্দোবস্ত করেন মোস্তাফিজুর রহমান। ৩৬ ওভার ১ বলে ভারতের সংগ্রহ তখন ৫ উইকেটে ১৬০ রান। এরপর জমে ওঠে খেলা। দ্রুত একটি রান নিতে গিয়ে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পাওয়া কেদার যাদব খুব কষ্ট করে দৌড়াচ্ছিলেন। ৩৮তম ওভার শেষে অধিনায়ক রোহিত শর্মার ইশারায় ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে যান এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। 

মাঠ ছাড়ার সময় ২০ বলে ১৯ রানে ছিলেন কেদার। ৩৮ ওভার শেষে ভারতের স্কোর দাঁড়ায় ১৬৭ রান ৫ উইকেট। ক্রিজে রবীন্দ্র জাদেজার সঙ্গী তখন ভুবনেশ্বর কুমার। জয়ের জন্য শেষ ১২ ওভারে ৫৬ রান প্রয়োজন ভারতের। রুবেল হোসেন বোলিংয়ে এসে ভুবনশ্বের কুমারের সঙ্গে রবীন্দ্র জাদেজার জমে যাওয়া জুটি ভেঙে দেন। অফ স্টাম্পের বাইরের বল জাদেজার ব্যাটের কানা ছুঁয়ে জমা পড়ে মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসে। আম্পায়ার আউট না দেওয়ায় রিভিউ নিয়েছিল বাংলাদেশ। তাতে সিদ্ধান্ত পাল্টায়। ৩৩ বলে ১ চারে ২৩ রান করা বাঁ হাতি এই ব্যাটসম্যান ফিরে যান  প্যাভিলিয়নে। 

৪৮ ওভার শেষে ভারতের স্কোর ২১৪ রানে ৬ উইকেট। জয়ের জন্য শেষ ১২ বলে ভারতের প্রয়োজন তখন ৯ রান। কিন্তু হার এড়ানো সম্ভব হলো না বাংলাদেশের। ২২২ রানকে পুঁজি করে মাঠে লড়ছিলেন টাইগাররা, ১২ বলে ৯ রান তুলে আবারও এশিয়া কাপের শিরোপা জিতে নিল ভারত। পরিচর্যা নিয়ে আবারও মাঠে নেমেছিলেন কেদার যাদব। পরবর্তীতে যাদব আর ভুবেনশ্বের মিলে তুলে নেন জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ৯ রান।