• শুক্রবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪৯ সকাল

ইমরুলের অনবদ্য শতকে সিরিজে টাইগারদের শুভসূচনা

  • প্রকাশিত ০৫:১৫ সন্ধ্যা অক্টোবর ২১, ২০১৮
ইমরুল কায়েস
শতক উদযাপনে ইমরুল কায়েস। ছবি: ইএসপিএন

বাংলাদেশের দেয়া ২৭২ টার্গেট তাড়া করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৪৩ রান সংগ্রহ করেছে জিম্বাবুয়ে। সফরকারীদের ২৮ রানে হারিয়ে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে টাইগাররা

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ২৮ রানে হারিয়ে ১-০ তে এগিয়ে গেলো স্বাগতিক বাংলাদেশ।  

মিরপুর হোম অব ক্রিকেটে নিজেদের ইনিংসের শুরুটা দাপুটে হলেও সে তেজ বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। টাইগারদের দেয়া ২৭২ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৭ ওভারে বিনা উইকেটে ৪৮ রান সংগ্রহ করে সফরকারীরা।

তবে ৮ম ওভারের প্রথম বলেই মুস্তাফিজের কাটারে সাজঘরে ফেরেন  ৪ চার ও ২ ছক্কায় মাত্র ২৪ বলে ৩৫ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলা ওপেনার জুওয়াও। 

রানের গতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনতেই ১১ তম ওভারে নাজমুল ইসলাম অপুর ঘূর্ণিতে পরাস্ত ক্রিজে আসা টেইলর। মুস্তাফিজের মতো অপুও কারও সাহায্য ছাড়া সরাসরি স্ট্যাম্প ভেঙে বধ করেছেন নিজের শিকার।

দলীয় ৬৩ রানে সেঞ্চুরি তুলে নেয়া ইমরুলের থ্রো'তে রান আউটের ফাঁদে পড়ে ব্যক্তিগত ২১ রানে ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকদজা প্যাভিলনে ফিরলে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে জিম্বাবুয়ে।

ইনিংসের ২২ তম ওভারে নাজমুলের ২য় শিকার সিকান্দার রাজা। সাজঘরে ফেরার আগে ২২ বল খেলে ৭ রান সংগ্রহ করেছেন এই জিম্বাবুইয়ান ভেটেরান।

ফিজ আর নাজমুলের সাথে আক্রমণে যোগ দিলেন মিরাজও। ৪৮ বলে ২৪ রানের ইনিংস খেলা আরভিনের স্ট্যাম্প ২৬ তম ওভারের ১ম বলেই উপড়ে ফেলেছেন এই অলরাউন্ডার। ইনিংসের ৩৬ তম ওভারে এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে পিজে মুরকে বানান নিজের ২য় শিকার। আবারও ৪০ তম ওভারের শেষ বলে মারকুটে ব্যাটসম্যান মাভুটাকে কট অ্যান্ড বোল্ডে ফিরিয়ে নিজের ৩য় উইকেট তুলে নেন মিরাজ।

বোলিংয়ের পাশাপাশি আজ টাইগারদের ফিল্ডিংয়েও ছিল চনমনে ভাব। মিরাজের ৩য় শিকারের আগে 'আন্ডার দ্য আর্ম থ্রো'তে দৃষ্টিনন্দন এক রানআউটে ৭ম উইকেট হিসেবে তিরিপানোকে বিদায় করেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। 

শেষে সম্মানজনক স্কোর করতে দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ৩৩ বলে ৩৭ রান করা জার্ভিসকে ৪৯ তম ওভারে মুশফিকের তালুবন্দী করে ফেরত পাঠান মাহমুদুল্লাহ।টাইগারদের হয়ে মিরাজ ৩টি, নাজমুল ২টি আর মুস্তাফিজের নিয়েছেন ১টি করে উইকেট।

এর আগে, টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। টপ অর্ডারে লিটন ও অভিষিক্ত ফজলে মাহমুদ ব্যর্থতা ঘোচাতে না পারলেও ওপেনিংয়ে ফিরেই সেঞ্চুরি পেয়েছেন ইমরুল কায়েস। 

ওয়ানডে ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি করতে ১১৮ বলে ৮টি বাউন্ডারি ও ৩টি ছক্কা পিটিয়েছেন ইমরুল। শেষ পর্যন্ত খেলে যান ১৪০ বলে ১৪৪ রানের ঝলমলে ইনিংস। 

একই ওভারে টপ অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ব্যাকফুটে থাকা টাইগারদের ইনিংসের হাল ধরতে ক্রিজে তখন ইমরুল কায়েসের সঙ্গী হলেন মুশফিকুর রহিম। 

ব্যক্তিগত ১৫ রানে মুশফিক মাভুটার শিকার হলেও মোহাম্মদ মিঠুন ছিলেন স্বরুপে। জার্ভিসের কাছে পরাস্ত হবার আগে ৪০ বলে করেছেন ৩৭ রান। টাইগারদের দলীয় রান তখন ১৩৭। কোনো স্কোর যোগ না হতেই বিদায় মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ২ রান পরেই মিরাজ ফিরলে ১৩৯ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। 

তবে একপ্রান্ত আগলে রাখা ইমরুল কায়েসে সেঞ্চুরির সাথে ৮ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামা সাইফুদ্দিনের অর্ধশতকে সম্মানজনক পুঁজি পায় স্বাগতিকরা। নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৭১ রান।জিম্বাবুয়ের পক্ষে জার্ভিস ৪টি, চাতারা ৩টি ও মাভুটা নেন ১টি উইকেট।