• শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:১৪ রাত

মাহমুদুল্লাহ-মিঠুন জুটিতে মেরামত চলছে টাইগারদের ইনিংসের

  • প্রকাশিত ১০:৫৯ সকাল নভেম্বর ১৪, ২০১৮
মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ
ছবি : মো: মানিক/ ঢাকা ট্রিবিউন

মিরপুরে জিম্বাবুয়ের সাথে সিরিজের ২য় ও শেষ টেস্টে ৩য় দিনের সমাপ্তিটা আকাঙ্ক্ষিতই ছিল বাংলাদেশের। তবে ফলো অনের সিদ্ধান্ত টা চতুর্থ দিন সকালের জন্যই তুলে রেখেছিলেন মাহমুদুল্লাহ বাহিনী। নিজেদের ২য় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামাটাই বেশি কার্যকর মনে করেছে টিম টাইগার

ইনিংস মেরামতের চেষ্টায় মাহমুদুল্লাহ-মিঠুন

২৫ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে থাকা বাংলাদেশের হাল ধরেছেন অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ ও মিঠুন। ৩৪ বলে ২৬ রানে মাহমুদুল্লাহ ও ৭২ বলের মুখোমুখি হয়ে ৩৫ রানে খেলছেন এই দুই মিডলঅর্ডার। ২৬ ওভার শেষে আর কোনো উইকেট না হারিয়ে ৮১ রানে বাংলাদেশ। মোট ২৯৯ রানের লিড স্বাগতিকদের। 

তাসের প্রাসাদের মতো ভাঙছে টাইগারদের ইনিংস

আগের ম্যাচে ইতিহাসগড়া দ্বি-শতকের মালিক ফিরলেন ১৯ বলে ৭ রান করে। তিরিপানোর বলকে লেগে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মাভুটার ক্যাচে পরিণত হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। ইনিংসের ১৩ তম ওভারে মাত্র ২৫ রানেই নেই বাংলাদেশের ৪ ব্যাটসম্যান। 

৩৩ বলে ১৫ রানে অপরাজিত আছেন মিঠুন। তার নতুন সঙ্গী টাইগারদের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।  

ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলেননা মুমিনুল

আবারও বড় ধাক্কা টাইগার শিবিরে। কোনো রান যোগ না হতেই আরও একটি উইকেটের পতন। আগের ইনিংসে ১৬১ রানের ছন্দময় ব্যাটিং করা মুমিনুল ফিরলেন ১ রান করেই। তিরিপানোর লাফিয়ে ওঠা বলে আপার কাট করতে গিয়ে কিপারের হাতে ধরা পড়লেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

৩ উইকেট হারিয়ে ১০ রানে স্বাগতিকরা। ক্রিজে মিঠুনের সাথে যোগ দিলেন মি. ডিপেন্ডেবল মুশফিক।

ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে ধরাশায়ী টাইগাররা 

মিরপুরে জিম্বাবুয়ের সাথে সিরিজের ২য় ও শেষ টেস্টে ৩য় দিনের সমাপ্তিটা আকাঙ্ক্ষিতই ছিল বাংলাদেশের। তবে ফলো অনের সিদ্ধান্ত টা চতুর্থ দিন সকালের জন্যই তুলে রেখেছিলেন মাহমুদুল্লাহ বাহিনী। নিজেদের ২য় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামাটাই বেশি কার্যকর মনে করেছে টিম টাইগার। 

তবে ২১৮ রানের লিড নিয়ে ব্যাট শুরু করে দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস (১২ বলে ৩ রান) ও লিটন কুমার দাসকে (১৪ বলে ৬ রান) হারিয়ে আবারও শুরুটা হতাশাব্যঞ্জক টাইগারদের। ১০ রানেই নেই ২ ওপেনার। ক্রিজে মুমিনুলের সাথে আছেন মোহম্মদ মিঠুন।

খেলা শুরুর ৫ম ওভারেই জার্ভিসের বলে মাভুটার তালুবন্দী হোন ইমরুল। এক বল পরেই উইকেট উপড়ে দিয়ে লিটন দাসকেও শিকার করেন এই পেসার।

এর আগে, ১ম ইনিংসে মুশফিকের ডবল সেঞ্চুরিতে ৩ উইকেট হাতে থাকতেই ৫২২ রানে ইনিংস ঘোষণা করেন টাইগার অধিনায়ক। জবাবে ৩য় দিনের ৩০৪ রানে ৯ উইকেট হারিয়ে দিন শেষ করে সফরকারীরা। তবে ইনিজুরির কারণে তেন্ডাই চাতারা ব্যাটিং না করার সিদ্ধান্ত জানালে ওই রানেই ফলো অনে পড়ে জিম্বাবুয়ে।