• বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৯ রাত

উইকেটকে 'খেলার অসাধ্য' মনে করেননি সাকিব

  • প্রকাশিত ১১:৩৮ রাত নভেম্বর ২৪, ২০১৮
চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেট
চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেট। ছবি: মো: মানিক/ ঢাকা ট্রিবিউন

শনিবার ম্যাচ শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেন, “আমি এই উইকেটকে খেলার অসাধ্য বলবো না। কারণ যদি তাই হতো, তাহলে ৯ম উইকেট জুটিতে গিয়ে ৫০-৬০ রানের পার্টনারশিপ করা সম্ভব হতো না। সুতরাং, এটা কোনো মতেই খেলার অসাধ্য ছিল না।”

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১ম টেস্ট ম্যাচ আড়াই দিনে শেষ হয়ে গেলেও চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেটকে “খেলার অসাধ্য” বলে মনে করেন না বাংলাদেশ টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। 

চট্টগ্রাম টেস্টের ১ম দিনেই ৮ উইকেটের পতন হয়েছিলো। আর ২য় দিনে ২ দলের মিলিয়ে পতন হয়েছে ১৭ উইকেট। পুরো ম্যাচের ৪ ইনিংস মিলিয়ে মোট ৪০ উইকেটের বাকি ১৫ টি ৩য় দিনের ১ম ও ২য় সেশনে। 

তবে টাইগার অধিনায়ক মনে করেন এই উইকেট “খেলার অসাধ্য” ছিলনা। কারণ হিসেবে তিনি দেখিয়েছেন দুই পক্ষের টেলএন্ডার ব্যাটসম্যানদের ৫০ এর বেশি পার্টনারশিপকে।

১ম দিনের শেষ সেশন আর ২য় দিনের শুরু মিলিয়ে ৯ম উইকেট জুটিতে তাইজুল-নাঈম ৬৫ রানের পার্টনারশিপ গড়েছিলো। আর ক্যারিবিয়ানদের পক্ষে সুনীল অ্যাম্ব্রিস ও জোমেল ওয়ারিক্যান গড়েছেন ৬৩ রানের পার্টনারশিপ। যার মধ্যে ওয়ারিক্যান একাই ৫৫ বলে খেলেছেন ৪১ রানের দাপুটে ইনিংস।

শনিবার ম্যাচ শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেন, “আমি এই উইকেটকে খেলার অসাধ্য বলবো না। কারণ যদি তাই হতো, তাহলে ৯ম উইকেট জুটিতে গিয়ে ৫০-৬০ রানের পার্টনারশিপ করা সম্ভব হতো না। সুতরাং, এটা কোনো মতেই খেলার অসাধ্য ছিল না।”

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের ১ম টেস্টে ৬৪ রানের জয়ে ১-০’তে এগিয়ে আছে স্বাগতিকরা। দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এটি বাংলাদেশের ১ম টেস্ট জয়।

২য় ও শেষ টেস্ট ম্যাচ আগামী শুক্রবার ঢাকার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মাঠে গড়াবে।