• শুক্রবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৪ সকাল

পাপন: সাকিবকে ছাড় দেওয়ার প্রশ্নই আসে না

  • প্রকাশিত ০৯:০২ রাত অক্টোবর ২৬, ২০১৯
নাজমুল হাসান পাপন
বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। ফাইল ছবি।

সাকিব গ্রামীণফোনের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) চুক্তি করেন

দেশের শীর্ষস্থানীয় টেলিকম কোম্পানি গ্রামীণফোনের সঙ্গে চুক্তি করায় সাকিব আল হাসানকে কোনো প্রকার ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডর (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। 

শনিবার (২৬ অক্টোবর) বিকেলে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন বিসিবি প্রধান। 

এর আগে খেলোয়াড়দের বেতন-ভাতাসহ বিভিন্ন সুবিধার দাবীতে ধর্মঘটের নেতৃত্ব দেওয়া সাকিব গ্রামীণফোনের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) চুক্তি করেন।

বিসিবি সভাপতি জানান, বোর্ডের কাছ থেকে অনুমতি না নিয়ে চুক্তি করায় বোর্ডের নিয়ম ভঙ্গ করেছেন দেশ সেরা এ অলরাউন্ডার। তবে আত্মপক্ষ সমর্থন করার জন্য প্রথমে সাকিবকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হবে বলেও জানান জানান।

"বোর্ডের নিয়মানুযায়ী তিনি (সাকিব) কোনোভাবেই এটা করতে পারেন না" উল্লেখ করে পাপন বলেন, "এবিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। সব খেলোয়াড় এবং টেলিকম কোম্পানিটিও এবিষয়ে জানে। এবিষয়ে খেলোয়াড়দের সঙ্গে আমাদের একটা চুক্তি আছে। কিন্তু তারপরও সে এটা কেন করল, প্রথম আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য তাকে আমাদের একটা সুযোগ দিতে হবে। যে কারণে আমরা তাকে একটা চিঠি দিচ্ছি। তবে এটা একদম পরিষ্কার যে সে কোনোভাবেই এটা করতে পারে না এবং এটা সম্পূর্ণ অবৈধ।"

সাকিবের কাছ থেকে কারণ দর্শাও নোটিশের জবাব পাওয়ার পর বিসিবি পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে বলে জানান পাপন।

দোষী সাব্যস্ত হলে সাকিবকে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না বলে জানিয়ে দেন বিসিবি সভাপতি।

এর আগে পাপন বলেন, "আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছি। কাউকে ছাড় দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। কোম্পানি (গ্রামীণফোন) ও খেলোয়াড় উভয়ের কাছ থেকে আমরা ক্ষতিপূরণ চাইব।"

২০১২ সালে বিসিবি সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার দুইবছর পর পাপনের নেতৃত্বাধীন বোর্ড সাকিবকে সবধরনের ক্রিকেট থেকে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল। ২০১৫ সালের শেষ দিকের আগ পর্যন্ত বিদেশি কোনো প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে তাকে অনাপত্তি পত্র দেয়নি বিসিবি। বাংলাদেশ দলের তৎকালীন কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে "দুর্ব্যবহার এবং মিরপুরে ভারতের বিপক্ষে একটি ওয়ানডে ম্যাচে এক দর্শকের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়ায়" সাকিবকে এই শাস্তি দেওয়া হয়েছিল।