• বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ০২, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৩১ সন্ধ্যা

মুশফিক: দেশীয় ক্রিকেটের অনেক বড় মঞ্চ বিপিএল

  • প্রকাশিত ০১:১৭ দুপুর ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
বঙ্গবন্ধু বিপিএল- লোগো
বঙ্গবন্ধু বিপিএল এর লোগো। সংগৃহীত

‘বিপিএল এমন একটা টুর্নামেন্ট যেখানে অনেক তরুণ খেলোয়াড় উঠে আসে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য এটি অনেক বড় একটি টুর্নামেন্ট’

বিপিএল ছাড়া দেশে টি-টোয়েন্টির কোনো বড় টুর্নামেন্ট নেই। সাকিব বাদে দেশের অন্য ক্রিকেটাররা পান না বাইরের দেশ গুলোর ফ্রাঞ্চাইজি ভিত্তিক টুর্নামেন্ট খেলার সুযোগ। তামিম, মুশফিক, রিয়াদ, মুস্তাফিজরা সুযোগ পেলেও সেটা আবার অনিয়মিত। তাইতো দেশীয় ক্রিকেটারদের প্রমাণের জায়গা এবং শেখার মঞ্চ বিপিএল, এমনটাই মনে করছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের মিস্টার ডিপেন্ডেবল খ্যাত উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম।

বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) বঙ্গবন্ধু বিপিএল'র দ্বিতীয়দিনে মাঠে নামছে মুশফিকের খুলনা টাইগার্স। সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটে মুখোমুখি হবে উদ্বোধনী ম্যাচে জয় দিয়ে শুরু করা চট্টগ্রাম চ্যালাঞ্জারসের। ম্যাচ পূর্ববর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন মুশফিকুর।

বিপিএল তরুণ ক্রিকেটারদের জন্য বড় সুযোগ উল্লেখ করে মুশফিক বলেন, “বিপিএল এমন একটা টুর্নামেন্ট যেখানে অনেক তরুণ খেলোয়াড় উঠে আসে। বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য এটি অনেক বড় একটি টুর্নামেন্ট। যারা এস এ গেমসে ছিলেন তারাও খেলার মধ্যে ছিলেন। আশা করি মানিয়ে নিতে সমস্যা হবে না। সবাই এখন একসঙ্গে অনুশীলন করছে। আমাদের টিমের তিনজন ছিল এসএ গেমসে। তারা তো কম্পিটিভ ক্রিকেট খেলেছে। যারা টিমে সুযোগ পাবে অবশ্যই ভাল করবার চেষ্টা করবে। আমাদের এমন কেউ নেই যে, একাই জিতিয়ে দিতে পারবে। তাই পুরো টিম হিসেবে ভাল খেলার দিকে বেশি ফোকাস থাকবে। সবাই মিল সমষ্টিগত পারফরমেন্স করতে হবে।”

দল নিয়ে নিজের প্রত্যাশার কথা জানিয়ে খুলনা টাইগার্সের অধিনায়ক মুশফিক বলেন,  “আমি মনে করি কৃতিত্ব পুরোটাই আমার টিম ডিরেক্টর ও এখানে যারা জড়িত ছিলেন, তাদের পাওয়া উচিত। কারণ খুব ভালো একটা দল আমাদের দিয়েছেন তারা। হয়তো বড় বড় নাম নাই কিন্তু যারা আছেন তারা টি-টোয়েন্টির জন্য খুবই ভালো খেলোয়াড়। এমনকি তারা গত বিপিএলগুলোতেও ভালো করেছেন। ফ্রাইলিংক আছেন, রাইলি রুশো আছেন, আমাদের যারা স্থানীয় আছে শফিউল, বিপ্লব, মিরাজ, শান্ত। ইনশাল্লাহ আমরা অনেক ভালো দল আর টি-টোয়েন্টিতে নিজেদের দিনে যারা ভালো করবে কাগজে-কলমের থেকে তারা বেশি এগিয়ে থাকবে।”

অধিনায়ক ইমরুল কায়েসের ৬১ রানের ঝলমলে ইনিংস ও ওয়ালটনের অপরাজিত ৪৯ রানে ভর করে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সিলেট থান্ডারকে এক ওভার বাকি থাকতেই ৫ উইকেটে হারিয়েছে চট্টগ্রাম। প্রথম ম্যাচ হেসে-খেলে জিতলেও তাদের সামনে আজকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে প্রস্তুত খুলনা টাইগার্স।