• মঙ্গলবার, জুলাই ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:২৪ রাত

আগে থেকে চালু সিম বিক্রি করলে জরিমানা পাঁচ হাজার টাকা

  • প্রকাশিত ০৯:৪০ রাত এপ্রিল ২, ২০১৯
সিম
প্রতীকী ছবি বিগস্টক

বিটিআরসি আরও জানায়, বায়োমেট্রিক ডিভাইসের মাধ্যমে সংগৃহীত তথ্য সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন প্ল্যাটফর্ম এবং অপারেটরের সিম বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন প্ল্যাটফর্ম ছাড়া অন্য কোনও ডিভাইস বা প্ল্যাটফর্মে সংরক্ষণ করা যাবে না।

বায়োমেট্রিক নিবন্ধন ছাড়া মোবাইল সিম বিক্রি, নিবন্ধনের সময় অসত্য তথ্য প্রদান এবং প্রি-অ্যাক্টিভেটেড (আগে থেকে চালু করা) সিম বিক্রি করা হলে প্রতিটি সিমের জন্য অপারেটরকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

সম্প্রতি এ বিষয়ে একটি নির্দেশনাও মোবাইল ফোন অপারেটরদের পাঠিয়েছে বিটিআরসি।

২০১৫ সালের বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন সিস্টেম সম্পর্কিত নির্দেশনা অনুযায়ী, ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে নিবন্ধন ছাড়া কোনও সিম ‘অ্যাক্টিভেশন, রি-অ্যাক্টিভেশন, ডি-অ্যাক্টিভেশন, প্রতিস্থাপন বা মালিকানা পরিবর্তন’ করা যাবে না বলে ওই নির্দেশনায় বলা হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়, কোনও অবস্থাতেই ‘অসত্য বা মিথ্যা’ তথ্য দিয়ে সিম বা রিম নিবন্ধন করা যাবে না এবং যথাযথ বায়োমেট্রিক নিবন্ধন ছাড়া কোনও সিম বিক্রি করা যাবে না।

কারিগরি ত্রুটির কারণে ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করা না গেলে গ্রাহকের প্রয়োজনীয় তথ্য সংরক্ষণ করে তাকে নিষ্ক্রিয় সিম দেওয়া যাবে। পরে ‘যথাযথভাবে’ বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন শেষ করে ওই সিম বা রিমের অ্যাক্টিভেশন, রি-অ্যাক্টিভেশন, ডি- অ্যাক্টিভেশন, প্রতিস্থাপন বা মালিকানা পরিবর্তন করা যেতে পারে বলে চিঠিতে জানায় বিটিআরসি।

বিটিআরসি আরও জানায়, বায়োমেট্রিক ডিভাইসের মাধ্যমে সংগৃহীত তথ্য সেন্ট্রাল বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন প্ল্যাটফর্ম এবং অপারেটরের সিম বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন প্ল্যাটফর্ম ছাড়া অন্য কোনও ডিভাইস বা প্ল্যাটফর্মে সংরক্ষণ করা যাবে না।

এ নির্দেশনার লঙ্ঘন হলে, বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশনের কোনও স্তরে আঙুলের ছাপ বা বায়োমেট্রিক তথ্য সংগ্রহের পর তা সংরক্ষণ করা হলে অথবা বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সংরক্ষিত তথ্যের অপব্যবহার হলে তার সকল দায়-দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে বহন করতে হবে বলে সতর্ক করেছে বিটিআরসি।

বিটিআরসির নির্দেশনা অনুযায়ী, কোনও অবস্থাতেই প্রি-অ্যাক্টিভেটেড সিম বা রিম ব্যবহার, বিতরণ, পরিবেশন, কেনা-বেচা বা বিক্রির জন্য প্রদর্শন করা যাবে না।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইনের বিধান অনুযায়ী অপারেটরের লাইসেন্স বাতিলসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও সতর্কতা জারি করেছে বিটিআরসি।

প্রসঙ্গত, বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধনের নিয়ম চালু হওয়ার পর থেকে আর আঙুলের ছাপ না দিয়ে নতুন সিম কেনা বা আগে থেকেই নিবন্ধিত বা চালু সিম কিনতে পাওয়ার কথা নয়। তারপরও বিভিন্ন সময়ে জালিয়াতির মাধ্যমে সিমের নিবন্ধন এবং অনিবন্ধিত চালু সিম উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছে। সেসব ঘটনায় মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরের কর্মীদেরও জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেছে।   

এ ধরনের সিম ব্যবহার করে বিভিন্ন অপরাধমূলক বা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালানোর খবরও পাওয়া গেছে বিভিন্ন সময়ে।