• বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০১ রাত

জিপি ও রবির থ্রি-জি লাইসেন্স কেন বাতিল হবে না জানতে চেয়েছে বিটিআরসি

  • প্রকাশিত ০৭:৫৩ রাত সেপ্টেম্বর ৫, ২০১৯
বিটিআরসি

বিটিআরসি ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের গ্রামীণফোনের কাছে ১২ হাজার ৫৭৮.৯৫ কোটি টাকা এবং রবির কাছে ৮৬৭.২৩ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে

পাওনা বকেয়া পরিশোধ না করায় মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন (জিপি) ও রবির টু-জি ও থ্রি-জি লাইসেন্স কেন বাতিল করা হবে না, জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইন ২০০১ এর ৪৬(২) ধারা মোতাবেক দুই অপারেটরকে আগামী ৩০ দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিটিআরসির সিনিয়র সহকারী পরিচালক জাকির হেসেন খান এ তথ্য জানিয়েছেন বলে ইউএনবি'র একটি খবরে বলা হয়।

তিনি বলেন, "উল্লেখিত সময়ের মধ্যে নোটিশের জবাবে বিটিআরসি সন্তুষ্ট না হলে আইন অনুযায়ী তাদের লাইসেন্স বাতিলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।"

বিটিআরসি কর্মকর্তা জাকির জানান, বিটিআরসি ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) গ্রামীণফোনের কাছে ১২ হাজার ৫৭৮.৯৫ কোটি টাকা এবং রবির কাছে ৮৬৭.২৩ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, বকেয়া পরিশোধ না করায় সম্প্রতি বিটিআরসি গ্রামীণফোন ও রবির এনওসি দেয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এর আগেও এ দুই অপারেটরের ইন্টারনেট ডাটা সীমিত করেছিল বিটিআরসি, পরে আবার সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে তারা।