• রবিবার, মার্চ ২৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৭ রাত

জীবন থেকে গুগলকে আলাদা করা কি আদৌ সম্ভব?

  • প্রকাশিত ০৯:২৭ রাত ডিসেম্বর ৩১, ২০১৯
গুগল সার্চ-ইন্টারনেট
প্রতীকী ছবি/পেক্সেলস

সত্যি বলতে আমরা গুগল সার্চের ওপর এতটাই নির্ভরশীল যে, অনেকেই গুগল ছাড়া আর কোনো সার্চ ইঞ্জিন চেনেনই না

অনলাইনে ব্যক্তিগত তথ্যের নিরাপত্তা নিয়ে শংকা অথবা অন্য কোনো কারণে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগলের সার্ভিসগুলো ব্যবহার থেকে চিরতরে বিরত থাকা কিংবা সার্ভিসগুলোকে অনলাইন লাইফ থেকে একেবারে সরিয়ে ফেলতে চান? আপনার হয়ত জানা নেই, বিষয়টি অর্থাৎ অনলাইন লাইফ থেকে গুগলকে মুছে দেওয়া প্রায় অসম্ভব?

বিষয়টি পরিষ্কার হওয়া যাক-

গুগল সার্চ রিপ্লেসমেন্ট

চাইলে আপনি নিজের গুগল অ্যাকাউন্টটি ডিলিট করে দিতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে প্রথমেই সমস্যায় পড়তে হবে গুগল সার্চ ইঞ্জিনের একটি রিপ্লেসমেন্ট খোঁজা নিয়ে। কারণ গুগলের সার্চ ইঞ্জিনটি হচ্ছে এখনও পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির প্রধান এবং সবথেকে বেশি ব্যবহৃত সার্ভিস। সত্যি বলতে আমরা গুগল সার্চের ওপর এতটাই নির্ভরশীল যে, অনেকেই গুগল ছাড়া আর কোনো সার্চ ইঞ্জিন চেনেনই না! গুগল সার্চের রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে যদি কিছু ব্যবহারই করতে হয়, তবে গুগলের রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে সবথেকে কাছাকাছি যে সার্চ ইঞ্জিনটি আসতে পারে তা হচ্ছে “ডাকডাকগো” (DuckDuckGo)। এই সার্চ ইঞ্জিনটি নিজেকে নিজেই “গুগল-বিরোধী” হিসেবে ঘোষণা করেছে।

গুগল ক্রোম রিপ্লেসমেন্ট

এটিও একটি কঠিন সিদ্ধান্ত। এই ইন্টারনেট ব্রাউজার সম্পর্কে নতুন করে বলার কিছু নেই। বেশিরভাগ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী পিসি এবং স্মার্টফোন দুই জায়গাতেই গুগল ক্রোমকে ডিফল্ট বা প্রধান ব্রাউজার হিসেবে ব্যবহার করে থাকেন। অনেকের ক্ষেত্রে ভালো না লাগলেও ক্রোমকে বাদ দিতে পারেন না এর সহজ ইউআই, গুগলের সঙ্গে ডিপ ইন্টিগ্রেশন এবং অভ্যাসের কারণে। এর চেয়ে অনেক ভালো ব্রাউজার তৈরি হলেও অধিকাংশ ইউজার অভ্যাসের কারনে একে বাদ দিতে পারেন না।

জিমেইল রিপ্লেসমেন্ট

আজকাল এমন অবস্থা দাঁড়িয়েছে যে, কেউ ই-মেইল অ্যাড্রেস হিসেবে গুগলের জিমেইল অ্যাড্রেসের পরিবর্তে অন্য কোনো সার্ভিসের মেইল আইডি ব্যবহার করছে শুনলে একটু অবাকই হতে হয়। এর প্রভাব এমনই যে, জিমেইল ছাড়া অন্য কোনো ই-মেইল অ্যাড্রেস অধিকাংশ মানুষের কাছেই “স্ট্যান্ডার্ড” মনে হয় না। জিমেইলের ওপর এই ব্যাপক নির্ভরশীলতার কারণ হচ্ছে গুগলের অন্যান্য সার্ভিস যেমন- গুগল কিপ, ক্যালেন্ডার ইত্যাদির সঙ্গে জিমেইলের অঙ্গাঅঙ্গি জড়িত থাকার বিষয়টি।

ইউটিউব রিপ্লেসমেন্ট

এটা আপনি পারবেন না। সত্যিকারার্থেই ইউটিউবের মতো ভালো এবং এত বড় কোনো ভিডিও প্ল্যাটফর্ম আর একটিও নেই। দর্শকের কথা তো বাদ দিলেও একজন নির্মাতার ভিডিও পাবলিশ করার জন্য ইউটিউবের চেয়ে উপযোগী কোনো প্ল্যাটফর্ম আর নেই। দর্শক, আয় কিংবা জনপ্রিয়তা কোনো দিক থেকেই ভিডিওর ক্ষেত্রে ইউটিউবের ধারে-কাছেও কেউ নেই।

আর এসব ছাড়াও গুগলের রয়েছে ম্যাপস, ডকুমেন্টসসহ শতাধিক সেবা। যা জড়িয়ে আছে আমাদের অনলাইনে ওতপ্রোতভাবে। তাই চাইলেও গুগলকে জীবন থেকে বাদ দেওয়া কি সম্ভব?