Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

টুইটার কিনেই তিন শীর্ষ কর্মকর্তাকে ছাঁটাই করলেন ইলন মাস্ক

টুইটারের প্রধান নির্বাহী পরাগ আগরওয়াল, প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা সেগাল এবং টুইটারের আইনি নীতি, বিশ্বাস ও নিরাপত্তার প্রধান বিজয়া গাড্ডেকে বরখাস্ত করেছেন ইলন মাস্ক

আপডেট : ২৮ অক্টোবর ২০২২, ০৯:৫৪ এএম

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটার কেনা নিয়ে দীর্ঘ এক নাটকীয়তা তৈরি হয়েছিল। ইলন মাস্কের বিরুদ্ধে এ নিয়ে মামলা হয়েছে। সেই মামলার দফারফা হওয়ার আগেই প্রতিষ্ঠানটি কেনার পথে অনেক দূর এগিয়ে গেছেন তিনি। টুইটার হ্যান্ডেলে নিজের পরিচয় বদলেছেন। নিজের প্রোফাইলে লিখেছেন “চিফ টুইট”।

বিশ্বের শীর্ষ ধনী যুক্তরাষ্ট্রের ইলেকট্রনিক গাড়ি নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান টেসলার প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্ক অবশেষে চার হাজার চারশো কোটি (৪৪ বিলিয়ন) মার্কিন ডলারে টুইটার কিনে নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

টুইটার কেনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই প্রতিষ্ঠানটির তিন শীর্ষ কর্মকর্তাকে ছাঁটাই করার কথা জানালেন ইলন মাস্ক। বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) একাধিক সূত্রের বরাতে ওয়াশিংটন পোস্ট জানায়, টুইটারের প্রধান নির্বাহী পরাগ আগরওয়াল, প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা সেগাল এবং টুইটারের আইনি নীতি, বিশ্বাস ও নিরাপত্তার প্রধান বিজয়া গাড্ডেকে বরখাস্ত করেছেন তিনি।

টুইটারের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিজ স্টোন ব্যবসায় ব্যাপকভাবে অবদানের জন্য এই তিন কর্মকর্তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

অবশ্য টুইটার কেনার চুক্তি সম্পন্ন হলে কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে মাস্কের হাঁটার পরিকল্পনা আগেই প্রকাশ পায়। এমনকি ঠিক কী পরিমাণ কর্মী ছাটাই হবে সেটিও প্রকাশ হয়। চলতি অক্টোবর মাসের তৃতীয় সপ্তাহে প্রভাবশালী মার্কিন সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট জানায়, মালিকানা নেওয়ার পর টুইটারের প্রায় ৭৫% কর্মীকে ছাঁটাই করার পরিকল্পনা করেছেন ইলন।

ওয়াশিংটন পোস্টের ওই প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, টুইটারের মালিকানা যার হাতেই থাকুক না কেন, আগামী কয়েক মাসেই কর্মী ছাঁটাই করা হতে পারে। যদিও সংস্থাটির মানবসম্পদ বিভাগের এক কর্মী সেসময় আশ্বস্ত করেন, এখনই গণহারে কর্মী ছাঁটাই করার কোনো পরিকল্পনা নেই।

কিন্তু ওয়াশিংটন পোস্ট দাবি করেছিল, পরিকাঠামো খাতে খরচ কমাতে কর্মী ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনা মাস্কের টুইটার কেনার প্রস্তাব দেওয়ার অনেক আগেই করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, চলতি বছর এপ্রিলে রেকর্ড ৪৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে টুইটার কিনে নেওয়ার ঘোষণা করেছিলেন ইলন মাস্ক। এরপরে নিজের সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে আসেন মাস্ক। সেসময় তিনি জানিয়েছিলেন, অনুমানের থেকে টুইটারে বটের বা ভুয়া অ্যাকাউন্টের সংখ্যা কয়েক গুণ বেশি হওয়ার কারণেই সংস্থাটি কেনার এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসা।

অবশেষে নানা নাটকীয়তারে মধ্য দিয়ে টুইটার কেনার কথা জানান ইলন। বৃহস্পতিবার এক টুইট বার্তায় ইলন মাস্ক বলেন, এই প্ল্যাটফর্মে অর্থ উপার্জনই আগ্রহের বিষয় নয়। তিনি বলেন, “সহজ হবে বলে আমি এটা করিনি। আরও টাকা উপার্জনের জন্যও এটা করিনি। আমি মানবতাকে সাহায্য করার জন্য কাজটি করেছি, যাকে আমি ভালোবাসি।”

About

Popular Links