Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রথমবারের মতো বুলিং ও হয়রানির হিসাব দিল ফেসবুক

ফেসবুকের প্রতি ১০ হাজার ভিউতে ১৪ থেকে ১৫ বার হয়রানিমূলক বিষয়বস্তু পাওয়া গেছে

আপডেট : ১১ নভেম্বর ২০২১, ১২:৫৮ এএম

প্রথমবারের মতো ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের প্ল্যাটফর্মে বুলিং ও হয়রানির ব্যাপকতা কতটুকু তা প্রকাশ করেছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) এক বিবৃতিতে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এ বছরের তৃতীয় ত্রৈমাসিকে ফেসবুকের প্রতি ১০ হাজার কন্টেন্টের মধ্যে ১৪ থেকে ১৫ বার হয়রানিমূলক বিষয়বস্তু পাওয়া গেছে।

সম্প্রতি নাম পরিবর্তন করে “মেটা”-তে পরিবর্তিত হওয়া প্রতিষ্ঠানটি আরও বলেছে, ইনস্টাগ্রামে প্রতি ১০ হাজার কন্টেন্ট ভিউতে ৫ থেকে ৬ বার উষ্কানি, বুলিং ও হয়রানিমূলক বিষয়বস্তু লক্ষ্য করা গেছে।

এই সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট নিজেদের সেবার অপব্যবহারের জন্য দীর্ঘদিন ধরেই সমালোচনার মুখে রয়েছে। এমনকি ফেসবুকের সাবেক কর্মচারী ফ্রান্সিস হাউগেন কিছু অভ্যন্তরীণ নথি ফাঁস করার পর প্রতিষ্ঠানটি তদন্তের সম্মুখীনও হয়েছে।

হাউগেন বলেছেন, “ফেসবুক তার ব্যবহারকারীদের সুরক্ষার চেয়ে মুনাফাকে প্রাধান্য দেয়।” যদিও ফেসবুক এই অভিযোগের বিরোধিতা করেছে।

ফেসবুকের মতে, তারা বুলিং এবং হয়রানির নিয়ম ভঙ্গ করার জন্য সরিয়ে ফেলা ৯২ লাখ বিষয়বস্তুর মধ্যে ৫৯.৪% বিষয়বস্তু সক্রিয়ভাবে খুঁজে পেয়েছে।

ফেসবুকের গ্লোবাল হেড অব সেফটি অ্যান্টিগোন ডেভিস এবং প্রোডাক্ট ম্যানেজমেন্ট ডিরেক্টর অমিত ভট্টাচার্য এক ব্লগ পোস্টে বলেছেন, “উৎপীড়ন (বুলিং) এবং হয়রানি একটি অনন্য চ্যালেঞ্জ এবং এটি মোকাবিলা করা সবচেয়ে জটিল সমস্যাগুলোর একটি।”

About

Popular Links