Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দুই জেলায় বজ্রপাতে পাঁচজনের মৃত্যু

বজ্রপাতে কক্সবাজারে দুইজন ও রাঙ্গামাটি জেলায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে

আপডেট : ০২ মে ২০২৪, ০২:২৬ পিএম

কক্সবাজার ও রাঙ্গামাটি জেলায় বজ্রপাতের ঘটনায় পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২ মে) সকালে কক্সবাজারের পেকুয়ার মগনামা ও রাজাবালী ইউনিয়নে পৃথক ঘটনায় দুই লবন শ্রমিকের মৃত্যু হয়। বৃষ্টির মধ্যে লবনের মাঠে লবন তুলতে গিয়েছিলেন তারা।

নিহতরা হলেন উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কোদাইল্যাদিয়া এলাকার দিদারুল ইসলাম (৩০) ও রাজাখালী ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ছরিপাড়া এলাকার জামাল উদ্দিনের ছেলে মো. আরফাত (১২)। 

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার ভোরে বৃষ্টি শুরু হলে ওই দুই শ্রমিক লবণ তুলতে মাঠে ছুটে যান। এসময় আকাশে ঘন ঘন বজ্রপাত হচ্ছিল। বৃষ্টির মধ্যেই সকালে লবন মাঠে বজ্রপাতে তাদের মৃত্যু হয়।

ঘটনার পর স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন।

পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মুজিবুর রহমান বলেন, “হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই ওই দুই লবন শ্রমিকের মৃত্যু হয়। বজ্রপাতেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।”

এদিকে, রাঙ্গামাটিতে পৃথক তিন স্থানে বজ্রপাতে তিন ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে জেলা শহরের তবলছড়ির সিলেটি পাড়া, বাঘাইছড়ি উপজেলার রুপকারী ইউনিয়নের মুসলিম বক্ল এলাকা এবং সাজেকের বেটলিং মৌজার তুইছুই এলাকায় বজ্রপাতে তিনজনের মৃত্যু হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সকালে ঝড়ো হাওয়াসহ বজ্রপাতের সময় বাঘাইছড়ি উপজেলার রুপকারী ইউনিয়নের মুসলিম ব্লক এলাকার বাসিন্দা বাহারজান (৬০) ঘরের বাইরে অবস্থান করছিলেন। এসময় আকস্মিক বজ্রপাতে তার মৃত্যু হয়।

এদিকে, বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইশতিয়াক আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

একই সময় বজ্রপাতে রাঙ্গামাটি শহরের তবলছড়ির সিলেটি পাড়ায় মো. নাজির হোসেন (৫০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। এসময় তিনি ঘরের কাজ করছিলেন বলে জানা গেছে।

রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক মো. শওকত আকবর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নিহত নাজির হোসেনের মরদেহ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এছাড়া, সাজেকের বেটলিং মৌজার তুইছুই এলাকায় বজ্রপাতে থুইবালা ত্রিপুরা (৩৭) নামে এক নারী মারা গেছেন। সাজেক ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান অতুলাল চাকমা জানান, বজ্রপাতে এক নারী মারা গেছে। বজ্রপাতের সময় তিনি পাহাড়ের জুমঘরে অবস্থান করছিলেন।

About

Popular Links