Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ইউটিউব ভিডিও স্ক্রিপ্ট রাইটিংকে পেশা হিসেবে নিতে চাইলে জানতে হবে যা কিছু

বর্তমান সময়ে ইউটিউবের জন্য লেখালেখি পরিণত হয়েছে স্বতন্ত্র এক পেশায়

আপডেট : ১৬ আগস্ট ২০২৩, ০৩:৫৬ পিএম

বর্তমান বিশ্বে বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম ইউটিউব। শুধু বিনোদন নয়, তথ্য নির্ভর বিভিন্ন ভিডিওর জন্যও জনপ্রিয় এই প্ল্যাটফর্মটি।

প্রযুক্তির সহজলভ্যতার এই যুগে তথ্য পরিণত হয়েছে পণ্যে। আর তাই শাখা-প্রশাখা বিস্তার করেছে ভিডিও শেয়ারিং সাইট ইউটিউব কেন্দ্রিক পেশাগুলো।

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় কন্টেন্ট ভিডিও, আর এর প্রধান কাঁচামালের যোগান দেয় স্ক্রিপ্ট রাইটাররা। নিজের ইউটিউব চ্যানেলের পাশাপাশি অনেকেই অন্যের ইউটিউব চ্যানেলের জন্য স্ক্রিপ্ট লিখে থাকেন। সঙ্গত কারণেই এগুলোর জন্য স্ক্রিপ্ট রাইটারদের চাহিদা বাড়ছে। তাই শুধুমাত্র ইউটিউবের জন্য লেখালেখিই পরিণত হয়েছে স্বতন্ত্র এক পেশায়।

নিউজ ও পাবলিশিং কোম্পানি, তথ্যচিত্র নির্মাতা, ব্লগার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো নিজেদের ব্র্যান্ড প্রোমোশনের জন্য তৈরি করছে ইউটিউব চ্যানেল। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে যাচ্ছে পান্ডুলিপি লেখকদের চাহিদা।

তবে এই স্ক্রিপ্ট লেখার জন্যও প্রয়োজন কিছু দক্ষতার। চলুন জেনে নেওয়া যাক সে সম্পর্কে-

স্ক্রিপ্ট রাইটিং কী

স্ক্রিপ্ট রাইটিং বা পান্ডুলিপি লিখন হলো ভিডিওর মাধ্যমে দেখানোর জন্য নির্ধারিত তথ্যগুলো নির্দিষ্ট নিয়মে লেখা। প্রতিটি দৃশ্যে ক্রমান্বয়ে যা যা দেখানো, শোনানো এবং বোঝানো হবে, তার সামগ্রিক লিখিত রূপ হচ্ছে স্ক্রিপ্ট।

পাঠ্য, স্থির চিত্র, ও চলচ্চিত্রসহ যাবতীয় কন্টেন্টের সংমিশ্রণ স্পষ্টভাবে লেখা হয় এতে। মুলত ছকে বাঁধা লেখাগুলো অনুসরণ করেই চূড়ান্তভাবে নির্মাণ করা হয় কন্টেন্ট।

এর আরেক নাম চিত্রনাট্য বা স্ক্রিনরাইটিং, যেটা সাধারণত মুভি বা মঞ্চ নাটকের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

ভিডিও স্ক্রিপ্টের তথ্যের উপস্থিতি

ইউটিউব ভিডিও তথ্য নির্ভর হওয়া জরুরি। তাই স্ক্রিপ্ট লেখার আগে বিষয়বস্তু সম্পর্কে প্রাসঙ্গিক তথ্য সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। প্রয়োজন অনুযায়ী স্ক্রিপ্টে তুলে ধরতে হবে।

গুছিয়ে কথা বলা

মনে রাখবেন, ইউটিউবে মানুষ শুধু ভিডিও দেখে না, শোনেও। তাই ইউটিউবের ধারাভাষ্য গোছানো হওয়া জরুরি। আর এই কাজটি স্ক্রিপ্ট রাইটারদের। ভালো স্ক্রিপ্ট রাইটার হতে হলে অতিরিক্ত কথা বলার চেয়ে সংক্ষেপে প্রয়োজনীয় কথা তুলে ধরা জরুরি।

সময়

একটি সুন্দুর স্ক্রিপ্টে প্রতিটি দৃশ্যে নির্ধারিত কথাগুলো বলার জন্য সময় নির্দিষ্ট করা থাকে। প্রতিটি দৃশ্যর জন্য কতটুকু সময় থাকবে, এই সময়ে কতটুকু তথ্য তুলে ধরা যায় এটি স্ক্রিপ্ট রাইটারের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা।

ধারাবাহিকতা

যেকোনো কন্টেন্টের ক্ষেত্রেই একটি সুস্পষ্ট কাঠামো তার গুণগত মান বৃদ্ধির পরিচায়ক। ভিডিওর ক্ষেত্রেও এর স্ক্রিপ্ট বিভিন্ন ফুটেজ, শব্দ, স্থিরচিত্র, ও স্পেশাল ইফেক্ট সহ প্রতিটি বিষয়ের মধ্যে সামঞ্জস্যপূর্ণতা নিশ্চিত করে।

সৃজনশীলতা

সৃজনশীলতা হলো সম্পূর্ণ অভিনব ধারণার অবতারণা করা। অন্যান্য চ্যানেলের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় প্রত্যেক চ্যানেল মালিকের নতুন নতুন কন্টেন্ট বানানোর প্রবণতা থাকে। নতুন ধারণা প্রবর্তনের ক্ষেত্রে স্ক্রিপ্ট রাইটারদের খেয়াল রাখতে হবে যে, বিষয়বস্তু দর্শকদের মনোযোগ আকর্ষণ করতে পারছে কি-না। প্রকৃতপক্ষে, এই চিত্তাকর্ষণের জায়গাতেও তাদেরকে সৃজনশীল হতে হবে।

গবেষণা ও বিশ্লেষণ

তথ্য হচ্ছে স্ক্রিপ্টের মুল জীবনী শক্তি। তাই লেখকদের সংশ্লিষ্ট বিষয় সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে বিশ্লেষণী ক্ষমতা কাজে লাগাতে হবে। তথ্যের নির্ভরযোগ্য উৎস খুঁজে বের করা, অতঃপর সেই তথ্যের পুঙ্ক্ষানুপুঙ্ক্ষ যাচাইও এই দক্ষতার অন্তর্ভূক্ত।

গল্প বলা

এটি এমন এক দক্ষতা যা প্রতিটি লেখকেরই থাকা আবশ্যক। লেখা পড়েই যদি কোনো পাঠকের গল্প শোনার অনুভূতি সৃষ্টি হয়, তাহলেই কন্টেন্ট সফল হওয়ার অর্ধেক কাজ হয়ে যায়। বাকিটুকু থাকে কারিগরির জায়গাতে। জটিল রকেট সায়েন্স থেকে শুরু করে বিপণন বিজ্ঞাপন সবকিছুই চিত্তাকর্ষক করে তোলা যায় সুনিপুণ গল্প বলার মাধ্যমে।

সংলাপ তৈরি

পান্ডুলিপি মানেই সংলাপ আকারে পুরো ধারা বর্ণনা করা। ইউটিউবের শর্ট ফিল্ম থেকে শুরু করে মনোলগ পর্যন্ত সবকিছু হবে কথোপোকথন আকারে। এটি স্ক্রিপ্ট রাইটারদের মূল হাতিয়ার, কারণ এর মাধ্যমে একটি দৃশ্য কতটুকু প্রাণবন্ত তা ফুটে উঠে।

প্রুফরিডিং ও রিরাইটিং

যেকোনো লেখা শেষ হওয়ার পর প্রতিটি লেখকের উচিত তা কয়েকবার পড়ে দেখা। এতে করে ব্যাকরণজনিত নানা ছোট খাটো ভুল ধরা পড়ে। অনেক কষ্ট করে একটি পান্ডুলিপি শেষ করার পরেও ক্লায়েন্টের কাছে তা নির্ভুলভাবে পরিবেশন না করা গেলে সব কষ্টই বৃথা। অনেক ক্ষেত্রে ক্লায়েন্ট নতুন শর্ত জুড়ে দিলে সামগ্রিক লেখায় পর্যাপ্ত পরিমাণে পরিবর্তন আনতে হয়। তাই লেখককে রিরাইটিং-এ দক্ষ হওয়া জরুরি।

ধৈর্যশক্তি

যে মাধ্যমের জন্যই হোক না কেন; পুরো একটি পান্ডুলিপি শেষ করা বেশ ধৈর্য্যের কাজ। প্রথমত সৃজনশীল এই কাজে জোর-জবরদস্তির কোনো সুযোগ নেই। এরপর শেষ করার পর পুনরায় তার মান যাচাই করাতেও যথেষ্ট অধ্যবসায়ের প্রয়োজন। তাই লেখার কাজে ধৈর্য্যশীলতার কোনো বিকল্প নেই।

স্ক্রিপ্ট রাইটিং কোর্স

আপনার যদি এ ব্যাপারে একদমি ধারণা না থাকে, তাহলে প্রাথমিক তত্ত্বগুলো শেখার জন্য ভালো কোনো কোর্সে ভর্তি হতে পারেন। কোর্স করার একটা বড় সুবিধা হচ্ছে পুরো বিষয়টি সুন্দরভাবে ছকে বাঁধা থাকে এবং এভাবে সহজ থেকে জটিল স্তরের দিকে যাওয়া হয়।

এখানে অনুশীলন করার পাশাপাশি সমমনার অন্যান্য লোকদের সঙ্গে মন বিনিময়ের মাধ্যমেও জ্ঞানার্জন করা যায়। এছাড়া অনলাইন কোর্সেও অংশ নেওয়া যেতে পারে। স্কিলশেয়ার ও ইউডেমির মত প্ল্যাটফর্মগুলো থেকে আপনি অনায়াসেই স্ক্রিপ্ট রাইটিং-এর প্রাথমিক ধারণা পেতে পারেন।

সৃজনশীল বিষয়বস্তু অধ্যয়ন

সৃজনশীলতাই যখন মুল চাবিকাঠি, তখন এর যথাযথ চর্চা হওয়া আবশ্যক। এর জন্য ইউটিউব সহ অন্যান্য সাইটগুলোতে ব্যতিক্রম ধারার কাজগুলো দেখতে পারেন। বিশেষ করে ঘরে বসে কোনো কিছু তৈরি, দীর্ঘ সময়ের কোনো কাজের স্বল্পকালীন সহজ সমাধান প্রভৃতি কন্টেন্টগুলো অধ্যয়ন করতে পারেন। এক্ষেত্রে তথ্যচিত্রগুলো সবচেয়ে উপযোগী হতে পারে।

লেখালেখির অভ্যাস গড়ে তোলা

যেকোনো অভ্যাস গড়ে তোলার ক্ষেত্রে অনুশীলনের কোনো বিকল্প নেই। আপনার প্রিয় বিষয়গুলো নিয়ে প্রতিদিনি কিছু না কিছু লিখুন। প্রিয় বই, মুভি, পর্যটন এলাকা, রান্না প্রভৃতি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমগুলোতে নিয়মিত আপনার মতামত ব্যক্ত করুন। এভাবে লেখালেখির সঙ্গে অভ্যস্ত হওয়া এক সময় নতুন নতুন শব্দ, বাক্য; এমনকি নতুন ধারণা সৃষ্টির দিকে ধাবিত করবে।

অনলাইন গবেষণা ও অনুশীলন

কোনো কিছু শেখার সবচেয়ে সেরা পদ্ধতি হলো স্বশিক্ষা বা নিজে নিজে শেখা। বর্তমানে সার্চ ইঞ্জিনগুলো যেন হাতের মুঠোয় এনে দিয়েছে সমগ্র পৃথিবীকে। অধ্যয়নের জন্য সেরা কন্টেন্টগুলো খুঁজে বের করুন।

বিশেষ করে বিখ্যাত নিউজ সাইটগুলো ব্রাউজ করুন। প্রতিষ্ঠিত ব্র্যান্ড বা জনপ্রিয় ইনফ্লুয়েন্সারদের কাজগুলো দেখুন। সেখান থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নোট করে তা অনুশীলন করুন।

স্ক্রিপ্ট রাইটারদের বিভিন্ন গ্রুপে সক্রিয় থাকা

প্রতিটি পেশার মত এখানেও যোগাযোগের দক্ষতা থাকা অপরিহার্য। নতুন কোনো পেশা না হওয়ায় আপনি অনায়াসে অনেকগুলো গ্রুপ বা ফোরাম পেয়ে যাবেন ইন্টারনেট জুড়ে। সেখানে মন্তব্য বা আলোচনাগুলো পড়ুন। প্রয়োজনে অভিজ্ঞ কোনো স্ক্রিপ্ট রাইটারের সঙ্গে বন্ধুত্ব গড়ে তুলুন। তখন তাকেই আপনি বিভিন্ন সময়ে আপনার মেন্টর হিসেবে পাবেন।

About

Popular Links