Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মানবপাচারে জড়িত সন্দেহে ভারতে ৯ বাংলাদেশি আটক

তারা বাংলাদেশ থেকে নারীদের ভারতে নিয়ে গিয়ে ‘স্পা’ ব্যবসাসহ পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করত বলে অভিযোগ রয়েছে

আপডেট : ০২ জানুয়ারি ২০২৪, ০৬:৫৪ পিএম

মানবপাচারে জড়িত সন্দেহে বাংলাদেশের নয় নাগরিকসহ ১০ জনকে আটকের কথা জানিয়েছে ভারতের গুজরাট রাজ্যের পুলিশ।

সোমবার (১ জানুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে রাজ্যটির সুরাট পুলিশের কমিশনার অজয় কুমার তমার এ বিষয়টি তুলে ধরেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। অজয় কুমার তমার জানান, আটক বাংলাদেশিদের মধ্যে ছয়জন পুরুষ এবং তিনজন নারী।

তিনি বলেন, “আটকরা প্রলোভন দেখিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভারতে নারী-পুরুষদের ভারতে নিয়ে আসত। ওই নারী-পুরুষদের ভারতীয় নাগরিক প্রমাণ করতে তারা ভুয়া কাগজপত্রও তৈরি করে দিত।”

তিনি জানান, ভাদোদারার বাসিন্দা আকাশ সঞ্জয়ভাই মঙ্কর নামে একজনের কাছ থেকে ভুয়া আধার কার্ড, প্যান কার্ড, ইলেকশন কার্ডসহ ড্রাইভিং লাইসেন্সের মতো কাগজপত্র সংগ্রহ করত তারা। আকাশ ফটোশপের মাধ্যমে সেগুলো তৈরি করতেন। আটক বাংলাদেশিদের সঙ্গে আকাশকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পুলিশ কমিশনার বলেন, “বাংলাদেশ থেকে নিয়ে নারীদের দিয়ে ‘স্পা’ ব্যবসাসহ পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করত তারা।”

তিনি বলেন, “সুরাত পুলিশের ‘স্পেশাল অপারেশন গ্রুপ’ (এসওজি) এবং ‘প্রিভেনশন অব ক্রাইম ব্রাঞ্চ’ (পিসিবি) ওই বাংলাদেশিসহ এক ভারতীয়কে আটক করে। তারা অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করেছিলেন। বাংলাদেশ থেকে ভারতে মানবপাচারে তারা জড়িত ছিলেন।”

পুলিশ জানিয়েছে, আটকদের কাছ থেকে ভুয়া কাগজপত্র, মোবাইল ফোন ও বাংলাদেশি মুদ্রা উদ্ধার করা হয়েছে। ভুয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে তারা ঋণও নিয়েছে। ঋণের টাকায় একটি কার ও দুইটি দ্বি-চক্রযান (মোটরসাইকেল) কিনেছে তারা।

আটকদের বিষয়ে আরও তথ্য সংগ্রহ করতে এসওজি এবং পিসিবি তদন্ত অব্যাহত রেখেছে বলেও জানিয়েছে গুজরাট পুলিশ।

About

Popular Links