Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

চাকরিতে ইস্তফা দিয়ে বসের সামনে ঢোল বাজিয়ে নেচে উদযাপন

যেখানে কাজের সুস্থ পরিবেশ থাকে না সেখান থেকে কর্মচারীরা এভাবেই আনন্দের সঙ্গে বিদায় নেন, মত অনেকের

আপডেট : ২৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৩৫ পিএম

চাকরিকে অনেকেই বলে থাকেন সোনার হরিণ। কিন্তু কর্মস্থলে অশান্তি হলে তা রীতিমতো বরবাদ করে দেয় জীবনের সব শান্তি। তাই এমন চাকরি ছাড়তে পারলে কেউ কেউ যেন হাঁপ ছেড়ে বাঁচেন। কিন্তু চাকরি ছাড়ার প্রতিক্রিয়ায় রীতিমতো ঢোল বাজিয়ে নাচা সম্ভবত অভিনব! এমন কাণ্ডই করেছেন অনিকেত নামে ভারতের পুনের এক ব্যক্তি। একটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রয় সহযোগী হিসেবে চাকরি করতেন তিনি।

এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতের সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস। 

ভারতের ইউটিউবার অনীশ ভগত ওই নাচের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেন। যা এরইমধ্যে ভাইরাল।

অনীশ লিখেছেন, যেখানে কাজের সুস্থ পরিবেশ থাকে না সেখান থেকে কর্মচারীরা এভাবেই আনন্দের সঙ্গে বিদায় নেন। কাজের জায়গায় টক্সিক কালচার এখন প্রায় নিত্যদিনের ঘটনা হয়েছে।

এদিকে তিন বছরের চাকরি ছেড়ে অনিকেত জানিয়েছেন, এই তিন বছরে নিজের বসের কাছ থেকে তিনি বিন্দুমাত্র সম্মান পাননি। কিন্তু একটি মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে আসার জন্য এত দিন ধরে কিছুই বলতে পারেনি।

কর্মক্ষেত্রে অনিকেতের এই পার্টির আয়োজন করেছিল তার বন্ধুরাই। তারাই ঢোল বাজানোর ব্যান্ড দল আয়োজন করেছিলেন।

ম্যানেজার বেরিয়ে আসতেই অনিকেত তার হাত ধরে বিদায় জানান। এরপরই ঢোল বাজতে শুরু করে। সেই তালে নাচতে শুরু করে অনিকেত। ঘটনার জেরে বেশ অস্বস্তিতে পড়ে যান ম্যানেজার। তিনি অনিকেতকে থামানোর চেষ্টা করেন। তবে বিফল হন। এরপর অনিকেত তার বন্ধুদের সঙ্গে গিয়ে মন্দিরে পূজাও দেন। কেক কেটে দিনটিকে উদযাপন করেন তারা। বহুদিন ধরেই জিম ট্রেনার হওয়ার ইচ্ছা ছিল অনিকেতের। এবার তিনি সেই কাজই করবেন। 

ভিডিওটির ক্যাপশনে অনীশ ভগত লিখেছেন, আমি মনে করি আপনারা অনেকেই এর সঙ্গে রিলেট করতে পারবেন। আজকাল বিষাক্ত কাজের সংস্কৃতি খুব বেশি দেখা যায়। সম্মান এবং অধিকারের অভাব খুবই সাধারণ। অনিকেত তার পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত। আমি আশা করি এই গল্প মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে।

এদিকে কয়েক দিন আগে শেয়ার করা পোস্ট এরইমধ্যে ভাইরাল হয়েছে। এতে অনেকেই নানা রকমের মন্তব্য করছেন।

একজন লিখেছেন, ‘‘এটি দেখে আমার এত ভালো লাগছে।”

আরেকজন লিখেন, ‘‘এই নাচে আমার খুব তৃপ্তি লাগলো।”

About

Popular Links