Wednesday, June 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রেলের অব্যবহৃত জমিতে ফসল ফলাতে চান মন্ত্রী

এর আগে সংসদে রেলমন্ত্রী বলেছিলেন, রেলওয়ের অব্যবহৃত জমির মধ্যে যেগুলো লিজযোগ্য তা পর্যায়ক্রমে বাণিজ্যিক, কৃষি, মৎস্য চাষ, নার্সারি ও পোল্টিফার্মের জন্য লিজ দেওয়া হচ্ছে

আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ০৫:৫৪ পিএম

রেলের অব্যবহৃত জমি কৃষিকাজে ব্যবহারের নির্দেশ দিয়েছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। এর আগে সংসদে তিনি বলেছিলেন, “রেলওয়ের অব্যবহৃত জমির মধ্যে যেগুলো লিজযোগ্য তা পর্যায়ক্রমে বাণিজ্যিক, কৃষি, মৎস্য চাষ, নার্সারি ও পোল্টিফার্মের জন্য লিজ দেওয়া হচ্ছে।”

বুধবার (২৫ জানুয়ারি) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে আবারও রেলের জমি কৃষিকাজে ব্যবহারের নির্দেশনা দেন তিনি।

রেলমন্ত্রী বলেন, “দেশের সব জেলার সাথে রেল সংযোগের আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। এ বছর কক্সবাজার পর্যন্ত যাবে রেলপথ। সব রেললাইন পর্যায়ক্রমে ব্রডগেজে রূপান্তর করা হবে।”

তিনি বলেন, “এ বছর নতুন করে আরও ৭০ কিলোমিটার রেলপথ উদ্বোধন করা হবে। এর মধ্যে লাকসাম থেকে আখাউড়া ১৭ কিলোমিটার ডাবল লাইন, টঙ্গী থেকে জয়দেবপুর থার্ড লাইন ১১ কিলোমিটার এবং রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রের সঙ্গে পাকশী পর্যন্ত ১৯ কিলোমিটারসহ মোট ৭০ কিলোমিটার রেললাইন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।”

দেশের প্রত্যেক জেলার সঙ্গে রেলপথ সংযোগ চালু করা হবে উল্লেখ করে নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, দেশে বর্তমানে ব্রডগেজ ও মিটারগেজ রেল ব‍্যবস্থা চালু রয়েছে। আমরা সমস্ত রেল ব‍্যবস্থাকে ব্রডগেজ হিসেবে চালু করতে চাই।

তিনি বলেন, “১৯৬৫ সালে ভারতের সঙ্গে যে রেল ব্যবস্থা বন্ধ হয়েছিল, দুই দেশের চাহিদা অনুযায়ী নতুন করে সেগুলো চালু করতে চাই। বাংলাবান্ধা থেকে শিলিগুড়ি এবং আখাউড়া থেকে আগরতলা পর্যন্ত রেলপথ সংযুক্ত করতে চাই।”

এছাড়া চলতি বছরের মধ্যেই চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার রুটে রেলপথ চালু করার পাশাপাশি খুলনা থেকে মংলা পর্যন্ত রেল লাইনের প্রকল্পটি আগামী জুনের মধ্যে উদ্বোধন করতে পারবেন বলে জানান তিনি।

এ সময় মন্ত্রী সব জেলার সঙ্গে রেল যোগাযোগ স্থাপনে ডিসিদের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে বলে জানান। ভারতের সঙ্গে রেল যোগাযোগ বাড়াতেও তাদের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। বিশেষ করে বাংলাবান্ধা থেকে শিলিগুড়ি।

About

Popular Links