Friday, June 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ঢামেক হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরির অভিযোগ

সিসিটিভির ফুটেজে প্রাথমিকভাবে দেখা গেছে, জরুরি বিভাগের পাশে ভ্যাকসিন দেওয়ার গেট দিয়ে এক নারী বাচ্চা নিয়ে বের হয়ে যাচ্ছেন

আপডেট : ৩১ আগস্ট ২০২৩, ০৮:২৬ পিএম

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পুরাতন ভবনের ১০৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে তিন দিন বয়সী এক  নবজাতক চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ছেলে শিশুটির নাম রাখা হয়েছিল আব্দুল্লাহ।

বৃহস্পতিবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে হাসপাতালের বিছানায় মা শাহিনার পাশে ঘুমিয়ে ছিল শিশুটি। সেখান থেকেই নিখোঁজ হয় সে।

জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকেলে ঢামেক হাসপাতালে ছেলে সন্তানের জন্ম দেন মিরপুরের রূপনগর এলাকার বাসিন্দা মো. হিরণের স্ত্রী শাহিনা। এরপর মা ও শিশুটিকে ১০৬ নম্বর ওয়ার্ডের অতিরিক্ত বেডে রাখা হয়। এই দম্পতির এটিই প্রথম সন্তান।

নবজাতক চুরির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক। তিনি ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানানো হয়েছে। তারা ইতোমধ্যে কাজ শুরু করছে। নবজাতকের স্বজনদের উপস্থিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আমাদের সিসিটিভির ফুটেজ দেখাচ্ছি।”

তিনি বলেন, “আমাদের এখান থেকে কোনো বাচ্চা ছাড়পত্র ছাড়া বের হতে পারে না। প্রতিটি গেটেই আনসার মোতায়েন রয়েছে। এ শিশুটি কীভাবে বের হলো, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”

শাহবাগ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) দেলোয়ার হোসেন বলেন, “পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।”

জানা গেছে, জন্মের পর শিশুটি তার মায়ের দুধ পান করতে পারেনি। মায়ের বুকে দুধ আসায় পাশের বেডের আরেক প্রসূতির কাছ থেকে দুধ খাওয়ানো হয়।

নুসরাত নামের ওই নারী বলেন, “আমার বাচ্চা অসুস্থ। সে এনআইসিইউতে ভর্তি। আমি বাচ্চাটাকে দুধ খাইয়ে তার দাদি মোর্শেদার কাছে দিয়ে আমার বাচ্চা কাছে যাই। সে সময়ে শিশুটির মা ঘুমিয়ে ছিল। পরে এসে শুনি শিশুটিকে পাওয়া যাচ্ছে না।”

শিশুটির দাদি বলেন, “বাচ্চাটিকে তার মায়ের কাছে রেখে বারান্দায় কাপড় শুকাতে যাই। এসে দেখি বাচ্চাটি বেডে নেই। আশপাশে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে বিষয়টি দায়িত্বরত আনসারদের জানাই।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওই ওয়ার্ডে দায়িত্বরত আনসার সদস্য মিঠুন বলেন, “শিশুটির দাদি দুপুর আনুমানিক সোয়া ২টার দিকে আমাকে জানান, আধা ঘণ্টা যাবত তারা বাচ্চাটিকে পাচ্ছেন না। তিনি যে সময়ের কথা বলছেন, সে সময়ে ডিউটিতে মাসুদ নামে আরেকজন ডিউটিতে ছিলেন। আমার সময়ে বাচ্চা নিয়ে কাউকে বের হয়ে যেতে দেখিনি।”

এদিকে সিসিটিভির ফুটেজে প্রাথমিকভাবে দেখা গেছে, জরুরি বিভাগের পাশে ভ্যাকসিন দেওয়ার গেট দিয়ে এক নারী বাচ্চা নিয়ে বের হয়ে যাচ্ছেন। 

About

Popular Links