Wednesday, June 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বিকাশ দিয়ে ফ্রিল্যান্সারদের আয় দেশে আনা যাবে সহজেই

এ পরিষেবা পেতে বিকাশ অ্যাকাউন্টের সঙ্গে পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট সংযুক্ত করতে হবে

আপডেট : ১২ এপ্রিল ২০২২, ০৩:২২ পিএম

বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল আর্থিক সেবা প্রদানকারী (এমএফএস) প্রতিষ্ঠান বিকাশের মাধ্যমে এখন থেকে সহজেই নিজেদের রেমিট্যান্স পারিশ্রমিক আনতে পারবেন ফ্রিল্যান্সাররা।

অনলাইনে আর্থিক লেনদেন, ডিজিটাল পেমেন্ট  এবং গ্রাহকদের কার্যকরী মূলধন প্রদানের উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক পরিষেবা সংস্থা পায়োনিয়ারের সঙ্গে ব্র্যাক ব্যাংক এবং বিকাশ যৌথভাবে এ সেবার উদ্যোগ নিয়েছে। বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক প্রধান অতিথি হিসেবে এর উদ্বোধন করেন।

এর ফলে সহজেই পেওনিয়ার থেকে সরাসরি বিকাশে নিজেদের অর্থ আনতে পারবেন ফ্রিল্যান্সাররা, যেখানে স্থানীয় পেমেন্ট গেটওয়ে হিসেবে কাজ করবে ব্র্যাক ব্যাংক।

তবে এ পরিষেবা পেতে বিকাশ অ্যাকাউন্টের সঙ্গে পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট সংযুক্ত করতে হবে। অ্যাকাউন্ট সংযুক্ত হয়ে গেলে ফ্রিল্যান্সাররা তাৎক্ষণিক তাদের পেমেন্ট বিকাশ অ্যাকাউন্টে আনতে পারবেন। বিকাশ থেকেই পেওনিয়ার অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স চেক করারও সুযোগ থাকবে।

বিকাশ অ্যাকাউন্টে ন্যুনতম ১০০০ টাকা জমা হলেই একজন ফ্রিল্যান্সার নিজের পারিশ্রমিক তুলতে পারবেন।

এ টাকা অন্য বিকাশ অ্যাকাউন্টে সেন্ড মানি, পে বিল, কেনাকাটার পেমেন্ট, ক্যাশআউটে ব্যবহার করা যাবে।

বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগের মতে, বাংলাদেশে সাড়ে ৬ লাখ ফ্রিল্যান্সার রয়েছে, যার মধ্যে ৫ লাখ সক্রিয়ভাবে কাজ করছে। পেওনিয়ার প্রকাশিত ২০১৯ সালের গ্লোবাল গিগ-ইকোনমি সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮ম।

অনুষ্ঠানে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, “দ্রুততার সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে নিরাপদে ফ্রিল্যান্সারদের উপার্জিত অর্থ পাওয়ার পদ্ধতি সহজ করায় বিকাশ, পেওনিয়ার ও ব্র্যাক ব্যাংককে ধন্যবাদ জানাই।”

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, “দক্ষ মানবসম্পদ আমাদের সবচেয়ে বড় শক্তি। যে সাড়ে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার কাজ করছে, তারা বিশ্বের অনলাইন আউটসোর্সিংয়ে ১৬% অবদান রাখছে। অক্সফোর্ড ইন্টারনেট ইনস্টিটিউটের গবেষণায় উঠে এসেছে, অনলাইন আউটসোর্সিংয়ে বাংলাদেশ দ্বিতীয় বৃহত্তম গন্তব্য। গত ১৩ বছরে সরকারের বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ ও নীতি সহায়তায় ২০ লাখ তরুণ-তরুণীর প্রযুক্তিনির্ভর কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে, যা আরও সম্প্রসারণের জন্য আমরা কাজ করছি।

ব্র্যাক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম আর এফ হোসেন বলেন, “ফ্রিল্যান্সিং খাতটি দেশের জন্য রেমিট্যান্স উপার্জনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠেছে এবং গত কয়েক বছর ধরে এ খাতের সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে এবং এর সম্প্রসারণের জন্য বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “দেশের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য গত বছর ব্র্যাক ব্যাংক রেমিট্যান্সের পাশাপাশি ঋণ নেওয়ার পরিষেবা চালু করেছিল।”

পেওনিয়ারের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা রবার্ট ক্লার্কসন বলেন, “ইতোমধ্যেই বিকাশের কিছু গ্রাহক রয়েছে এবং আরও অনেক উদ্যোগ পরিকল্পনাধীন রয়েছে, যেগুলোর অধিকাংশ থেকেই ইতিবাচক সাড়া এসেছে।”

বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদীর বলেন, “সরকারের বিভিন্ন নীতিমালার মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সারদের কাজের সস্প্রসারণ অনেক সহজ করে তুলছে।”

তিনি আরও বলেন, “বাংলাদেশের যে ডিজিটাল অবকাঠামো তৈরি হয়েছে তার সর্বোচ্চ সুবিধা নিয়ে বিশ্ববাজারে দেশের ফ্রিল্যান্সিংকে আরও শক্তিশালী অবস্থানে পৌঁছে দেওয়ার সুযোগ রয়েছে। রেগুলেটেড পদ্ধতিতে ক্লায়েন্টদের কাছ থেকে সহজে পেমেন্ট পাওয়ার এই পদ্ধতি ফ্রিল্যান্সারদের দীর্ঘদিনের পেমেন্ট সংক্রান্ত জটিলতা দূর করবে। এই সেবা আরও অনেককেই ফ্রিল্যান্সিংয়ে যুক্ত হতে উৎসাহিত করবে। সেই সঙ্গে যারা ফ্রিল্যান্সিং করছেন, তাদের কাজে আরও সময় ও মনোযোগ দিতে সহায়তা করবে।”

২০২৫ সালের মধ্যে আইটি এবং আইটি-সক্ষম পরিষেবা খাত থেকে ৫ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার। সংশ্লিষ্টদের ধারণা, এ পরিষেবার মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং খাতে আরও গতিশীলতা আসবে এবং দেশে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রবাহও বেগবান হবে। 

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বেসিসের সভাপতি রাসেল টি আহমেদ এবং পায়োনিয়ারের আঞ্চলিক সিনিয়র সহ-সভাপতি রোহিত কুলকার্নি।

About

Popular Links