Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সরকারি গাড়ি ভাঙচুর, ঋতুরাজের ঈদ কেটেছে কারাগারে

কোক স্টুডিও থেকে খ্যাতি পাওয়া শিল্পীর বিরুদ্ধে এক অতিরিক্ত সচিবের গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

আপডেট : ০৮ মে ২০২৩, ০৭:৫৫ পিএম

মদ্যপ অবস্থায় সরকারি গাড়ি ভাঙচুরের মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে ১৩ দিন কারাগারে ছিলেন তরুণ শিল্পী ঋতুরাজ বৈদ্য। মিউজিক্যাল ফ্র্যাঞ্চাইজি “কোক স্টুডিও বাংলা”য় “বুলবুলি” গানটি গেয়ে ব্যাপক পরিচিতি পান তিনি।

এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে অনলাইন সংবাদমাধ্যম ঢাকা পোস্ট।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ১৭ এপ্রিল রাজধানীর গুলশান-২ এলাকার রূপায়ন টাওয়ারের সামনে থেকে গ্রেপ্তার হন ঋতুরাজ। ৩০ এপ্রিল তিনি জামিনে ছাড়া পান। গত ২২ এপ্রিল ঈদ-উল-ফিতরের সময় তিনি ছিলেন কারাগারে।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ১৭ এপ্রিল রাত ১০টার দিকে রাজধানীর গুলশান-২ এ রূপায়ন টাওয়ারের সামনে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদুর রহমানের সরকারি গাড়িতে বসা ছিলেন চালক অতুলচন্দ্র মন্ডল। এ সময় ঋতুরাজ বৈদ্য মদ্যপ অবস্থায় হেঁটে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তিনি গাড়ির ফ্ল্যাগ স্ট্যান্ড, বাঁ পাশের লুকিং গ্লাস ও হেডলাইট ভেঙে ফেলেন। 

জিজ্ঞাসাবাদ বোঝা যায়, তিনি মদ্যপ অবস্থায় আছেন। তখন তাকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ভর্তি নেওয়া হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তার পাকস্থলী পরিষ্কার (ওয়াশ) করেন।

আদালতের গুলশান থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আলমগীর হোসেনের বরাতে ঢাকা পোস্ট জানায়, এ ঘটনায় গুলশান থানার উপ-পরিদর্শক (নিরস্ত্র) হোসনে মোবারক বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন। পরদিন ১৮ এপ্রিল তাকে আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা এছকান্দার আলী সরদার। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরীর আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

একই ঘটনায় ১৮ এপ্রিল গাড়ির চালক বাদী হয়ে গুলশান থানায় মামলা করেন। 

অভিযোগপত্রে বাদী উল্লেখ করেন, ১৭ এপ্রিল রাত ১০টার দিকে রাজধানীর গুলশান-২ এ রূপায়ন টাওয়ারের সামনে তিনি অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদুর রহমানের সরকারি গাড়িতে বসা ছিলেন। এ সময় ঋতুরাজ বৈদ্য মদ্যপ অবস্থায় হেঁটে গাড়ির সামনে এসে গতিরোধ করে গাড়ি সরাতে বলেন। সরাতে দেরি হওয়ায় ঋতুরাজ গাড়ির ফ্ল্যাগ স্ট্যান্ড, বাঁ দিকের লুকিং গ্লাস ও বাঁ পাশের হেডলাইট ভেঙে ফেলেন এবং তাকে (চালক) মারধর করে তার পকেটে থাকা ৩,২৫০ টাকা ছিনিয়ে নেন। 

গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় এক লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা ক্ষতিসাধন হয় বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। এ মামলায় ঋতুরাজকে ২৬ এপ্রিল শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানো হয়।

আদালত সূত্রের বরাতে প্রতিবেদনে বলা হয়, পুলিশের করা মামলায় ঋতুরাজ ২৫ এপ্রিল এক হাজার টাকা মুচলেকায় জামিন পান। দ্বিতীয় মামলায় ৩০ এপ্রিল জামিন পান। উভয় মামলায় বর্তমানে জামিনে আছেন ঋতুরাজ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিল্পী ঋতুরাজের আইনজীবী আল মামুন রাসেল বলেন, “নিতান্ত আক্রোশের বশবর্তী হয়ে তার বিরুদ্ধে এসব মামলা করা হয়েছে। আমরা আদালতে সব বিষয় উপস্থাপন করলে আদালত সন্তুষ্ট হয়ে তাকে জামিন দিয়েছেন।”

About

Popular Links