Saturday, June 15, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রতিমন্ত্রী: এমন চলতে থাকলে প্রয়োজনে ফেসবুক বন্ধ করে দেব

অ্যাকাউন্ট ও পেজ বন্ধ করার বিষয়ে ব্যাখ্যা চেয়ে মেটার কাছে চিঠি পাঠানো হবে

আপডেট : ০৩ জুন ২০২৪, ০৮:২১ পিএম

তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এ আরাফাত হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, “মেটার পক্ষপাতমূলক প্রতিবেদনের সুরাহা না হলে বাংলাদেশে ফেসবুক পরিণতি ভোগ করতে পারে।”

সোমবার (৩ জুন) প্রতিমন্ত্রী ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “মেটা তার সুনামকে কলঙ্কিত করছে।”

তিনি বলেন, “তাদের কর্মের জন্য জবাবদিহি করতে হবে। যদি তারা নিরপেক্ষ তদন্ত করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে তাদের পরিণতি ভোগ করতে হবে।” 

তিনি বলেন, “অ্যাকাউন্ট ও পেজ বন্ধ করার বিষয়ে ব্যাখ্যা চেয়ে মেটা কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি পাঠানো হবে।

গেল বৃহস্পতিবার, মেটা প্রকাশ করেছে যে ফেসবুকের নীতি লঙ্ঘনের জন্য ৫০টি অ্যাকাউন্ট এবং ৯৮টি পেজ সরিয়ে দিয়েছে।"

প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এ আরাফাত বলেন, “বাংলাদেশে এসব কর্মকাণ্ডে কিছু নির্দিষ্ট ব্যক্তি জড়িত। যদিও এটা মনে হতে পারে যে, যারা আওয়ামী লীগের পক্ষে এবং বিএনপির বিরুদ্ধে কথা বলছে তারা সম্ভবত আওয়ামী লীগের সাথে যুক্ত।” 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, "মেটা দাবি করেছে যারা এই অ্যাকাউন্টগুলো চালায় তাদের পরিচয় তারা খুঁজে পায়নি।"

“যদি মেটা এই জামাত শিবির বা রাজাকারদের সমর্থন করে, প্রয়োজনে আমরা তাদের বন্ধ করে দেব। বেশ কয়েকটি দেশে, হোয়াটসঅ্যাপ সীমাবদ্ধ, বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যে। মেটা এবং ফেসবুকও অনেক জায়গায় সীমাবদ্ধ। তাদের অবশ্যই আমাদের আইন মেনে চলতে হবে, নতুবা তারা এখানে কাজ করবে না,” যোগ করেন আরাফাত।

এর আগে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এ প্রতিবেদনের সমালোচনা করে বলেন, “এটা রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট প্রতিবেদন। যাদের মাধ্যমে ফেসবুক তদন্ত করেছে বা তথ্য সংগ্রহ করেছে তাদের রাজনৈতিক পরিচয় পরীক্ষা করা উচিত। ফেসবুকের মতো প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এটা আশা করিনি।”

সারা বিশ্বের বিভিন্ন অংশে নির্দেশিকা মেনে চলার ক্ষেত্রে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের ধারাবাহিক ব্যর্থতার কথা উল্লেখ করে, আওয়ামী লীগের ওয়েব টিম এবং সিআরআই-এর সমন্বয়ক তন্ময় আহমেদ, মেটা-এর অবারিত প্রবাহকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে ব্যর্থতার বিষয়ে একটি গবেষণা উপস্থাপনা করেন। 

About

Popular Links