Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নাতি-নাতনির খেতাব কেড়ে নেওয়ায় ‘ব্যথিত’ ডেনিশ রানি

এ ঘটনায় বিরক্তি প্রকাশ করেছেন রানী মার্গ্রেথের ছোট ছেলে প্রিন্স জোয়াকি

আপডেট : ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৫৮ পিএম

চার নাতি-নাতনির রাজকীয় উপাধি কেড়ে নিয়েছেন ডেনমার্কের রানি দ্বিতীয় মার্গ্রেথে। নিজের নেওয়া সিদ্ধান্ত বদল না করলেও এই ঘটনায় ‘‘ব্যথিত’’ বলে জানিয়েছেন তিনি।

যুক্তরাজ্যের সংবাদ মাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

রানির ভাষ্য, সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে রাজতন্ত্র কায়েম করতে চেয়েছেন তিনি। তিনি দীর্ঘ সময় ধরে চিন্তা করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কিন্তু তিনি তার পরিবারের প্রতিক্রিয়া অবমূল্যায়ন করেছেন এবং এর জন্য তিনি দুঃখিত।

প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রাথমিক সিদ্ধান্ত গত সপ্তাহে ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী বছর থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে। রাজপুত্র এবং রাজকুমারীর যে উপাধিগুলো তারা এখন পর্যন্ত ধরে রেখেছে তা বন্ধ করা হবে।

প্রিন্স জোয়াকিমের বংশধরদের ভবিষ্যতে ‘‘এক্সিলেন্সিস’’ হিসেবে সম্বোধন করতে হবে।

এদিকে এ ঘটনায় বিরক্তি প্রকাশ করেছেন রানী মার্গ্রেথের ছোট ছেলে প্রিন্স জোয়াকিম। তিনি বলেন, নিজেদের সন্তানদের সঙ্গে এইরকম খারাপ ব্যবহার করা ঠিক নয়। তারা নিজেদেরকে এমন পরিস্থিতিতে খুঁজে পেয়েছেন যা তারা বুঝতে পারছেন না।

অপরদিকে জোয়াকিমের স্ত্রী প্রিন্সেস মেরি জানিয়েছেন, খেতাব কেড়ে নেওয়ার নোটিশ পাওয়ার পর তার ছোট সন্তানকে স্কুলে উত্যক্ত করা হয়েছিল।

জোয়াকিম-মেরি জানান, এ পরিবর্তনগুলো ঘোষণার ব্যাপারে রানি মার্গ্রেথে তাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা করেননি। 

রানির নাতি প্রিন্স নিকোলাই বলেছেন, তিনি তার পরিবারের এমন সিদ্ধান্তে চমকে গেছেন।

২০২৩ সালের শুরু থেকে জোয়াকিমের চার সন্তান প্রিন্স নিকোলাই (২৩), প্রিন্স ফেলিক্স (২০), প্রিন্স হেনরিক (১৩) এবং প্রিন্সেস অ্যাথেনা (১০) প্রিন্স এবং প্রিন্সেসের পরিবর্তে মনপেজটের কাউন্ট এবং কাউন্টেস উপাধির মাধ্যমে পরিচিত হবেন।

ডেনমার্কে রানির প্রাসাদ জানায়, ডেনিশ রাজার রাজতন্ত্রকে হ্রাস করার জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

গত সপ্তাহে এক বিবৃতি দিয়ে বলা হয়, চার নাতি-নাতনির জীবনকে বড় করে তোলার লক্ষ্যে একটি কাঠামো তৈরি করে দিতে চান মহামান্য রানি। এজন্য তাদের খেতাব থাকছে না।

এনিয়ে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হলে রানি দ্বিতীয় মার্গ্রেথে বলেন, আমার সন্তান, পুত্রবধূ এবং নাতি-নাতনিরা যে আমার বড় আনন্দ এবং গর্বের এ বিষয়ে কারোরই সন্দেহ থাকা উচিত নয়। আমি এখনও আশা করি, পরিবার হিসেবে আমরা এই পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে আমাদের পথ ও শান্তি খুঁজে পাব।

রানির নেওয়া সিদ্ধান্তে সমর্থন জানান তার জ্যেষ্ঠ সন্তান ক্রাউন প্রিন্স ফ্রেডেরিকের স্ত্রী ক্রাউন প্রিন্সেস মেরি। তিনি বলেন, পরিবর্তন কঠিন হতে পারে এবং সত্যিই আঘাত করতে পারে। কিন্তু এর মানে এই নয় যে সিদ্ধান্তটি সঠিক নয়।

ক্রাউন প্রিন্স ফ্রেডেরিক ডেনিশ সিংহাসনের উত্তরাধিকারী হওয়ায় তার চার সন্তানের পদবি বহাল থাকবে।

ডেনমার্কের রানি দ্বিতীয় মার্গ্রেথে ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের তৃতীয় চাচাতো বোন।

About

Popular Links