Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শান্তি চেষ্টা ব্যর্থ, সুদানে সংঘাত বৃদ্ধির শঙ্কা

এ সপ্তাহের শুরুতে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছিলেন আরএসএফ প্রধান মোহাম্মদ হামদান হেমেদতি দাগালো, সম্মত হয়েছিল সামরিক বাহিনীও

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪, ১১:২৪ পিএম

শান্তি প্রচেষ্টা প্রত্যাখ্যান করে আধাসামরিক র‌্যাপিড সাপোর্ট ফোর্সেসের (আরএসএফ) সঙ্গে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সুদানের সেনাপ্রধান আবদেল ফাত্তাহ আল-বুরহান। ফলে নয় মাস ধরে চলা সংঘাত আরও বৃদ্ধি পেতে পারে বলে শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

এ সপ্তাহের শুরুতে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছিলেন আরএসএফ প্রধান মোহাম্মদ হামদান হেমেদতি দাগালো। সম্মত হয়েছিল সামরিক বাহিনীও।

তবে আগেও একাধিকবার যুদ্ধবিরতির পরিস্থিতি তৈরি হলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। ফলে এবারেও সন্দেহ করছিলেন পর্যবেক্ষকরা।

শুক্রবার পোর্ট সুদানে জড়ো হওয়া সৈন্যদের উদ্দেশে আল-বুরহান বলেন, “পুরো বিশ্ব প্রত্যক্ষ করেছে এই বিদ্রোহী বাহিনী পশ্চিম দারফুর এবং সুদানের বাকি অংশে যুদ্ধাপরাধ ও মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ করছে। সেই কারণে, তাদের সাথে আমাদের কোন পুনর্মিলন নেই, তাদের সাথে আমাদের কোন চুক্তি নেই।”

তিনি পশ্চিম দারফুর শহর এল জেনেইনার আশেপাশে জাতিগত দমনের কথাও উল্লেখ করেন ওই ভাষণে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনী ও আরএসএফ উভয়কেই যুদ্ধাপরাধের জন্য অভিযুক্ত করেছে। তারা বলছে, আরএসএফ মানবতাবিরোধী অপরাধ ও জাতিগত নির্মূলের জন্যও দায়ী।

২০২৩ সালের ১৫ এপ্রিল শুরু হওয়া যুদ্ধটি সুদানের বিস্তৃত অংশকে ধ্বংস করেছে ও ৭.৫ মিলিয়নেরও বেশি মানুষকে বাস্তুচ্যুত করেছে।

আফ্রিকান বাণিজ্য ব্লকের মধ্যস্ততায় আল-বুরহান এবং দাগালোকে নিয়ে গত মাসে বৈঠক করা হয়েছিল। তবে শুক্রবার আল-বুরহান তা প্রত্যাখ্যান করেছেন। এ সময় নিজের প্রতিদ্বন্দ্বীকে “ভাঁড়”, “বিশ্বাসঘাতক” এবং “কাপুরুষ” বলে অভিহিত করেন।

একই সময়ে এই সপ্তাহে ইথিওপিয়ার রাজধানী আদ্দিস আবাবায় স্বাক্ষরিত যুদ্ধবিরতি চুক্তি প্রত্যাখ্যান করেন দাগালো।

সুদানের নেতা হিসেবে দাগালোকে নিয়ে বৈঠক করায় আল-বুরহান দক্ষিণ আফ্রিকা, ইথিওপিয়া এবং কেনিয়াসহ আফ্রিকান দেশের নেতাদের সমালোচনা করেন।

আল-বুরহান বলেন, তিনি সুদানের জনগণকে অপমান করছেন, তিনি তাদের হত্যা করছেন, তাদের অপমান করছেন, এবং কিছু লোক তার জন্য হাততালি দিচ্ছে এবং তার সাথে হাসছে।

গত মাসে গেজিরা রাজ্যে অভিযান চালায় এবং চাষের গ্রামগুলো লুটপাট করায় উত্তর সুদানে ব্যাপক প্রতিরোধের সম্মুখীন হয়েছে আরএসএফ।

ওই সময় আরএসএফের বিরুদ্ধে যারা লড়াই করতে চায় তাদের সামরিক বাহিনীতে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান আল-বুরহান।

আল-বুরহান বলেন, “দেশটি বন্ধন ও ঔপনিবেশিকতার অধীনে পড়ার হুমকির সম্মুখীন।”

About

Popular Links