Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

যে অনন্য কীর্তির সামনে লাউতারো-আলভারেজ

একই মৌসুমে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ফিফা বিশ্বকাপ জয়ের কৃতিত্ব আছে ১১ জন ফুটবলারের

আপডেট : ২০ মে ২০২৩, ০২:৩০ পিএম

বিশ্ব ফুটবলে বর্তমানে সবচেয়ে ভালো সময় পার করছে আর্জেন্টিনা। ২০২১ সালে কোপা আমেরিকা জয়ের মাধ্যমে দীর্ঘ ২৮ বছর পর আন্তর্জাতিক শিরোপার স্বাদ পায় ল্যাটিন আমেরিকান পরাশক্তিরা। গত ডিসেম্বরে তো ফ্রান্সকে হারিয়ে তিন যুগের প্রতীক্ষার পর ফিফা বিশ্বকাপের সোনালি ট্রফিই ঘরে তোলে আলবিসেলেস্তেরা। মাস দুয়েক আগে ফিফা র‍্যাংকিংয়েও শীর্ষে ওঠে আর্জেন্টাইনরা।

জাতীয় দলের পাশাপাশি ক্লাব ফুটবলেও দুর্দান্ত ছন্দে আছে আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা। ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলের কুলীন প্রতিযোগিতা উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে উঠেছে ইন্টার মিলান ও ম্যানচেস্টার সিটি। আগামী ১০ জুন তুরস্কের ইস্তাম্বুলের আতাতুর্ক স্টেডিয়ামে শিরোপা নির্ধারণী লড়াইয়ে মু্খোমুখি হবে দুই দল।

বুধবার (১৭ মে) ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদকে ৪-০ এবং অ্যাগ্রিগেটে ৫-১ গোলে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালের টিকেট পায় ম্যানসিটি। অন্যদিকে, তার আগের দিন সান সিরোতে নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী এসি মিলানের বিপক্ষে ১-০ এবং অ্যাগ্রিগেটে ৩-০ ব্যবধানে অগ্রগামিতায় ১৩ বছর পর ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতার ফাইনালে পা রাখে ইন্টার।

ম্যানচেস্টার সিটি ও ইন্টার মিলান দুই দলেই একজন করে আর্জেন্টাইন রয়েছেন। ইস্তাম্বুলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ৬৮তম ফাইনালে নেরাজ্জুরিদের জার্সি গায়ে মাঠে নামবেন লাউতারো মার্টিনেজ। অন্যদিকে, ইংলিশ ক্লাবটির প্রতিনিধিত্ব করবেন হুলিয়ান আলভারেজ। তিনবারের চ্যাম্পিয়ন ইন্টার কিংবা প্রথম শিরোপার সন্ধানে থাকা ম্যানসিটির মধ্যে যেই শেষ হাসি হাসুক না কেন, নিশ্চিতভাবেই একজন আর্জেন্টাইন শিরোপা উৎসবে থাকবেন।

লাউতারো মার্টিনেজ (বাঁয়ে) এবং হুলিয়ান আলভারেজ/কোলাজ

লাউতারো মার্টিনেজ এবং হুলিয়ান আলভারেজের সামনে তাই এক অনন্য কীর্তির হাতছানি রয়েছে। একই মৌসুমে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ফিফা বিশ্বকাপ জয়ের কৃতিত্ব আছে ১১ জন ফুটবলারের। এ তালিকায় ক্লাব হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদ ও জাতীয় দল হিসেবে জার্মান খেলোয়াড়দের জয়জয়কার। দুই আর্জেন্টাইনের মধ্যে যার দল ইস্তাম্বুলে শেষ হাসি হাসবে, তিনি দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে এই তালিকায় যুক্ত হবেন।

একই মৌসুমে বিশ্বকাপ ও ইউরোপের সর্বোচ্চ ক্লাব আসরের শিরোপা জেতার প্রথম ঘটনা দেখা যায় ১৯৭৪ সালে। ওই বছর জার্মান পরাশক্তি বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ (তৎকালীন ইউরোপিয়ান কাপ) জেতেন ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ার, সেপ মায়ার, জার্ড মুলার, পল ব্রেইটনার, হ্যান্স গর্গ সোয়ার্জেনবেক, উলি হোয়েনেস ও ইয়ুপ কাপেলমান। মাস দুয়েকের মধ্যেই এই সাত ফুটবলার জার্মানির হয়ে ফিফা বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পান।

একই মৌসুমে কোনো খেলোয়াড়ের উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ফিফা বিশ্বকাপ জয়ের পরের নজির দেখা যায় দুই যুগ পর। ১৯৯৮ সালে রিয়ালের জার্সিতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের পর বিশ্বকাপজয়ী ফ্রান্সের স্কোয়াডে ছিলেন ক্রিস্টিয়ান কারেম্বেউ। পরবর্তীতে এ তালিকায় যোগ হয় আরও তিনজনের নাম। তারা হলেন- রবার্তো কার্লোস (২০০২ সালে, রিয়াল মাদ্রিদ ও ব্রাজিল), স্যামি খেদিরা (২০১৪ সালে, রিয়াল মাদ্রিদ ও জার্মানি) এবং রাফায়েল ভারান (২০১৮ সালে, রিয়াল মাদ্রিদ ও ফ্রান্স)।

কাতার বিশ্বকাপের ট্রফি হাতে লাউতারো মার্টিনেজ (বাঁয়ে) এবং হুলিয়ান আলভারেজ/কোলাজ

গত ১৮ ডিসেম্বর কাতার বিশ্বকাপের ফাইনালে আগের আসরের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে টাইব্রেকারে তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ জেতে আর্জেন্টিনা। ফাইনালে আলবিসেলেস্তেদের হয়ে শুরুর একাদশে ছিলেন হুলিয়ান আলভারেজ। অতিরিক্ত সময়ে তার বদলি হিসেবে মাঠে নামেন লাউতারো মার্টিনেজ।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে তারা শিরোপা জয়ে কেমন অবদান রাখবেন, তা সময়ই বলে দেবে। তবে সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে গোল করে দুই আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারই দারুণ কিছুর ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফিরতি লেগে লাউতারোর একমাত্র গোলে সাতবারের চ্যাম্পিয়ন এসি মিলানকে হারায় ইন্টার। পরদিন রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে দ্বিতীয় লেগে ম্যানসিটির ৪-০ ব্যবধানের জয়ে শেষদিকে বদলি হিসেবে মাঠে গোল করেন আলভারেজ।

About

Popular Links