Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

হাটে উৎসুক মানুষের ভিড়, ক্রেতা কম

কুদ্দুস ব্যাপারী বলেন, গত চার দিনের মধ্যে কেবল একটি গরু বিক্রি করেছি। আমরা তিন ভাই গরুর ব্যাপারী। সবাই এখানে একসঙ্গে গরু বিক্রি করতে এসেছি। হাটে সবাই আসছে, ঘুরে ঘুরে দেখছে। কেউ কেউ দামাদামি করছে, কিন্তু তেমন কেউ কিনছে না

আপডেট : ২৬ জুন ২০২৩, ০৭:২৭ পিএম

আগামী ২৯ জুন মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদ-উল-আজহা। এই ঈদে পশু কোরবানি করেন মুসলিম বিত্তবানরা। তবে এখনও জমে ওঠেনি রাজধানীর ধোলাইখাল, পোস্তগোলা শ্মশানঘাটসহ পুরান ঢাকার অধিকাংশ গরুর হাট। ব্যাপারীরা ক্রেতার আশায় হাটে বসে আছেন, তবে ক্রেতার আনাগোণা তেমন নেই। বরং কোরবানির পশু দেখতে আসা উৎসুক জনতার ভিড় দেখা গেছে।

সোমবার (২৬ জুন) পুরান ঢাকার বেশ কয়েকটি গরুর হাট ঘুরে দেখা যায়, সবাই ঘুরে ঘুরে গরু দেখছেন, কিন্তু তেমন কেউ কিনেছেন না।

ঢাকার ধোলাইখাল ও পোস্তগোলা শ্মশানঘাটের গরুর হাট ঘুরে দেখা যায়, লোকজন ঘুরে ঘুরে একের পর এক গরু দেখছেন। দরদাম করছেন, কিন্তু তেমন কেউ কিনছেন না। 

কয়েকজন ক্রেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গত বছরের তুলনায় এবার দাম অনেক বেশি। অন্যদিকে গরু ব্যবসায়ীরা বলছেন, গরু পালনে খরচ বেড়েছে। সেই তুলনায় দাম বেশি না। এখন বিক্রি না হলেও ঈদের আগের দিন চওড়া দামে গরু বিক্রির আশা করছেন তারা।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে গত শুক্রবার ঢাকায় ১৮টি কোরবানির গরু নিয়ে এসেছেন কুদ্দুস ব্যাপারী। তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, “গত চার দিনের মধ্যে কেবল একটি গরু বিক্রি করেছি। আমরা তিন ভাই গরুর ব্যাপারী। সবাই এখানে একসঙ্গে গরু বিক্রি করতে এসেছি। হাটে সবাই আসছে, ঘুরে ঘুরে দেখছে। কেউ কেউ দামাদামি করছে, কিন্তু তেমন কেউ কিনছে না। আশপাশেও গরু বিক্রি হচ্ছে না খুব একটা।”

ক্রেতা জয়নাল মুন্সী বলেন, “গতকালও হাটে এসেছি। হাটে গরু আসছে একের পর এক। দেখে শুনে সুন্দর একটা গরু কিনবো। কোরবানি যেহেতু আল্লাহর খুশির জন্য তাই নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী হাটের সবচেয়ে সেরা গরুটা আল্লাহর নামে উৎসর্গ করবো। এ জন্য ঘুরে ঘুরে দেখছি। এখনো কিনছি না। তাছাড়া এখন কিনলে রাখার আরেকটা সমস্যা। এ জন্য ঈদের আগের দিন কিনবো। আশা করছি তেমন কোনো সমস্যা হবে না।”

মোতালেব হোসেন নামের আরেক ক্রেতা বলেন, “গত বছরের তুলনায় এবার গরুর দাম অনেক বেশি। ছোট ছোট গরু এক দেড় লাখ টাকা দাম চায়। বেশ কয়েকটা গরু দামাদামি করলাম, কিন্তু দামে মিলছে না। তাই হাটে ঘোরাঘুরি করছি।”

উল্লেখ্য, এ বছর পবিত্র ঈদুল আজহায় ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন এলাকার ১৯টি স্থানে কোরবানির পশুর হাট বসেছে। এরমধ্যে উত্তর সিটিতে ১০টি স্থানে এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে ৯টি স্থানে বসছে পশুর হাট।

About

Popular Links