Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বগি সংকটে শাটলের ছাদে শিক্ষার্থীরা: গাছের ধাক্কায় আহত ২০, মধ্যরাতে উত্তাল চবি

বর্তমানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দুইটি শাটল ট্রেন প্রতিদিন মোট ১৪ বার চট্টগ্রাম শহর থেকে ক্যাম্পাসে যাতায়াত করে। শিক্ষার্থীর তুলনায় বগি কম হওয়ায় ট্রেনের ছাদে আসা-যাওয়া করতে হয় অনেক শিক্ষার্থীকে

আপডেট : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১০:১৭ এএম

শাটল ট্রেনের ছাদে করে যাওয়ার সময় গাছের ধাক্কায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) অন্তত ২০ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে চৌধুরীহাট এলাকায় কাত হওয়া একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এর জেরে রাত ১১টার দিকে ক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের বাসভবনের সামনে জড়ো হয়ে ভাঙচুর ও আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে। শাটল ট্রেনের নতুন বগির দাবি জানায় তারা।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক নুরুল আলম আশিকের বরাতে অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউন জানায়, ট্রেনের ছাদে থাকা বেশ কজন শিক্ষার্থী গাছের ডালের সঙ্গে ধাক্কা লেগে আহত হয়। আহত ১৬ শিক্ষার্থীকে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি ওয়ার্ডে ৮ জন এবং নিউরো সার্জারি ওয়ার্ডে ৮ জন ভর্তি করানো হয়।

রাতে দুর্ঘটনা কবলিত শাটল ট্রেনটি ক্যাম্পাসে পৌঁছালেই শিক্ষার্থীরা নেমে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে দেয়। আগুন জ্বালিয়ে প্রশাসনের কাছে শিক্ষার্থী আহত হওয়ার প্রতিবাদ জানায় এবং শাটল ট্রেনের বগি বাড়ানোর দাবি জানান। পাশাপাশি জিরো পয়েন্টে অবস্থিত পুলিশ বক্সে ভাঙচুর করে ক্ষুব্দ শিক্ষার্থীরা।

এই পরিস্থিতিতে রাত ১২টায় চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত শিক্ষার্থীদের দেখতে যান চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীন আখতার। তিনি আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন। চিকিৎসায় কোনো ত্রুটি না হয়, এ ব্যাপারে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেন।

লোক প্রশাসন বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী নুরুজ্জামান বলেছেন, “শাটল ট্রেনের ভেতরে জায়গা না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা ছাদে যাতায়াত করেন। কয়েকদিন আগেই চৌধুরীহাট এলাকার একটি গাছের ঢাল কিছুটা কাত হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলেও ছাদে থাকা তিন শিক্ষার্থী আহত হন।”

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড. মো. মোরশেদুল আলম বলেন, “চট্টগ্রাম শহর থেকে রাতে শার্টল ট্রেনের ছাদে করে চবি ক্যাম্পাসে আসার সময় গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে ১৫-২০ জনের মতো আহত হয়েছে।”

বর্তমানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দুইটি শাটল ট্রেন প্রতিদিন মোট ১৪ বার চট্টগ্রাম শহর থেকে চবি ক্যাম্পাসে আসা যাওয়া করে। প্রতিটি শাটল ট্রেনে দশটি করে বগি আছে। তবে শিক্ষার্থীর তুলনায় বগি কম হওয়ায় ট্রেনের ছাদে করে আসা যাওয়া করে অনেক শিক্ষার্থী।

About

Popular Links