Saturday, June 15, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

‘ত্রাণ না পেয়ে’ হামলা, নারী ইউপি সদস্যের দেবরের মৃত্যু

দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ হয়

আপডেট : ০৩ জুন ২০২৪, ১০:১২ এএম

পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলায় ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন সহায়তা না পেয়ে স্থানীয় নারী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্যের স্বজনদের ওপর হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে ওই নারী ইউপি সদস্যের দেবর আবদুর রব হাওলাদার (৪৫) নিহত হয়েছেন।

রবিবার (২ জুন) দুপুরে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। নিহত আবদুর রব হাওলাদার উপজেলার উত্তর নিলতী গ্রামের মৃত মকবুল হাওলাদারের ছেলে। তিনি পেশায় কাঠমিস্ত্রি ছিলেন।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, খাদিজা বেগমের বিরুদ্ধে ত্রাণ বিতরণে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ওঠে। এরপর শনিবার সন্ধ্যায় সুবিদপুর গ্রামে ত্রাণবঞ্চিত লোকজন জড়ো হন। খবর পেয়ে খাদিজা বেগমের স্বামী মুজিবুর রহমানসহ তার লোকজন সেখানে যান। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ হয়। এতে আবদুর রব হাওলাদারসহ কয়েকজন আহত হন। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

উপজেলার চিড়াপাড়া পারসাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্য খাদিজা বেগম ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, তিনি সংসদ সদস্য মো. মহিউদ্দিন মহারাজের কাছ থেকে ৩০ প্যাকেট খাদ্য সহায়তা পেয়েছিলেন। সেগুলো সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে তিনি বিতরণ করেন। তবে সঞ্জয় ঘোষ, সঞ্জীব ঘোষ, শিশির ঘোষ, সলেমান সরদার, হুমায়ুন মাঝি, কমল পাটিকর, দিলিপ পাটিকর এবং দীপক পাটিকর খাদ্য সহায়তা না পেয়ে তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়। শনিবার দুপুরে এ নিয়ে তারা গালমন্দও করে। পরবর্তী সময়ে তারা তার স্বামী মো. মজিবুর রহমানকেও বিকেলে মারধর করে। বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান মো. লায়েকুজ্জামান মিন্টুকে জানালে তিনি তার কাছে যেতে বলেন।

তিনি আরও জানান, শনিবার সন্ধ্যার পর স্বামী এবং দেবরদের নিয়ে চেয়ারম্যানের কাছে যাওয়ার সময় সঞ্জয় ঘোষসহ অন্যরা লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে আব্দুর রব গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ দুপুরে তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির জানিয়েছেন, এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সঞ্জীব ঘোষ ও দিলীপ পাটিকরকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন।

কাউখালীর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) স্বজল মোল্লা জানান, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সংঘর্ষ বা হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি ত্রাণ বিতরণ নিয়ে ঘটেছে বলে কেউ তাকে জানাননি। পূর্বশত্রুতার জেরে ঘটনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয়ভাবে তাকে জানানো হয়েছে।

About

Popular Links