Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ওটিপি বলে দেড় লাখ টাকা খোয়ালেন দীঘি, উদ্ধার করল ডিবি

‘‌প্রতারকরা আমার পরিচয় জানত, আমার সাথে এমনভাবে কথা বলেছে যে বুঝতে পারিনি’

আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৫:৩৭ পিএম

প্রতারকের ফাঁদে পড়ে ঢাকাই সিনেমার চিত্রনায়িকা প্রার্থনা ফারদিন দীঘির মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট থেকে ১ লাখ ৬২ হাজার টাকা খোয়া গেছে। এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নেমে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার ও খোয়া যাওয়া টাকা উদ্ধার করে ভুক্তভোগীকে ফেরত দিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) ডিবিপ্রধান হারুনুর রশিদ ঢাকার মিন্টো রোডের কার্যালয়ে দীঘির কাছে টাকাগুলো বুঝিয়ে দেন।

এ বিষয়ে দীঘি বলেন, ‘‘একটি নম্বর থেকে কল করে আমার বিকাশ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার কথা বলে। আমার অ্যাকাউন্টে অনেক টাকা ছিল, তাই আমি ওই কলে বেশ কিছুক্ষণ ধরে কথা বলি। প্রতারকরা আমার ওটিপি নম্বর চায়। আমি ভেবেছিলাম, পিন নম্বর না দিলে তারা আমার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করতে পারবে না। তাই ওটিপি দেই। তখন আমি শুটিংয়ের কাজে ও স্ক্রিপ্ট নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। তাই মাথা তেমন কাজ করেনি।’’

ওই কলের পরপরই অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা খোয়ান জানিয়ে দীঘি বলেন, ‘‘এরপর দেখি অ্যাকাউন্ট থেকে দেড় লাখ টাকার বেশি মানে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা নেই। প্রতারকরা আমার পরিচয় জানত, আমার সাথে এমনভাবে কথা বলেছে যে আমি তাদের বুঝতে পারিনি। বিষয়টি বুঝতে পেরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে আমি লিখিত অভিযোগ করলাম।’’

ডিবি কার্যালয়ে দীঘি/ফেসবুক

এই অভিনেত্রী আরও বলেন, ‘‘শুরু থেকে ডিবি প্রধান হারুনুর রশিদ ভাইয়ার কথা মনে পড়ছিল। মনে হচ্ছিল, তিনি হয়ত কার্যকর কোনো ব্যবস্থা নিতে পারবেন। এ কারণে এখানে আসা।’’

দীঘি বলেন, ‘‘ডিবি প্রধান আমাকে পরদিন দেখা হলে বলেন, আমার আগের রাতে পাঠানো স্ক্রিনশট দেখেই কাজ শুরু করে দিয়েছেন তারা। আর পরদিন রাতে আমাকে জানান, আমার টাকা রিটার্ন করতে পেরেছেন। আগামীকাল আমাকে টাকাটা হ্যান্ডওভার করতে চান। আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।’’

ডিএমপির পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ এ বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বলেন, “শনিবার দীঘির মোবাইল ফোনে একটি অপরিচিত নম্বর থেকে কল আসে। ওই ব্যক্তি নিজেকে বিকাশ অফিসের কর্মী পরিচয় দেন। এরপর দীঘির অ্যাকাউন্ট ব্লক হওয়ার কথা বলে তা ঠিক করে দিতে একটি ওটিপি নম্বর জানতে চান। পরে দীঘি সেটা বলে দেওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই অ্যাকাউন্ট থেকে ১ লাখ ৬২ হাজার টাকা উধাও হয়ে যায়।”

এ অভিযোগের তদন্তে নেমে পুলিশ ঢাকার মিরপুর থেকে দুইজনকে গ্রেপ্তার ও টাকা উদ্ধার করে বলে জানান হারুন। তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

About

Popular Links