Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সুদান সীমান্তে সংঘর্ষে শান্তিরক্ষীসহ নিহত ৫৪

  • ২০২১ সালের পর এটিই সবচেয়ে বড় সংঘর্ষ
  • নিহতদের মধ্যে নারী, শিশু ও দুই জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী রয়েছে
আপডেট : ২৯ জানুয়ারি ২০২৪, ১১:৪০ পিএম

সুদান এবং দক্ষিণ সুদানের একটি বিতর্কিত অঞ্চলে প্রতিদ্বন্দ্বী সম্প্রদায়ের মধ্যে লড়াইয়ে ৫৪ জন নিহত হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, “নিহতদের মধ্যে জাতিসংঘের দুই শান্তিরক্ষীও আছেন। জাতিসংঘ সোমবার (২৯ জানুয়ারি) শান্তির আহ্বান জানিয়ে এ কথা বলেছে।”

স্থানীয় কর্তৃপক্ষের মতে, সপ্তাহশেষে উভয় দেশের সীমান্ত ঘেঁষে থাকা তেলসমৃদ্ধ অঞ্চল আবেইতে সংঘর্ষ শুরু হয়।

আবেইতে দায়িত্ব পালনকারী জাতিসংঘের অন্তর্বর্তী নিরাপত্তা বাহিনী ইউএনআইএসএফএ বেসামরিক ও শান্তিরক্ষীদের বিরুদ্ধে এই হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছে, “বর্তমানে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের মতে, ৫২ জন বেসামরিক লোক প্রাণ হারিয়েছে এবং ৬৪ জন গুরুতর আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। শান্তিরক্ষীরা রবিবার আক্রান্ত বেসামরিক নাগরিকদের ইউএনআইএসএফএ ঘাঁটি থেকে একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় গুলিবিদ্ধ হন।”

সহিংসতার তদন্তের আহ্বান জানিয়ে ইউএনআইএসএফএ আরো বলেছে, “একজন পাকিস্তানি শান্তিরক্ষী নিহত হয়েছেন এবং ইউনিফর্ম পরা চার কর্মী এবং একজন স্থানীয় বেসামরিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। এর আগে শনিবার ঘানার এক শান্তিরক্ষী নিহত হয়েছেন।”

২০১১ সালে দক্ষিণ স্বাধীনতা লাভের পর থেকে সুদান এবং দক্ষিণ সুদানের মধ্যে অবস্থিত আবেই সহিংস অঞ্চলে পরিণত হয়েছে। আবেই বিশেষ প্রশাসনিক এলাকার কর্তৃপক্ষের মতে, সশস্ত্র যুবক ও স্থানীয় বিদ্রোহী মিলিশিয়ারা শনিবার সকাল থেকে শুরু করে একের পর এক “বর্বর সমন্বিত আক্রমণ” চালিয়েছে।

সোমবার প্রকাশিত এক বিবৃতিতে ব্রিটেন, নরওয়ে এবং যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, তারা “আবেই ও এর আশপাশে বসবাসকারী সম্প্রদায়ের মধ্যে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে সহিংসতার বৃদ্ধির কারণে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন”।

গত বছরের নভেম্বরে সংঘর্ষে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষীসহ ৩২ জন নিহত হওয়ার পর এই হামলা হলো। আবেইতে ১২ বছর ধরে জাতিসংঘ শান্তি রক্ষা মিশন কাজ করছে এবং সেখানে বর্তমানে প্রায় চার হাজার সামরিক ও পুলিশ সদস্য রয়েছেন।

About

Popular Links