Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সাদিক আব্দুল্লাহর নিয়োগ দেওয়া বরিশাল সিটির ১৩৪ কর্মচারী চাকরিচ্যুত

মোট ৩০০ জনকে সাদিক আব্দুল্লাহ নিজের মেয়াদের শেষ সময়ে নিয়োগ দিয়েছিলেন

আপডেট : ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৯:১৭ পিএম

বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে দৈনিক মজুরিভিত্তিক নিয়োগ পাওয়া ১৩৪ জন অস্থায়ী কর্মচারীর নিয়োগ বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ।

শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) সিটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুমা আক্তার ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, “বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এ নিয়োগ বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আরও ৫১ জনের নিয়োগ বাতিলের প্রক্রিয়া চলছে।”

বরিশাল সিটির মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পাঁচ মাস পর গত ১৪ নভেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব নেন সাবেক মেয়র আবদুল্লাহর চাচা সাদিক সেরনিয়াবাত আবুল খায়ের আবদুল্লাহ খোকন। দায়িত্ব নেওয়ার এখনো এক মাস পার করেননি তিনি; তার আগেই এই সিদ্ধান্ত নিলো কর্তৃপক্ষ।

বরিশাল সিটি কর্পোরেশন সূত্র জানায়, প্রশাসন, হাটবাজার, পরিছন্নতা, ভাণ্ডার, বিদ্যুৎ, সম্পত্তি, জন্ম নিবন্ধন, প্রকৌশল, সিটি নিরাপত্তা, কর আদায়, সম্পত্তি, বাণিজ্য ও জনসংযোগসহ কয়েকটি শাখার ১৩৪ জন কর্মচারীর চাকরিচ্যুতির বিজ্ঞপ্তি নোটিশ বোর্ডে দেওয়া হয়েছে।

আরও ৫১ কর্মচারীকে কর্মস্থলে না আসার ব্যাপারে মোবাইল ফোনে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। রবিবার চূড়ান্তভাবে তাদের নিয়োগ বাতিল করা হবে। এই ১৮৫ জনসহ মোট ৩০০ জনকে সাদিক আব্দুল্লাহ নিজের মেয়াদের শেষ সময়ে নিয়োগ দিয়েছিলেন।

এদিকে, নিয়োগ বাতিল হওয়া কর্মচারীদের অভিযোগ, দুই মাস কাজ করালেও তাদের কোনো টাকা না দিয়ে চাকুরিচ্যুত করা হচ্ছে। চাকরি হারানো নিরাপত্তাকর্মী শহিদুল ইসলাম বলেন, “দুই মাস কাজ করেছি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নগর ভবনে গেলে প্রশাসনিক কর্মকর্তা আমাকে আর যেতে নিষেধ করেছেন। এক মাসও বেতন পাইনি।”

প্রশাসনিক শাখায় কর্মরত ছিলেন তজাম্মুল ইসলাম। তারও চাকরি চলে গেছে। তিনি বলেন, “আমি চাকরিতে যোগদান করি ১ নভেম্বর। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কাজ করেছি। তারপর জানানো হলো আমাদের নিয়োগ বাতিল হয়েছে।”

এ বিষয়ে সিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, “প্রয়োজনের তুলনায় আমাদের দ্বিগুণ কর্মচারী রয়েছে। যাদের নিয়োগ বাতিল করা হলো তাদের নিয়োগের শর্তই ছিল যে, কর্তৃপক্ষ যেকোনো সময় তাদের নিয়োগ বাতিল করতে পারবে।”

About

Popular Links