Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নিপুণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি জায়েদ খানের

২২ ফেব্রুয়ারি জায়েদ খানকে লিখিত নোটিশ পাঠানো হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে। যেখানে জানানো হয় সমিতির গঠনতন্ত্রের ৭ (ক) ধারা মোতাবেক জায়েদ খানের সদস্যপদ স্থগিতের কথা ভাবছে সংগঠন

আপডেট : ০২ এপ্রিল ২০২৩, ০৬:০৫ পিএম

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির বিগত নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে জায়েদ খান ও নিপুণ আক্তারের লড়াই গড়িয়েছিল আদালত পর্যন্ত। এই জলঘোলা পরিস্থিতি মাঝে শিথিল হলেও সম্প্রতি তা নিয়ে আবারও আলোচনা শুরু হয়েছে।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি সূত্রে জানা যায়, এবার জায়েদ খানের সদস্য পদ বাতিল হতে পারে। ২২ ফেব্রুয়ারি জায়েদ খানকে লিখিত নোটিশ পাঠানো হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে। যেখানে জানানো হয় সমিতির গঠনতন্ত্রের ৭ (ক) ধারা মোতাবেক জায়েদ খানের সদস্যপদ স্থগিতের কথা ভাবছে সংগঠন।

এ নিয়ে এতদিন চুপ থাকলেও অবশেষে চিঠির জবাব দেন জায়েদ খান।

নিপুণ বরাবর দেওয়া চিঠিতে জায়েদ লিখেছেন, “২২ ফেব্রুয়ারি আপনার ইস্যু করা বেআইনি নোটিশের জবাব। আমি পেশাগত কাজে ১৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ৬ মার্চ পর্যন্ত দেশের বাইরে অবস্থান করি। এ সময় আপনি নিজেকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক উল্লেখ করে ২২ ফেব্রুয়ারি অবৈধ নোটিশটি আমাকে পাঠান। আমি দেশের বাইরে থাকায় যথাসময়ে নোটিশটি আমার ওপর জারি হয়নি। ৩১ মার্চ সেটি আমি পেয়েছি।”

জায়েদ সেখানে আরও লেখেন, “বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সর্বশেষ নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদটির বৈধতা নিয়ে মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে মামলাটি বিচারাধীন। এই অবস্থায় আপনি নিজেকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক দাবি করে ওই নোটিশ ইস্যু করেছেন, যা বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের মহামান্য আপিল বিভাগের অবমাননার শামিল। মাননীয় আপিল বিভাগে বিচারাধীন মামলাটি ‘frustrate' করার অসৎ উদ্দেশ্যে ২২ ফেব্রুয়ারি নোটিশটি ইস্যু করা হয়েছে। আমার সদস্যপদ নিয়ে যেকোনো ধরনের হস্তক্ষেপ বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত অবমাননার শামিল। ওই অবৈধ নোটিশের পরিপ্রেক্ষিতে গৃহীত যেকোনো ধরনের অবৈধ কার্যকলাপের সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাই দেশের সর্বোচ্চ আদালত অবমাননার জন্য ব্যক্তিগতভাবে দায়ী হবেন।”

শেষে জায়েদ লেখেন, ‌‌“আপনি ২২ ফেব্রুয়ারি কেন আমার বিরুদ্ধে সমিতির গঠনতন্ত্রের ৭(ক) ধারা মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না এই মর্মে ৭ (সাত) দিনের সময় দিয়ে একটি কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির তিনবার নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আমি সংগঠনের উদ্দেশ্যাবলীর পরিপন্থী, সংগঠনের স্বার্থের বিরুদ্ধে বা সংগঠনের অবমাননাকর কোনো কার্যের সঙ্গে কখনো সম্পৃক্ত ছিলাম না বিধায় তথাকথিত কারণ দর্শানোর নোটিশটি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও বেআইনি। বিষয়টির গুরুত্ব বিবেচনা করে একজন সহশিল্পী হিসেবে আপনাকে বিতর্কিত, অবৈধ, মানহানিকর এবং আদালত অবমাননাকর কোনো কার্যক্রম গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করছি। অন্যথায় আপনার এবং অন্যান্য দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব।”

উল্লেখ্য, জায়েদ খানের এই বিষয় নিয়ে ২ এপ্রিল সংবাদ সম্মেলন করার কথা রয়েছে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির।

About

Popular Links