Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কাঁচা কাঁঠাল কেন খাবেন

এটি রোগব্যাধি উপশমে যেমন কার্যকর, অন্যদিকে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে দেয় অনেক গুণ

আপডেট : ২৬ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৪৩ পিএম

স্বাস্থ্যকর এক খাবার কাঁঠাল। পাকা ও কাঁচা, কাঁঠাল দুইভাবেই খাওয়া যায়। অনেকেই কাঁঠালের এচোড় (কচি কাঁঠাল) ফ্রিজে জমিয়ে রেখে কয়েক মাস ধরে খেতে ভালোবাসেন। নানা ভাবে তরকারি হিসেবে খাওয়া হয় কাঁঠাল। কাঁচা কাঁঠাল স্বাদে আর গুণে কম যায় না।

কাঁচা কাঁঠালে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে আঁশ, যার অপর নাম ডায়াটারি ফাইবার। আঁশজাতীয় খাবার দীর্ঘ সময় আমাদের পেট ভরে রাখতে সাহায্য করে, দূর করে কোষ্ঠকাঠিন্য। কাঁঠালের আঁশ কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

এমনকি এটি রোগব্যাধি উপশমে যেমন কার্যকর, অন্যদিকে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে দেয় অনেক গুণ।

কাঁঠালের বিচিতেও আছে শর্করা। এটি চাইলে খেতে পারবেন তরকারি, হালুয়া বা ভর্তা হিসেবে। তবে এতে থাকে আঁশ, তাই বেশি খেলে হজমে গোলযোগ হতে পারে।

প্রতি ১০০ গ্রাম কাঁঠালে খাদ্য-আঁশ থাকে দুই গ্রাম, শর্করা ২৪ গ্রাম, চর্বি দশমিক ৩ মিলিগ্রাম, ক্যালসিয়াম ৩৪ মিলিগ্রাম, ম্যাগনেশিয়াম ৩৭ মিলিগ্রাম, পটাশিয়াম ৩০৩ মিলিগ্রাম, ভিটামিন এ ২৯৭ আইইউ ও ভিটামিন-সি ৬.৭ মিলিগ্রাম।

কাঁচা ও পাকা—উভয় ধরনের কাঁঠালে ভিটামিন সি এবং ভিটামিন এ রয়েছে। তবে কাঁচা কাঁঠালে ভিটামিন সি থাকে তুলনামূলক বেশি। ভিটামিন সি আমাদের রোগ প্রতিরোধ শক্তিকে করে দ্বিগুণ শক্তিশালী। তারুণ্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। ত্বক, নখ, চুল, দাঁতের পুষ্টি জোগায়। চর্মরোগ প্রতিরোধে কাজ করে।

কাঁঠালের মধ্যে রয়েছে পটাশিয়াম, যা রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। পরিণামে হৃদ্‌রোগ প্রতিরোধ হয়। আমাদের ত্বকের পুষ্টির জন্য কোলাজেন নামের একধরনের প্রোটিন বা আমিষের দরকার। কাঁঠালের ভিটামিন সি কোলাজেন তৈরিতে ভূমিকা রাখে।

কাঁঠালের বিচিতে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন বি১২, আয়রন, আমিষ, খনিজ লবণ। আমাদের শরীরে মাকড়সার জালের মতো ছড়িয়ে আছে বিভিন্ন ধরনের নার্ভ বা স্নায়ু। এসব স্নায়ুর পুষ্টির জন্য ভিটামিন বি১২ ভীষণ জরুরি।

কাঁচা কাঁঠালে ফোলেট আয়রনও রয়েছে উচ্চমাত্রায়। ফোলেট, আয়রন রক্ত তৈরি করে। গর্ভস্থ শিশুর বৃদ্ধি ও বর্ধনের জন্য ফোলেট ভীষণ দরকারি। বাড়ন্ত শিশুরা হঠাৎ লম্বা হয়ে যায়। তাদের বিভিন্ন ধরনের শারীরিক পরিবর্তন হয়। বাড়ন্ত শিশুদের জন্যও কাঁচা কাঁঠাল খুবই উপকারী।

যাদের ডায়াবেটিস আছে, তাঁদের কাঁঠাল খাওয়ায় কিছুটা বিধিনিষেধ আছে। কিডনি রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে যাঁদের রক্তে পটাশিয়ামের মাত্রা বেশি, তাদের কাঁঠাল না খাওয়াই ভালো।

About

Popular Links