Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নারীর ক্ষমতায়নে জাতীয় মহিলা সংস্থার ভূমিকা

১৯৯১ সালে জাতীয় মহিলা সংস্থাকে একটি সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠানে রূপদান করা হয়

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২৩, ০৪:৪২ পিএম

আমরা জানি বাংলাদেশের প্রায় অর্ধেক জনগোষ্ঠী নারী। তাই নিঃসন্দেহে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে নারীর অংশগ্রহণ ও ক্ষমতায়ন দেশের সার্বিক অগ্রগতির অন্যতম শর্ত। এসডিজি’র লক্ষ্যমাত্রায়ও নারী ক্ষমতায়নের বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। অবশ্য সবক্ষেত্রেই নারীর ক্ষমতায়নের বিষয়টি বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গেই দেখে আসছে বর্তমান সরকার। আর এটি শুরু হয়েছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাত ধরেই।

১৯৭২ সালে জাতির পিতার সদিচ্ছা ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত ও নির্যাতিত নারীদের পুনর্বাসনের জন্য ‘‘নারী পুনর্বাসন বোর্ড’’ স্থাপিত হয়। বোর্ডের দায়িত্ব ও কর্মপরিধি বৃদ্ধি পাওয়ায় ১৯৭৪ সালে এটিকে ‘‘নারী পুনর্বাসন কল্যাণ ফাউন্ডেশন’’-এ উন্নীত করা হয়। পরবর্তীতে ১৯৯১ সালে জাতীয় মহিলা সংস্থাকে একটি সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠানে রূপদান করা হয়।

নারীর ক্ষমতায়নে জাতীয় মহিলা সংস্থার নিয়মিত কার্যক্রমের বাইরেও বর্তমানে এর অধীন পৃথক দুটি প্রকল্প চলমান। যার একটি হলো-  “তৃণমূল পর্যায়ে অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে নারী উদ্যোক্তাদের বিকাশ সাধন প্রকল্প” এবং আরেকটি “তথ্য আপা প্রকল্প”। আজ এ দুটি প্রকল্পের কার্যক্রম ও অভিজ্ঞতার কথা বলব।

তৃণমূল পর্যায়ে অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে নারী উদ্যোক্তাদের বিকাশ সাধন প্রকল্প

এই প্রকল্পের মাধ্যমে বেকার, অদক্ষ, দরিদ্র এবং সুবিধাবঞ্চিত নারীদের পেশাগত উন্নয়নে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। শুধু তাই নয় এই প্রকল্পের প্রস্তাবিত বিক্রয়কেন্দ্রগুলোতে তাদের উৎপাদিত পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রিরও সুযোগ রয়েছে। তাই এই প্রকল্পটি সরাসরি দেশে এবং বিদেশে নারীদের উৎপাদিত পণ্য বিপণনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট।

ইতোমধ্যে অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে নারী উদ্যোক্তাদের বিকাশ সাধন প্রকল্পের তিনটি পর্যায় ২০২০ সালে সফলভাবে সমাপ্ত হয়েছে। এতে সর্বমোট ৭১,৫০০ জনকে প্রায় ১২০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, চতুর্থ পর্যায়ে কালীগঞ্জসহ মোট ৮০ টি উপজেলায় সর্বমোট ২ লাখ ৫৬ হাজার জনকে এ প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। যা ২০২৫ সালে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। 

এবার আসি গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার কিছু তথ্য নিয়ে। ২০২২-২৩ অর্থবছরে ৩০০ জন  প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে মোট ২৮ লাখ ৫০ হাজার ৩০০ প্রশিক্ষণ ভাতা বিতরণ করা হয়েছে। এ নিয়ে কালীগঞ্জে মোট ১৫০০ জনকে ইতোমধ্যে প্রায় আড়াই কোটি টাকা প্রশিক্ষণ ভাতা দেওয়া হয়েছে। ফ্যাশন ডিজাইন, ক্যাটারিং, বিউটিফিকেশন, ইন্টেরিওর ডিজাইন এন্ড ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট এবং বিজনেজ ম্যানেজমেন্ট- এই পাঁচটি ট্রেড বা ক্যাটাগরিতে এই প্রশিক্ষণটি সফলভাবে চলমান।

তথ্য আপা প্রকল্প

নারীর ক্ষমতায়নে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে। এ বিষয়টি উপলব্ধি করতে পেরে প্রধানমন্ত্রীর নিজস্ব চিন্তাপ্রসূত উদ্যোগ “তথ্য আপা প্রকল্প”। দেশের গ্রামের অসহায়, দরিদ্র, সুবিধাবঞ্চিত কিংবা কম সুবিধাপ্রাপ্ত নারীর তথ্যে প্রবেশাধিকার এবং তাদের তথ্য প্রযুক্তির সেবা প্রদান নিঃসন্দেহে নারীর ক্ষমতায়নকে ত্বরান্বিত করবে। এ লক্ষ্যেই মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক “তথ্য আপা: ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে মহিলাদের ক্ষমতায়ন” শীর্ষক প্রকল্পটি এক প্রকার পাইলট আকারেই গৃহীত হয়েছিল। 

প্রকল্পটি প্রথম পর্যায়ে ১৩টি উপজেলায় সফলভাবে বাস্তবায়িত হওয়ায় পরবর্তীতে সব উপজেলায় তৃণমূল নারীদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে পাঁচ বছর মেয়াদি “তথ্য আপা: ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে মহিলাদের ক্ষমতায়ন প্রকল্প (২য় পর্যায়)” চালু হয় যা ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত চলবে। এ প্রকল্পের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট হলো নিয়মিত উঠান বৈঠকের মাধ্যমে নারীদের কাছে তথ্যসেবা পৌঁছে দেওয়া।

তথ্যকেন্দ্রগুলো থেকে বিনামূল্যে প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা যেমন রক্তচাপ পরীক্ষা, ওজন পরিমাপ ও ডায়াবেটিস পরীক্ষা করা হয়। দ্বার থেকে দ্বারে সেবা প্রদানের পাশাপাশি নিয়মিত উঠান বৈঠকের মাধ্যমে মুক্ত আলোচনা ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহণ ছাড়াও এখান থেকে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে। 

উল্লেখ্য, কালীগঞ্জ উপজেলায় ২০১৯ থেকে ২০২৩-এর সেপ্টেম্বর পর্যন্ত উঠান বৈঠকের সংখ্যা ৬৮টি। উঠান বৈঠকে উপকারভোগীর সংখ্যা  ৪,৭৫০ জন।

পরিশেষে আমার মতে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১-এর যে ম্যান্ডেট দিয়েছে সেটি বাস্তবায়নের দায়িত্ব অনেকখানিই কাঁধে তুলে নিয়েছে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন জাতীয় মহিলা সংস্থা।

মো. আজিজুর রহমান 
উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কালীগঞ্জ, গাজীপুর

 

প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্ত ব্যক্তিগত। ঢাকা ট্রিবিউন কর্তৃপক্ষ এর জন্য দায়ী নয়।

About

Popular Links